সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

দোয়া কবুলের পূর্বশর্ত হালাল রুজি

দোয়া কবুলের পূর্বশর্ত হালাল রুজি। হারাম পথে অর্জিত উপার্জনের রুজি পরিহার করতে হবে। অথচ আমরা তা কতটুকু করছি। উপার্জনের যেন কোন বালাই নেই। নেই বিচার বিবেচনা। দুনিয়ার সমৃদ্ধির জন্য হারাম পথে উপার্জন করা হচ্ছে। এই অবৈধ উপার্জন নিয়ে অহঙ্কারের শেষ নেই। কে কতটা হারাম পথে উপার্জন করলো তা নিয়ে আলোচানার শেষ নেই। অবশ্য হাদিসে বলা হয়েছে- মানুষের নিকট এমন এক জমানা আসবে যখন তারা হালাল-হারাম বাছবিচার না করে উপার্জন করবে। (বুখারী শরীফ)। না জানি সে জমানা চলে এসেছে কিনা?
আল্লাহপাক পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেন- হে মানবজাতি। পৃথিবীতে যা কিছু বৈধ ও পবিত্র খাদ্যবস্তু রয়েছে তা হতে তোমরা আহার কর এবং শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ করো না, নিশ্চয় সে তোমাদের প্রকাশ্যে শত্রু (সূরা বাকারা, আয়াত ১৬৮)। পবিত্র খাদ্যবস্তু মানে হালার খাবার। সৎভাবে উপার্জিত অর্থের কেনা খাবার। পবিত্র বস্তু আহার এবং আল্লাহপাকের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে হবে। হে ঈমানদারগণ, তোমাদিগকে আমি যেসব পবিত্র বস্তু দিয়েছি তা হতে আহার কর এবং আল্লাহর নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর যদি তোমরা শুধু তারই ইবাদত কর (সূরা বাকারা, আয়াত ১৭২)। 
শুধু নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত আদায়ই ইবাদত …
সাম্প্রতিক পোস্টগুলি

জেনে রাখুন কুকুর কামড়ালে যা কিছু করণীয়!

কুকুরে কামড়ালে জলাতঙ্ক রোগ হয়। জলাতঙ্ক রোগকে হাইড্রোফোবিয়া, লাইসা এবং পাগলা রোগও বলা হয়। এ রোগে আক্রান্ত হলে মৃত্যু নিশ্চিত! বিভিন্ন প্রাণির কামড়ে এই রোগ হলেও আমাদের দেশে সচরাচর কুকুর ও বিড়ালের মাধ্যমে এই রোগ হয়।
সাধারণত রোগটি জলাতঙ্ক ভাইরাস সংক্রমিত প্রাণির লালার মাধ্যমে ছড়ায়। তাই কুকুরে কামড়ালে আমাদের করণীয় কি তা জানা আবশ্যক। চলুন জানা যাক:
ক্ষতস্থানে পরিষ্কার পানি ঢালুন: কুকুরে কামড়ালে ক্ষতস্থানটিতে দ্রুত গতিতে পরিষ্কার পানি ঢালুন। ক্ষারীয় সাবান (কাঁপড় ধোয়ার সাবান) দিয়ে পরিষ্কার করুন। এতে ব্যাকটেরিয়া ও অন্যান্য জীবাণুর সংক্রমণ কমবে।
রক্ত ঝরলে: ক্ষতস্থান থেকে রক্ত ঝরলে চেপে ক্ষতস্থানের রক্ত বের করে দিতে পারেন। তারপর দ্রুত রক্তপাত বন্ধ করতে ব্যবস্থা নিবেন।
জীবাণুরোধী ক্রিম ব্যবহার: জীবাণুরোধী বা এন্টিবায়োটিক ক্রিম লাগান। এতে জীবাণুর সংক্রমণ কম হবে। ব্যাণ্ডেজ লাগান: এন্টিবায়োটিক ক্রিম ব্যবহারের পর প্রয়োজনবোধে ব্যাণ্ডেজ ব্যবহার করতে পারেন।
ডাক্তার: ডাক্তারের কাছে যান। দ্রুত টিটেনাসের টিকা দেয়ার প্রয়োজন পড়তে পারে। পাশাপাশি অবশ্যই জলাতঙ্কের টিকা নিবেন।
কুকুরে কামড়ালে আমরা অনেকে ওঝার কাছ থেক…

ত্বক উজ্জ্বল করতে অসাধারণ সব ফলের ফেসপ্যাক!

খাদ্য হিসেবে ফলের জুড়ি নেই। ফলের রস, শাঁস সবকিছুতেই রয়েছে পুষ্টি। ত্বকের যত্নেও ফলের ব্যবহার রয়েছে। আসুন আজকে এমন কিছু ফেসপ্যাক সম্পর্কে জেনে নেই।
পেপের ফেসপ্যাক: পেঁপের কয়েকটা টুকরো পেস্ট করে নিন। মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট মতো রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।এটি ত্বকে থাকা ব্রণের কালো দাগ দূর করবে। সপ্তাহে ২ দিন করে কয়েক সপ্তাহ ব্যবহার করলেই পার্থক্য বুঝতে পারবেন। এই প্যাকটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য বেশি উপকারি।
শশার ফেসপ্যাক: ২ টেবিল চামচ শশার রস,২ টেবিল চামচ দুধ ও ৩-৪ ফোঁটা গোলাপের পাপড়ির রস মিশিয়ে নিন। এটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন। পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বক স্থায়ী ভাবে ফর্সা করবে। তাছাড়া শশার রস রোদে পোড়া ভাব দূর করবে।
টমেটোর ফেসপ্যাক: ১ টেবিল চামচ টমেটোর রস, ১/২ চা চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ গোলাপ জল ভাল করে মিশিয়ে মুখে, গলায় ও ঘাড়ে লাগান। ১৫ মিনিট রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আপেলের ফেসপ্যাক: ১ টেবিল চামচ আপেলের রস,১/৪ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে লাগান। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।এটি ত্বক উজ্জল করার সাথে সাথে ত্বকে ব্রণের সমস্যা দূর করবে। এটি সব ধরণের ত্বকের জন্য বিশেষ করে ত…

সামান্য এই বিষয়গুলো জানলে স্ট্রোক হলেও জীবন বাঁচানো যায়

স্ট্রোক বা পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগীদের যদি সময়মতো হাসপাতালে না নিয়ে যাওয়া হয় তবে তাঁদের মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। কিন্তু যদি বাড়িতে এমন রোগী থাকে সে ক্ষেত্রে কিছু ঘরোয়া টোটকা মনে রাখা উপকারি হতে পারে। যদি ঠিক মতো তা প্রয়োগ করতে পারেন তবে রোগীর প্রাণ হানির আশঙ্কা অনেকাংশে কমানো যেতে পারে। এই পদ্ধতি চিনের আকুপাঙ্কচার চিকিৎসা পদ্ধতি অনুযায়ী করা হয়ে থাকে।
চিনের অধ্যাপকদের মতে, এই পদ্ধতি অনুসরণ করে বহু মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। প্রায় প্রতি ক্ষেত্রে রোগী হয় প্রাণে বেঁচেছেন না হয় চিকিৎসার জন্য অতিরিক্ত সময় পয়েছেন। দেখে নিন ঘরে কী ভাবে এই রোগের মোকাবিলা করা যেতে পারে।
যদি দেখেন রোগী পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হচ্ছেন বা হতে পারেন তৎক্ষণাৎ ইঞ্জেকশনের সুঁচ বা সাধারণ সেলাই করার সুঁচ নিয়ে তার সামনের দিকটি আগুনে পুড়িয়ে নিন। এতে সুঁচ জীবাণুমুক্ত হবে। এর পর সেটি নিয়ে হাতের ১০টি আঙুলের ডগার নরম অংশে সামান্য ফুটিয় দিন। এর ফলে যেন রক্তপাত হয় তার দিকে খয়াল রাখতে হবে। এর জন্য আলাদা করে কোনও ডাক্তারি জ্ঞান থাকা আবশ্যক নয়। মিনিট খানেক অপেক্ষা করে দেখুন রোগী ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছেন কী না। যদি এর পরেও দেখেন…

রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ বৃদ্ধি করবে এই ৭টি খাবার

প্লাটিলেট রক্তের এক ধরণের ক্ষুদ্র কণিকা যা আঘাত থেকে প্রাপ্ত রক্তক্ষরণ বন্ধ করে এবং রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে। প্লাটিলেট কোষ রক্তে অনেকটা প্লেটের মত থাকে। একজন সুস্থ স্বাভাবিক মানুষের রক্তে সাধারণত ১,৫০,০০০ থেকে ৪,৫০,০০০ পর্যন্ত প্লাটিলেট থাকে। রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে যাওয়াকে thrombocytopenia বলে।
সাধারণত ডেঙ্গু জ্বর হলে এই অণুচক্রিকা অথবা প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে যেতে পারে। রক্তে প্লাটিলেটের লেভেল কমে গেলে শরীরের খুব বেশি ক্ষতি সাধারণত হয় না। তবে প্লাটিলেটে কমে যাওয়ার সাথে সাথে নাক, দাঁত অথবা দাঁতের মাড়ি থেকে রক্তপাত শুরু হলে সেটি চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। প্লাটিলেট কমে যাওয়ার প্রধান এবং অন্যতম লক্ষণ হল রক্তপাত। প্লাটিলেট কমে যাওয়া অবস্থা। প্লাটিলেটের পরিমাণ রক্তপাতের পরিমাণ১০,০০০ কোন অস্বাভাবিক রক্তপাত নয়।৫০,০০০-১,০০,০০০ আঘাতে অধিক রক্তপাত হয় সাধারণের তুলনায়।২০,০০০-৫০,০০০ ছোট আঘাতেও অধিক রক্তপাত২০,০০০ আঘাত অথবা আঘাত ছাড়া রক্তপাত কিছু খাবারের মাধ্যমে রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ বৃদ্ধি করা সম্ভব।
১. ডালিমঃ ডালিম রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এতে প্রচুর পরিমাণ আয়রন রয়…

আমেরিকাকে চীনের হুঁশিয়ারি

চীন পূর্ব এশিয়াকে অস্থিতিশীল করার বিরুদ্ধে আজ (শনিবার) আমেরিকার প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে। বেইজিংয়ের সঙ্গে সংঘাতের ক্ষেত্রে টোকিওকে সমর্থন দেয়া হবে বলে মার্কিন নতুন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিসের ঘোষণাকে কেন্দ্র করে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করল চীন।
জাপানের সেনকাকু দ্বীপপুঞ্জ সংকট টোকিও-ওয়াশিংটন নিরাপত্তা চুক্তির আওতায় পড়ে বলে ম্যাটিস ঘোষণা দিয়েছেন। জাপানে দুই দিনের সরকারি সফরের সময়ে এ কথা বলেছেন তিনি। তার এ বক্তব্যকে কেন্দ্র করে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লু কাং।
বিরোধপূর্ণ এ দ্বীপপুঞ্জকে দিয়াইউ নামে অভিহিত করে থাকে চীন। লু বলেন, দিয়াইউসহ আশেপাশের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দ্বীপগুলো প্রাচীন আমল থেকেই ঐতিহ্যগত ভাবে চীনা ভূখণ্ডের অংশ। এটি অপরিবর্তনীয় ঐতিহাসিক সত্য বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আমেরিকাকে ভুল মন্তব্য থেকে বিরত থাকার এবং দায়িত্বশীল আচরণ করার আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, পরিস্থিতিকে আরো জটিল করা এবং এ অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি থেকে আমেরিকার বিরত থাকা উচিত।
এ ছাড়া, আমেরিকা-জাপান চুক্তি সম্পর্কেও কথা বলেন তিনি। একে শীতল যুদ্ধের সময়ের চুক্তি হিসেবে উ…

বিরক্তিকর পিঁপড়ার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মিলবে যেভাবে!

রান্নাঘর থেকে শুরু করে বেডরুম, ডাইনিং টেবিল থেকে শুরু করে স্টোররুম সবখানেই রয়েছে পিঁপড়ার অস্তিত্ব। বিরক্তিকর পিঁপড়ার যন্ত্রণা কারই বা ভালো লাগে! এটা সেটা কত কিছুই তো করি আমরা পিঁপড়া তাড়াতে। কিন্তু পিঁপড়ার অত্যাচার থেকে মুক্তি আর মিলে না।
তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক পিঁপড়ার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে কি করবেন আপনি।
নিজেকে হতে হবে সচেতন: মিষ্টি খাবার এমনভাবে রাখবেন যাতে পিঁপড়া নাগাল না পায়।জ্যাম, জেলি, চিনি এসব ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখবেন না।খাবার খাওয়ার পর অবশিষ্ট খাবার হয় ফ্রিজে বা ভাল, শক্ত আটা বোতল বা টিনে তুলে রাখুন।রান্নাঘরে ফাটল থাকলে তাতে ফিনাইল দিবেন। গ্যামাক্সিন ছড়িয়ে দিলেও উপকার পাবেন।মিটসেফের চার পায়ের তলায় পানি ভরা স্ট্যান্ড দিলে পিঁপড়া খাবার দাবড়ে উঠবে না।খাবার সব সময় ঢেকে রাখবেন। ঘরে থাকা জিনিস ব্যবহারে পাবেন মুক্তি: ঘরে থাকা বিভিন্ন জিনিস ই হতে পারে পিঁপড়ার বিরুদ্ধে লড়াই করার হাতিয়ার। হাতের কাছে থাকা এই জিনিসগুলো ব্যবহার করে পিঁপড়ার যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাবেন আপনি। তেজপাতার ব্যবহার: রান্নাঘরের তাক পরিষ্কার করে তাকে কয়েকটা তেজপাতা দিয়ে রাখুন। পিঁপড়া তেজপাতা পছন্দ করেনা।লবনের ব্যবহার: গ…