সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

May, 2014 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

যৌন মিলনের ক্ষেত্রে যে বিষয়গুলি মনে রাখা জরুরি

সহবাস বা যৌন মিলনকে আনন্দঘন করতে চাইলে চারটি নিয়ম মেনে চললে আপনার যৌন মিলন মধুর হতে পারে। আপনি যদি এই নিয়মগুলিকে ঠিক ভাবে মেনে পার্টনারের সঙ্গে শারীরিক ভাবে মিলিত হন তাহলে প্রকৃত অর্থে সহবাসের আনন্দ লাভ করতে পারেন।
'দ্য ফোর সিক্রেটস অফ আমাজিং সেক্স' এ গ্রন্থে লেখক জর্জিয়া ফস্টার এবং বেভারলি এনি ফস্টার চারটি নিয়মের কথা বলেছেন। তাদের মতে যৌন মিলনের আগে শরীরের তুলনায় মানসিক ভাবে প্রস্তুতি নেয়াটা জরুরি। মানসিক ভাবে আপনি যদি যৌন মিলনের জন্য তৈরি থাকেন তাহলেই আপনি এর চরম সুখ লাভ করতে পারবেন।
সিডাকশান :- বেশীরভাগ মানুষই মনে করে যৌন মিলনের আগে নিজেদের যৌন উত্তেজনা বাড়াতে হবে। না সেটা একেবারেই ভুল ধারণা। আগে মনে প্রাণে যৌন চেতনা জাগান। যৌন মিলনের আগে মানসিক ভাবে প্রস্তুতি নিন। আপনি কখনই ভাববেন না আপনার পার্টনারের যৌন উত্তেজনা নিমেষেই বেড়ে যাবে। মানসিক ভাবে অনুভব করার পরেই এটা বাড়ানো সম্ভব।
সেনসেশান :- যৌন মিলনের ক্ষেত্রে সিক্স সেনস একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয়। সেক্ষেত্রে আপনি এবং আপনার পার্টনার উভয়েরই ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়কে জাগ্রত করতে হবে। কারণ যৌন মিলনের সময়ে প্রচুর এনার্জীর প্রয়োজন হয়। এনা…

সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য অপরিহার্য কিছু বিষয়

আমদের আধুনিক শিল্প সমাজের পারিবারিক ভাঙন, দাম্পত্য কলহ, নির্যাতনসহ নানা ধরনের জটিল সমস্যা হরহামেশাই ঘটছে । শুধু তাই নয় এইসকল সমস্যা দিন দিন জটিল থেকে জটিলতর হয়ে যাচ্ছে, কারণ মানুষ হয়ে যাচ্ছে অনেকটাই যান্ত্রিক এবং কমে যাচ্ছে আদর, বন্ধন, ভালোবাসা, সহানুভূতি। কিন্তু কতিপয় পদ্ধতি অবলম্বন করলে দাম্পত্য জীবনে সহজেই সুখী হওয়া যায়। এই লেখায় সংসার জীবনে সুখী হওয়ার ট্রিপস দেয়া হলো।


মনোবিজ্ঞানের মতে, আমাদের দেহের শতকরা ৭০-৮০ ভাগ রোগই মনের জন্য হয়ে থাকে। আর মন ভালো বা খারাপ নির্ভর করে ২টি বিষয়ের ওপর-
সংসার জীবনপারিপার্শ্বিক পরিবেশ। পারস্পরিক বিশ্বস্ততা :- সুখী সংসার গঠনের পূর্বতম শর্ত হলো বিশ্বস্ততা। বিশ্বাসহীন সংসার টিকে থাকা দুরূহ। বছরের পর বছর একই ছাদের নিচে বসবাস করার পরও দেখাযায় দুজনার মধ্যে প্রচুর বিশ্বস্ততার অভাব রয়েছে।কিন্তু তারা সংসার করছে কেবল সমমানহানি হবে বলে এবং বিশৃঙ্খলার ভয়ে অথবা ছেলেমেয়ের ভবিষ্যতের কথাচিন্তা করে। সুখী দাম্পত্য জীবন চাইলে দুজনার মধ্যে বিশ্বস্ততা বাড়াতে হবে, অবিশ্বাসের মূল উঠিয়ে ফেলতে হবে, তথাপি অবিশ্বাসের বিষয়টি দুজনইআলোচনার মাধ্যমে নিরসন করতে হবে।
স্বামী-স্ত্রীর ব…

নিয়মিত যৌন মিলন বা সহবাসের শারীরিক উপকারিতাসমূহ

বিয়ের পর নব দম্পতির ভালোবাসা প্রকাশের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো শারীরিক মিলন৷ আবার শারীরিক প্রয়োজনীয়তার একপ্রকার বহিঃপ্রকাশ সেক্স্যুয়াল অ্যাক্টিভিটি৷ কিন্তু আপনি কি জানেন শারীরিক চাহিদা বা ভালোবাসা প্রকাশের দিক ছাড়াও এর অনেক গুণ আছে যার ফলে আপনার ব্যক্তিজীবন আনন্দে ভরপুর হয়ে উঠতে পারে? তাই নিম্নে সেক্সের শারীরিক উপকারিতা তুলে ধরা হলো -

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাঁড়ায় :- রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ক্ষেত্রে, অর্থাৎ আমাদের ইমিয়্যুন সিস্টেম ঠিক রাখতে সাহায্য করে আমদের শারীরিক মিলন প্রক্রিয়া৷ রোগ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে এটি থেরাপির মত কাজ করে, এর মাধ্যমে পাচনকার্য ঠিক হওয়ার ফলে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা সুদৃঢ় হয়৷
ভালো ব্যায়াম :- শারীরিক মিলনের সময়ে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ যেভাবে সঞ্চালিত হয়, তার মাধ্যমে ব্যয়াম কার্য খুব ভালোভাবে সম্পাদিত হয়৷ এর মাধ্যমে প্রচুর ক্যালোরি খরচ হয়, ফলে কোলেস্টেরলের মাত্রা কম হয়, রক্তপ্রবাহ ভালো হয়, শারীরিক মিলনকার্যে আপনি ৩০ মিনিট লিপ্ত থাকলে আপনার ৮৫ ক্যালোরি খরচ হয়৷ আপনি এক সপ্তাহ নিয়মিত হাঁটা-চলা করলে যে পরিমান ক্যালোরি খরচ হয়, সপ্তাহে তিন দিন নিয়মিত ভাবে শার…

নারীদের যৌন প্রজননের ব্যাপারে কিছু ভুল ধারণা

আমরা সকলেই জানি নারীদের প্রকৃতি প্রদত্ত একটি ক্ষমতা হলো সন্তান গর্ভে ধারণ করা ও জন্ম দেওয়া। কিন্তু অবাক করা হলেও সত্যি এই যে, এই ক্ষমতার ব্যাপারে বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষেরই রয়েছে কিছু ভুল ধারণা। একেবারেই সাধারণ এসব ব্যাপারে শুধু নারী নন, বরং আমাদের সবারই জেনে রাখা উচিৎ। কেননা এইসব ভুলগুলো মোটেও ছোট খাটো নয় । বরং সব ভুল ধারণাগুলি মনে মনে লালন করার জন্য একজন নারী পড়তে পারেন নানান রকম সমস্যায়। আসুন দেখে নেওয়া যাক যৌন প্রজনন, অর্থাৎ সন্তান ধারণ এবং জন্মদানের ব্যাপারে আমাদের কী কী ভুল ধারণা রয়েছে -


0১. আমাদের সমাজে খুব প্রচলিত একটি কুসংস্কার জাতীয় ধারণা হলো, দিনে একবারের বেশি শারীরিকভাবে মিলিত হলে তাদের গর্ভধারণের সম্ভাবনা বাড়বে। কেউ কেউ এমনটাও বিশ্বাস করেন, বিশেষ কিছু অবস্থানে মিলিত হলে তাদের গর্ভধারণের সম্ভাবনা বেশি হতে পারে।

0২. গর্ভধারণের জন্য আসলে যে ব্যাপারগুলো কাজ করে তার ব্যাপারে জানেন না অনেকেই। যেমন: বয়স বাড়ার সাথে সাথে যে উর্বরতা এবং গর্ভধারণের সম্ভাবনা কমতে থাকে তা জানা নেই অনেকেরই। বিভিন্ন যৌনরোগ বা ইনফেকশনের ফলে কমে যায় গর্ভধারণের ক্ষমতা – এটাও জানেন না অনেকেই।
0৩. গর্ভধার…

পর্ণোগ্রাফী জন্ম দেয় ভয়াবহ সামাজিক ও শারীরিক সমস্যা

আমাদের আধুনিক সমাজে পর্ণোগ্রাফী একটি মারাত্মক সামাজিক ব্যাধি। প্রতিদিন কোটি কোটি পর্ণ ভিডিও মোবাইলের মাধ্যমে বিদুৎতের চেয়েও দ্রুত গতিতে তরুণদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ছে, যার ফলে বাড়ছে যৌন অপরাধ। বর্তমানে টিনেজাররা পর্ণোগ্রাফীর মূল দর্শক। তাই নিয়মিত পর্ণোগ্রাফী দেখার ফলে তরুণ-তরুণীরা সেক্স সম্পর্কে যা শিখছে তার অধিকাংশই ভুল। শুধু তাই নয় - এই গুলির কুফলে জন্ম হচ্ছে নানা সামাজিক ও শারীরিক সমস্যা। পর্ণোগ্রাফী  দেখে কি শিখছে মানুষ - আসুন জেনে নিই :

পুরুষাঙ্গ বড় হলেই সেক্স করে মজা পাওয়া যায় :- পর্ণোগ্রাফী দেখতে দেখতে অনেক ছেলে-মেয়ের মধ্যে এ ধারণাটি কাজ করে যে, পুরুষাঙ্গ বড় হলেই সেক্স করে মজা পাওয়া যায়। এর ফলে দেখা যায় যে, অনেক সময় ছেলেরা নিজেদের পুরুষত্ব পরীক্ষা করার জন্য বিভিন্ন মেয়ের সাথে সেক্স করে এই কারণে যে, তার পুরুষাঙ্গ কোন মেয়েকে তৃপ্ত করার জন্য যথেষ্ট কিনা। আসলে একটি মেয়েকে যৌনতৃপ্তি দেয়ার জন্য ন্যুনতম ৩-৪ ইঞ্চির পুরুষাঙ্গই যথেষ্ট।
যোনীতে পুরুষাঙ্গ প্রবেশ করালেই মেয়েরা তৃপ্ত হয় :- বিভিন্ন পর্ণোগ্রাফীতে দেখা যায় যে, যোনীতে পুরুষাঙ্গ প্রবেশ করানোর কিছুক্ষণ পরপরই মেয়েরা তৃপ্ত হচ্ছে, কামরস বের…

কনডম ব্যবহারের কিছু উপকারিতা

বিভিন্ন প্রকার যৌনবাহিত রোগসমূহকে প্রতিরোধের ক্ষেত্রে কনডম বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই বর্তমান সময়ে যৌনমিলনের ক্ষেত্রে কনডম খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান । তাছাড়া কনডম পুরোপুরি ১০০% রোগ প্রতিরোধ করতে না পারলেও এর সাফল্যের হার প্রায় ৯০%। নিম্নে কনডম ব্যবহারের কিছু উপকারিতা তুলে ধরা হলো :
০১. অনেক দম্পতি মনে করেন যে, কনডম ব্যবহার করে যৌনমিলন করলে যৌন আনন্দের পরিমাণ কমে যায়। কিন্তু এটি সম্পূর্ণ ভূল। কনডম ব্যবহার করে যৌনমিলন করলে যৌন আনন্দের পরিমাণ বেড়ে যায়।

০২. কনডম অপরিকল্পিত গর্ভধারণ রোধ করে।

০৩. কনডম ব্যবহার করে যৌনমিলন করলে এইডস, গনোরিয়া, সিফিলিস ইত্যদি যৌনরোগ থেকে নিরাপদে থাকা যায়।

০৪. অনেক পুরুষই হয়তো জানেন না যে, কনডম ব্যবহার করে অনেকক্ষণ যৌনমিলন করা যায়, যা কনডমবীহিন অবস্থায় পুরোপুরিভাবে সম্ভব নয়।

০৫. বিভিন্ন ব্রান্ডের কনডমে নরমাল এবং বিভিন্ন ফ্লেভারের লুব্রিকেন্ট দেওয়া থাকে, যার ফলে আলাদাভাবে লুব্রিকেন্ট ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। খুবই প্রয়োজন হলে গ্লিসারিন ব্যবহার করতে পারেন, তেল ব্যবহার করবেন না। কারণ তেল ল্যাটেক্সকে ভেঙ্গে দেয়, ফলে কনডমের কার্যকারিতা নষ্ট হয়।
০৬. পৃথি…