সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

August, 2014 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

পুরুষদের যৌন জীবনের উন্নয়নে কেজেল ব্যায়াম/কেগেল ব্যায়ামের ভূমিকা

অনেকেই ভাবেন কেজেল ব্যায়াম/কেগেল ব্যায়াম (Kegel exercises) শুধু মহিলাদের জন্য হয়। কিন্তু তা পুরুষদের যৌন জীবনের উন্নয়নেও ভালো ভুমিকা রাখে। মহিলারা এই ব্যায়াম থেকে যতটা সুবিধা লাভ করতে পারেন, পুরুষরাও ঠিক ততটা সুবিধা নিতে পারবেন। কেগেল ব্যায়াম শ্রোণী মেঝের পেশী সুসংগঠিক করে মূত্রসংবহনতন্ত্র, বৃহদন্ত্র ও পায়ুপথের কার্যপ্রণালী জোরদার করে এবং যৌনক্রিয়া ক্ষমতাকে উন্নিত করতে পারে। মহিলাদের মত পুরুষেরাও যখন তখন এই ব্যায়াম করতে পারেন। কিন্তু সবারই উচিত ব্যায়ামটি করার আগে সঠিক মাংশপেশী সনাক্তকরণ এবং সঠিক পন্থা জেনে নেয়া।

পুরুষদের জন্য কেজেল ব্যায়ামের উপকারিতা :- শ্রোণী মেঝের পেশী অনেক কারণে ক্ষতিগ্রস্থ বা দূর্বল হয়ে যেতে পারে। যেমন প্রোস্টেড গ্রাণ্ডে টিউমার বা অন্য কোনো সার্জারী, ডায়াবেটিস ইত্যাদি। কেজেল ব্যায়াম পুরুষদের পেলভিস ফ্লোরের মাসল শক্তিশালী করে যখন তখন প্রস্রাবের বেগ, ঠিক মতো প্রস্রাব না হওয়া সহ আরো অনেক রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে।
কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে পুরুষদের জন্য কেজেল ব্যায়াম যৌনমিলনের সময় লিঙ্গ উত্থানে সমস্যা, অকাল বীর্যপাত, দ্রুত বীর্যপাতের মত সমস্যারও সমাধ…

পুরুষের হাইড্রোসিল বা একশিরা নির্মূলে হোমিওপ্যাথি

হাইড্রোসিলকে আবার একশিরাও বলা হয়ে থাকে। এটি হলো পুরুষের অণ্ডকোষের চার পাশে ঘিরে থাকা একটি পানিপূর্ণ থলি, যার কারণে অণ্ডথলি ফুলে যায়। এই পানিটা প্রকৃতপক্ষে জমে থাকে অণ্ডকোষের দুই আবরণের মাঝখানে। জন্মের সময় প্রতি ১০ জন পুরুষশিশুর মধ্যে প্রায় একজনের হাইড্রোসিল থাকে, তবে বেশির ভাগ হাইড্রোসিল চিকিৎসা ছাড়াই প্রথম বছরের মধ্যে মিলিয়ে যায়। আর পুরুষদের সাধারণত ৪০ বছরের ওপরে অণ্ডথলিতে প্রদাহ বা আঘাতের কারণে হাইড্রোসিল হতে পারে।


হাইড্রোসিলে সাধারণত ব্যথা হয় না। সাধারণত হাইড্রোসিল ক্ষতিকর নয়। অনেক সময় চিকিৎসার প্রয়োজন নাও হতে পারে। তবে আপনার যদি অণ্ডকোষ ফুলে যায় তাহলে অবশ্যই আপনাকে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। দেখতে হবে অন্য কোনো কারণে যেমন অণ্ডকোষের ক্যান্সার বা অন্য রোগে অণ্ডকোষ ফুলে গেছে কি না। উপসর্গ :-  হাইড্রোসিলের প্রধান উপসর্গ হলো ব্যথাবিহীন ফোলা অণ্ডকোষ। পানিভর্তি বেলুনের মতো অনুভূত হয়। হাইড্রোসিল একটি বা দু’টি অণ্ডকোষেই হতে পারে।
কারণ :-  ছেলেশিশুর ক্ষেত্রে গর্ভে থাকা অবস্থায় হাইড্রোসিল হতে পারে। গর্ভাবস্থায় প্রায় ২৮ সপ্তাহে স্বাভাবিক বৃদ্ধিপ্রাপ্ত শিশুর অণ্ডকোষ উদরগহ্বর থেক…

ডায়াবেটিস জনিত যৌন অক্ষমতায় পুরুষরা কি করবেন ?

ডায়াবেটিস আমাদের সমাজে অতি পরিচিত এক শব্দ। বিশেষ করে শহরাঞ্চলে এমন পরিবার খুব কমই খুঁজে পাওয়া যাবে যেখানে কেউ না কেউ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন নি। ডায়াবেটিস নারী এবং পুরুষের শরীরের অটোনমিক ব্যবস্থাকে দুর্বল করে দেয়। ফলে পুরুষের কিংবা নারীর দৈহিক চলৎশক্তি নিষ্ক্রিয় হতে থাকে। তবে এটি ধীরে ধীরে সংগঠিত হয়। ডায়াবেটিসের ফলে ওজন হ্রাস পায়, পলিরিয়া, পেরিফেরাল নিউরোপ্যাথি ইত্যাদি দেখা দিতে শুরু করে। তবে ডায়াবেটিসের সাথে সম্পর্কিত অতি সচরাচর দৃষ্ট্য একটি সমস্যা হচ্ছে যৌন অক্ষমতা।


ডায়াবেটিস জনিত যৌন অক্ষমতায় প্রধানত পুরুষের লিঙ্গ যৌনমিলনের জন্য প্রয়োজনীয় মাত্রায় দৃঢ় হতে পারেনা। যেসকল পুরুষের ডায়াবেটিস আছে তাদের যৌনঅক্ষমতার সম্ভাবনা – যে সকল পুরুষের ডায়াবেটিস নেই তাদের তুলনায় তিনগুন বেশি। গবেষনায় দেখা গেছে ৩৫ থেকে ৭৫ ভাগ ডায়াবেটিসের পুরুষ রোগী যেকোন মাত্রায় (কম/মাঝারী/প্রকট) যৌন সমস্যার সম্মুখিন হন। যদি আপনার ডায়াবেটিস থাকে তাহলে রক্তের অতিরিক্ত মাত্রায় সুগার অবশ্যই নিয়ন্ত্রনে রাখতে হাবে, কারন বাড়তি সুগার যৌন উত্তেজনার সাথে সম্পর্কিত রক্তপ্রবাহী নালী এবং স্নায়ু অকেজো করে দেয়। …

খারাপ বৈবাহিক সম্পর্ক আপনাকে সহজেই অসুস্থ্য করে তুলতে পারে !

ডিবরা উম্বারসন যিনি ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক তার এবং তার অন্য সহযোগী অধ্যাপকগনের জার্নাল অব সোস্যাল বিহেভিয়র এ প্রকাশিত এক গবেষনায় দেখা গেছে শক্তিশালী সামাজিক বন্ধনের সাথে সুস্বাস্থ্যের অনেক সংযুক্তি রয়েছে। ভাল স্বাস্থ্যের জন্য বিবাহ হচ্ছে সবছে ভাল সামাজিক আত্মীয়তার বন্ধন। বিবাহের সাথে শাররীক সুস্থ্যতা নির্ভর করার মানে এটা নয় যে, অবিবাহিত থাকার চেয়ে বিবাহ করা উত্তম। শুধুমাত্র বিবাহ ভাল স্বাস্থ্যের নিয়ামক নয় – এর জন্য অবশ্যই স্বামী-স্ত্রীর সু-সম্পর্ক জরুরী।

উম্বারসন এবং তার দল ১,০৪৯ জন বিবাহিত যুগলের ব্যাক্তিগত জীবনের তথ্য সংগ্রহ করেন ১৯৮৬, ১৯৮৯ এবং ১৯৯৪ সালে। অংশগ্রহনকারীগন তাদের স্বস্থ্য এবং বিবাহিত জীবনের মান এর বিস্তারিত তথ্য প্রদান করেন। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তারা বলেন, “বিবাহিতদের মাঝে – দূর্দশাগ্রস্ত সম্পর্কের মানুষের স্বাস্থ্য সুসম্পর্কযুক্ত যুগলের তুলনায় খারাপ। গবেষনার ফলাফলে আরো বলা হয় – খারাপ সর্ম্পকের বিবাহিত যুগলের স্বাস্থ্য ঝুকি ডিভোর্সড যুগলের চেয়ে অনেক মাত্রায় বেশি; বিশেষ করে বৃদ্ধ বয়সে।” বৈবাহিক মান এর সাধারন জ্ঞানমুলক প্রশ্নমালা …

সানস্ক্রিন, টুথপেস্ট ও সাবান পুরুষের বন্ধ্যাত্বের জন্য দায়ী !!

এ বিষয়টি জানা সকলেরই দরকার তাই জাতীয় দৈনিক থেকে হুবহু জনসাধারণের সচেতনতার জন্য তুলে ধরা হলো। সুস্থ এবং পরিপাটি জীবনযাপনের জন্য টুথপেস্ট থেকে শুরু করে সানস্ক্রিন ও সাবানের কোনো বিকল্প আছে বলে মনে হয় না। কিন্তু এসব প্রসাধনসামগ্রী আপনাকে শুধুই কি পরিচ্ছন্ন-পরিপাটি রাখে? নাকি ভেতরে ভেতরে ক্ষতি করছে? ভাবছেন টুথপেস্টের মতো প্রয়োজনীয় প্রসাধনসামগ্রীতে আবার ক্ষতির কী আছে? এমনটা ভাবলে ভুল করবেন। বিশেষ করে পুরুষদের এমনটা ভাবাই যাবে না। টুথপেস্ট, সানস্ক্রিন ও সাবানের মতো প্রসাধনসামগ্রীগুলো অজান্তেই কিন্তু পুরুষদের বন্ধ্যাত্বের জন্য অনেকটা দায়ী। গালগল্প নয়, অনেক ঘেঁটেঘুঁটে এমন তথ্য দিয়েছেন গবেষকেরা।


একটি ইউরোপীয় সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণাপত্র উদ্ধৃত করে আজ সোমবার দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট-এর এক খবরে বলা হয়, প্রসাধনী ব্যবহারে পুরুষদের খুব সাবধান হওয়া দরকার। জার্মানির বন শহরের টিমো স্ট্রাঙ্কার অব দ্য সেন্টার অব অ্যাডভান্স ইউরোপিয়ান স্টাডিজ অ্যান্ড রিসার্চের দ্য ইএমবিও সাময়িকীতে ওই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব প্রসাধনসামগ্রী প্রস্তুতের সময় নন-টক্সিক রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করা হয়, যা শ…

যৌনতায় আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠুন - নারীদের জন্য বিশেষ টিপস

আমাদের সমাজে অনেক নারীই তাদের যৌনতার বিষয়টি পুরুপুরি পুরুষের উপর ছেড়ে দেন যেন এতে তাদের কোনো ভূমিকাই নেই। অথচ যৌন মিলনের বিষয়টি একজন পুরুষ আর একজন নারীর দুটি আত্মার সংমিলন। এখানে দু'জনেরই ভুমিকা রয়েছে কারণ এটা একার কোনো বিষয় নয়। তাই নারীদেরও হয়ে উঠা উচিত যৌন সচেতন এবং আত্মবিশ্বাসী। তার জন্য রয়েছে কিছু টিপস এবং ট্রিকস।

সুন্দর অন্তঃবাস ব্যবহার করুন :- আমাদের দেশের মেয়রা অন্তঃবাসকে অত একটা গুরত্ব দেয়না। বেশিরভাগ নারী মনে করে এটাতো জামা/শাড়ীর নিচে থাকবে অতএব বেশি টাকা দিয়ে সুন্দর ব্রা/আন্ডার গার্মেন্টস খরিদ করার দরকার কি? মাঝে মাঝে লক্ষ্য করা যায় হলুদ জামার নিচে কেউ কালো অন্তঃবাস পরে বেরিয়ে পড়েছেন যা সহজেই অন্যের চোখে দৃশ্যমান হয়ে একটি অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করছে। এবার আসুন ঘরে! স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে বাহ্যিক পরিদেয় কাপড়ের সাথে সাথে অন্তঃবাসের গুরত্ব অপরিসীম। একজন নারীর অন্তঃবাস হতে পারে তার স্বামীর “টার্ন অন সুইচ”। নারী অনুভতির অনুরননে ব্যকুল হলেও পুরুষ ভিজ্যুয়ালাইজেশানে বেশি কর্মঠ। নারীদের বলে রাখি – মিলনের প্রস্তুতি হিসেবে নিজ থেকে কাপড় খুলে বসে থাকবেন না। আপনার …

সেক্স বা যৌন মিলনে নারীদের অনীহার কারণ ও মুক্তির উপায়

বিবাহিত নারীরা অনেক সময় স্বামীর সুবিধা অসুবিধা নিয়ে যেমন চিন্তিত থাকে পাশাপাশি অনেকেই তাদের শুরু হওয়া যৌন জীবন নিয়েও এমন কিছু ঝামেলায় পড়েন যা আগে হয়ত ভাবেননি হতে পারে। জেনে অবাক হবেন যে নব্য বিবাহিত মেয়েদের মধ্যেও সেক্স এ অনীহা থাকতে পারে। আর যারা দীর্ঘ দিন সংসার করছেন তাদের তো আছেই।


স্বামীর সন্তুষ্টির জন্যে অনেকেই মনের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন মিলনে বাধ্য হন । আবার অনেক স্বামীই স্ত্রীর এহেন অনীহা দেখে বিরক্তও হন । বন্ধুদের কাছে তাদের সংসারের অনেক গল্প শুনে স্ত্রীর প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলেন । যদিও সেক্সটাই একটি সম্পর্কের একমাত্র বন্ধন নয় , তবুও স্বামী স্ত্রীর আত্মার মিলনের জন্যেই এর ভূমিকা অপরিসীম । আজ আমি সেক্স এ অনীহার কারণ ও মুক্তির কিছু উপায় নিয়ে আলোচনা করে আপনাদের সাহায্য করতে চেষ্টা করব। প্রথমেই জেনে নিন কারণ গুলো :- সাইকোলজির ভাষায় বলতে গেলে , অনেক পুরুষ ও নারী আছেন যারা যৌন মিলনে একেবারেই উৎসাহ অনুভব করেন না । একে বলে এভারসন , আর যারা কম অনুভব করেন তাদের এই সমস্যা কে বলে হাইপোভারসন । এগুলো হচ্ছে সাইকো সেক্সুয়াল সমস্যা। তাদের অবশ্যই সাইকিয়াট্রির ডাক্তারের সাথে পরামর্…

নারীর যৌনাঙ্গের জি-স্পট - আসুন জেনে নেই বিস্তারিত

নারী দেহের জি-স্পটের নাম হয়ত আমরা অনেকেই শুনেছি। কিন্তু বিষয়টা কি এ সম্পর্কে হয়ত আমরা অনেকেই জানি না। "জি-স্পট" রহস্য বিজ্ঞানীদের কাছে এখনো সম্পুর্ন বোধগম্য নয়। তাই আমি যা করতে পারি তা হচ্ছে থিওরি দেয়া – যার মাধ্যমে আপিনি আবিষ্কার করতে পারেন "জি-স্পট" এর অবস্থান, কিভাবে এটি খুজে পাওয়া যাবে এবং "জি-স্পট" দিয়ে কি করবেন?

ইতিহাস কি বলে ? ‘জি’ অক্ষরটি ‘গ্রাফিনবার্গ’ শব্দের আদ্যক্ষর। গ্রাফিনবার্গ হচ্ছেন একজন গাইনোকলজিষ্ট যিনি ১৯৫০ সালে প্রথম ‘ইউরেথ্রার সাথে যোনী পথে মিলনের সময় যৌন উত্তেজনার সম্পর্ক’ নিয়ে কলাম লিখেন। ‘জি-স্পট’ নিয়ে পরবর্তীকালে ব্যাভারিল হুইপলি এবং জন পিরি নামক দুইজন বিজ্ঞানী বিশদ গবেষনা করেন। গ্রাফিনবার্গের কলাম চাপার ৩০ বছর পর এই বিজ্ঞানীদয় গ্রাফিনবার্গের নামানুসারে ‘জি-স্পট’ নামকরন করেন।
'জি-স্পট' কি ? ইউরেথ্রার (তলপেটের ঠিক পরে যোনীর ছিদ্রের উপরিভাগে গোলাপি রঙের ভাজ করা অংশ) ভিতর অতিসংবেদনশীল কোষ দ্বারা আবৃত ছোট্র একটি অঞ্চল হচ্ছে ‘জি-স্পট’। নারীর জি-স্পট যৌনাঙ্গের সর্বচ্চ ৫ সেঃমিঃ ভিতরে অবস্থিত। অনেক মহিলা মনে করেন জি-স্পট বলে বিশেষ …

বিয়ের পূর্বে যে কাজ গুলো করে নেয়া ভালো !!

বিবাহ বন্ধনের মাধ্যমে একজন নারী এবং একজন পুরুষের মধ্যে অবিচ্ছেদ্য এক সামাজিক সম্পর্ক সৃষ্টি হয়। আর এক সময় এই সম্পর্কের মাধ্যমেই নারী ও পুরুষের ঔরসজাত হয়ে পৃথিবীর মুখ দেখে নতুন প্রজন্ম। তাই বিয়ের আগে বর এবং কনে উভয়কেই কিছু ডাক্তারি পরীক্ষা করিয়ে নিলে সেটা তাদের এবং আগামী ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্যও বেশ মঙ্গল জনক হয়ে থাকে। তার জন্য কি কি করা যেতে পারে এবং তাতে কি পরিমান উপকার নিহিত রয়েছে - আসুন এ বিষয়ে বিস্তারিত দেখি।


বিয়ের পূর্বে প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা :- একথা আমরা সকলেই জানি যে, অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ে করার ফলে স্বামী-স্ত্রী দুজনের স্বাস্থ্যেই এর বিরূপ প্রভাব পড়ে। যা পরবর্তীতে সন্তানের ওপরও পড়ে। তাই বিয়ে করার পূর্বে স্বামী-স্ত্রী দুজনেরই বয়স ভালো করে যাচাই করে নেওয়া দরকার। মেয়েদের ক্ষেত্রে নিয়মিত মাসিক হওয়া, হেপাটাইটিস সহ অন্যান্য সব ধরনের টিকা দেওয়া আছে কিনা এবং পুরুষদের ক্ষেত্রে বিড়ি-সিগারেট, মদ ও অন্যান্য নেশাজাতীয় খাদ্য খাওয়ার অভ্যাস আছে কিনা তা আগে থেকেই জেনে নেয়া দরকার। এসব ক্ষেত্রে কোনো প্রকার ত্রুটি-বিচ্যুতি হলে তা পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি ও এর কুফল পরবর্তী প্রজন্মের উপরও পড়ে। এছাড়া…

নারীদের যে গুনাবলী পুরুষদের মোহিত করে তুলে

প্রতিটি পুরুষই চায় তার সঙ্গীনি হবে খুব রূপসী এবং আকর্ষণীয়। আর নারীর কিছু আলাদা গুনাবলী রয়েছে যা একজন পুরুষকে তার দিকে আকৃষ্ট করার জন্য যথেষ্টই বলা চলে। চলুন জানা যাক পুরুষদের মোহিত করা নারীদের সেই সব গুনগুলি কি কি ?

সুগন্ধী :-  নারীর শরীরের মিষ্টি সুগন্ধ পুরুষের মনে নেশা ধরিয়ে দেয়। এটি বাধ্যতামুলন নয় যে নারীকে কোন একটি পারফিউম ব্যবহার করতেই হবে; নারীর শরীরে প্রাকৃতিক ভাবে যে গন্ধ থাকে তা পুরুষ বধে একধরনের প্রাকৃতিক অস্ত্র।
লম্বা পা :- বেশিরভাগ পুরুষ সুঠাম লম্বা পা এর নারীকে সুন্দরী নারী মনে করে থাকে। সম্প্রতি টুইটারে চালানো জরিপে এই ফলাফল পাওয়া গেছে। হাই হিল :- নারীর হাই-হিল অনেক পুরুষের জন্য আরো একটি আকর্ষণ। অনেক পুরুষকেই দেখা যায় নারীর সুন্দর পা তথা সুন্দর জুতা যুক্ত পা পছন্দ করে থাকে। 
শক্তিশালী ধর্মীয় বিশ্বাস :- নারী কতটা ধার্মিক তার ছেয়ে সে ধর্মিয় অনুভুতি সম্পর্কে কতটা আস্থাশীল তার উপর একজন পুরুষের ওই নারীর প্রতি ভালোগার মাত্রা নির্ভর করে। 
আত্মবিশ্বাস :- পুরুষকে আকৃষ্ট করতে নারীর আত্মবিশ্বাসের বিকল্প নেই। যে নারী তার সৌন্দর্য্য এবং ব্যাক্তিত্ব নিয়ে আত্মবিশ্বাসী পুরুষ তাকে ততটা বেশি…

বিয়ের প্রস্তাব: ইসলামের দৃষ্টিতে করণীয় এবং বর্জনীয়

সবার জীবনেই আসে বিয়ের ঘটনা। আর বিয়ের আগে আসে কনে দেখার পর্ব। ইসলাম শুধু নামায-রোযার নয়; ইসলাম একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন ব্যবস্থা। তাই এখানে সালাত-সিয়ামের সঙ্গে সঙ্গে বিয়ে-শাদীর আমলও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আজকাল মসজিদে আমরা মুসলিম পরিচয় বজায় রাখি; কিন্তু বিয়ে-শাদীতে কেন যেন ইসলাম পরিপন্থী কাজই বেশি করি। বিয়ে-শাদীর আগে যেহেতু কনে দেখার পর্ব তাই আগে বিয়ের প্রস্তাব বা কনে দেখা সংক্রান্ত ইসলামী নির্দেশনাগুলো আগে তুলে ধরার প্রয়াস পাচ্ছি এ নিবন্ধে। আল্লাহ আমাদের সহায় হোন।

শরীয়তে বিবাহ বলতে কী বুঝায় :- নারী-পুরুষ একে অপর থেকে উপকৃত হওয়া এবং আদর্শ পরিবার ও নিরাপদ সমাজ গড়ার উদ্দেশ্যে পরস্পর চুক্তিবদ্ধ হওয়া। এ সংজ্ঞা থেকে আমরা অনুধাবন করতে পারি, বিবাহের উদ্দেশ্য কেবল ভোগ নয়; বরং এর সঙ্গে আদর্শ পরিবার ও আলোকিত সমাজ গড়ার অভিপ্রায়ও জড়িত। বিবাহের তাৎপর্য :- বিবাহ একটি বৈধ ও প্রশংসনীয় কাজ। প্রত্যেক সামর্থ্যবান ব্যক্তির ক্ষেত্রেই এর যার গুরুত্ব অপরিসীম। বিয়ে করা নবী-রাসূলদের (আলাইহুমুস সালাম) সুন্নাত। আল্লাহ তা‘আলা ইরশাদ করেন, وَلَقَدْ أَرْسَلْنَا رُسُلًا مِنْ قَبْلِكَ وَجَعَلْنَا لَهُمْ أ…

দীর্ঘস্থায়ী এবং সুখী দাম্পত্য জীবন হবে আপনার - মেনে চলুন কয়েকটি বিষয় !

সম্প্রতি টাইমস অব ইনডিয়ার এক প্রতিবেদনে বিশেষজ্ঞরা দীর্ঘস্থায়ী এবং সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য বেশ কয়েকটি বিষয়ের কথা তুলে ধরেছেন। কারণ আধুনিকতার ছোয়ায় আজ 'দীর্ঘস্থায়ী দাম্পত্য জীবন' কথাটি এখন একটি অবাস্তব বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বব্যাপী বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা রীতিমতো বেড়েই চলেছে। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যকার কোনও দ্বন্দ্ব সমাধানের সহজ উপায় হয়ে দাঁড়িয়েছে একে অন্যকে ত্যাগ করা।

এভাবে অতিরিক্ত বিবাহ বিচ্ছেদের ফলে বিপাকে পড়ছে তাদের সন্তানেরা। তাদের সামাজিক ও মানসিক বিকাশ ঠিকমতো হচ্ছে না। তবে এমনটি না করে স্বামী-স্ত্রী উভয়ই যদি কিছু নিয়মকানুন মেনে চলেন তাহলে দাম্পত্য জীবন দীর্ঘস্থায়ী করা সম্ভব।
ছাড় দিতে শেখা :-  অনেকে মনে করেন, অন্যকে ছাড় দেয়া মানে নিজের দুর্বলতা প্রকাশ করা। কিন্তু বিষয়টি মোটেও ঠিক নয়। একে অন্যকে ছাড় দিয়ে চললে তাদের মধ্যকার সম্পর্ক আরও বেশি মজবুত হয় ও দাম্পত্য জীবন সুখের হয়।
একে অপরকে সম্মান দেয়া :-  স্বামী-স্ত্রীর প্রত্যেকেরই উচিত একে অপরকে সম্মান দিয়ে কথা বলা। সঙ্গীর সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধা দেখানো। তার কোনও সিদ্ধান্ত আপনার পছন্দ নাও হতে পারে তবে তাকে তা নিয়ে এমনভাবে কোনও ক…

তরুণ-যুবকদের পর্নোগ্রাফি আসক্তি যৌন জীবনে বিপর্যয়ের কারণ !

আমাদের এই আধুনিক যুগে ইন্টারনেটের প্রভাবে বর্তমানে পর্নোগ্রাফি তরুণ-যুবকদের কাছে আগের তুলনায় অনেক সহজলভ্য হয়ে গেছে। আগের মতো তা বিরল কোনো বিষয় নয়। আর তা তরুণদের মানসিকতাকে প্রভাবিত করছে ভয়ংকর ভাবে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টেলিগ্রাফ।

গবেষণায় দেখা গেছে, অনেকে ১১ বছর বয়স থেকেই পর্নোগ্রাফিতে অভ্যস্ত হয়ে গেছে। ফলে পর্নোগ্রাফি সহজলভ্য হওয়ার আগে তরুণরা যেমন বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ বোধ করত এখন তার ধরন পরিবর্তিত হয়েছে। অনেকেই অনলাইনে ছবি ও ভিডিও দেখে অভ্যস্ত হয়ে গেছে। এবং তাতেই আকর্ষণবোধ করে। ফলে বাস্তবে সত্যিকার নারীদের প্রতি আকর্ষণবোধ সেভাবে থাকে না।
গবেষকরা জানিয়েছেন, কম্পিউটার বা বিভিন্ন ডিভাইসের এ ভিডিও কিংবা ছবির মাধ্যমে যৌনতায় অভ্যস্ত হওয়ায় তা তাদের মস্তিষ্কে প্রভাব বিস্তার করে। ফলে প্রভাবিত হয় তাদের বাস্তব জীবনে সম্পর্ক গড়ে তোলার ক্ষেত্রেও। সাইকোথেরাপিস্ট ও যৌন শিক্ষা বিশেষজ্ঞ পউলা হল বলেন, তিনি বেশ কিছু তরুণের দেখা পেয়েছেন, যারা অনলাইন থেকেই খুঁজে নিয়েছে যৌনতা। ফলে তাদের বয়স ২০ থেকে ৩০-এর মধ্যে থাকলেও কখনো বাস্তব জীবনে যৌনতার অভিজ্ঞতা পায়নি। এমনকি তারা এটি করার উপায়ও জানে …

চল্লিশোর্ধ পুরুষদের শুক্রাণু থেকেই গর্ভধারণের সম্ভাবনা বেশি

পুরুষদের বয়স বাড়লে সন্তান উত্পাদন ক্ষমতা কি করতে থাকে ? এই ধারণাটাই আজ ভুল প্রমাণিত করল বৃটেনের এক দল বিজ্ঞানীদের নতুন গবেষনা। এই গবেষনায় দেখা গেছে চল্লিশোর্ধ দাতাদের শুক্রানু থেকে সন্তান উত্পাদনের সম্ভাবনা অনেক বেশি হয়। অর্থাৎ, শুক্রানু দাতা যদি মধ্যবয়সী পুরুষ হন তবে মহিলাদের গর্ভধারণের সম্ভাবনা থাকে বেশি।

ইউকে-র নতুন গাইডলাইনে বলা হয়েছিল শুক্রাণু দাতার বয়স হতে হবে চল্লিশের নিচে। কিন্তু, সমীক্ষা বলছে চল্লিশোর্ধ দাতারাই বেশি সক্ষম। ১৯৯১ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত মোট ৪০,৪০০টি ইউভিএফ চিকিত্সা পদ্ধতির ওপর সমীক্ষা চালানো হয়েছিল। দেখা গিয়েছে ২০ বছরের নিচে শুক্রাণুদাতাদের থেকে ইউভিএফ পদ্ধতিতে গর্ভধারণ যেখানে সম্ভব হয়েছে ২৮.৩ শতাংশ, সেখানে ৪১ থেকে ৪৫ বছর বয়স্ক দাতাদের শুক্রাণু থেকে ইউভিএফ পদ্ধতিতে গর্ভধারণ সফল হয়েছে ৩০.৪ শতাংশ ক্ষেত্রে।
নিউক্যাসল ফার্টিলিটি সেন্টার অ্যাট লাইফের চিকিত্সক মীনাক্ষি চৌধুরী জানালেন, "বয়সের সঙ্গে শুক্রাণুর ক্ষমতা কমার কোনও সম্পর্ক নেই। এটা নির্ভর করে শুক্রাণুর মানের ওপর।"

বিবাহিত জীবনে নারীদের যৌনতায় একঘেয়েমি কাটানোর উপায়

বিবাহিত জীবনে অনেকেরই একটা পর্যায়ে যৌনতার ক্ষেত্রে একঘেয়েমি আসতে পারে। তবে এই একঘেয়েমি কাটানোর কার্যকর একটি উপায় সম্প্রতি জানা গেছে এক গবেষনার ফলাফলে। আর তা হলো ‘ভালোবাসা।’ বিশেষ করে নারীদের যৌনতায় একঘেয়েমি কাটাতে এটি কার্যকর।
সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে, যেসব নারী যৌনতার ক্ষেত্রে একঘেয়েমিতে ভোগেন তাদের ‘ভালোবাসার দাওয়াই’ এ একঘেয়েমি কাটাতে সহায়তা করে। এ ছাড়াও যৌনজীবনের আনন্দ বাড়াতে সহায়তা করবে এ দাওয়াই। যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটির অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর বেথ মন্টেমুরো বলেন, ‘আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা যৌনতা ও ভালোবাসা একসঙ্গে সংযুক্ত করলে যৌনতার ক্ষেত্রে ভালো সুফল লাভ করে।’ এ গবেষণায় ২০ থেকে ৬৮ বছর বয়সি ৯৫ জন নারীর ইন্টারভিউ নেওয়া হয়েছে। তাদের অধিকাংশই জানিয়েছেন যৌন সম্পর্ক ও বিয়ের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ তৃপ্তি আসে যখন তার সঙ্গে যোগ হয় ভালোবাসা। গবেষণায় উঠে এসেছে যৌন সঙ্গীর সঙ্গে ভালোবাসার বিষয়টি শুধু আবেগগত নয়। এর সঙ্গে জড়িত আছে যৌন পরিতৃপ্তির বিষয়টিও। ভালোবাসা এক্ষেত্রে যৌন পরিতৃপ্তির জন্য প্রয়োজনীয়।

যৌন এবং পর্নো আসক্তির মানসিকতা মাদকাক্তির মতোই - কি বলছেন গবেষকেরা ?

সম্প্রতি প্রকাশিত এক গবেষণায় এমনই তথ্য পাওয়া গেছে যে - যৌন আসক্তিদের মানসিকতা মাদকাসক্তদের মতোই।যদিও, এ বিষয়ে এখনও বিবাদ রয়েছে। আদৌ কি, যে মানুষদের পর্নো ফিল্ম দেখার নেশা হয়েছে তাদের মানসিকতা একজন চেন স্মোকারের মতোই?

ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা প্রায় ১৯ জন মানুষের মস্কিষ্কের গবেষণা করছেন। যারা পর্নো ফিল্ম নিয়মিত দেখেন। এই গবেষণায় দেখা গেছে, পর্নো ফিল্ম দেখার সময় মস্কিষ্কের সেই অংশই সক্রিয় হয় যা মাদকের নেশাগ্রস্ত ব্যক্তির পছন্দের মাদক দেখলে হয়। গবেষণায় এমন দু’জন রয়েছেন যারা কাজের সময় পর্নো ফিল্ম দেখছিলেন বলেই তাদের চাকরি ছাড়তে হয়েছে।
ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডক্টর বেলেরি বুন জানিয়েছেন, এটি এই বিষয়ের উপর প্রথম গবেষণা। ফলাফলের উপর ভিত্তি করে এটা এখনও বলা সম্ভব নয় যে, একে যৌনতার নেশা বলা যায় কিনা। তিনি জানান, একজন ব্যক্তি যত কম বয়সে নেশাজাতীয় পদার্থের ব্যবহার শুরু করেন, তার ক্ষেত্রে নেশাগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি।
পর্নোগ্রাফির নেশা থেকে মুক্তির উপায়(ভিডিওটি দেখুন ) অ্যাসোসিয়েশন ফর ট্রিটমেন্ট অফ সেক্স অ্যডিকশন অ্যান্ড কম্পলসিভিটি’র পলা হাল জানিয়েছে…

পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব দূর করতে কৃত্রিম শুক্রাণু - কি বলছেন বৈজ্ঞানিকরা

সম্প্রতি ফ্যাসেব জার্নালে পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব দূর করা প্রসঙ্গে  বৈজ্ঞানিকরা একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করছেন৷ তারা একটি বিশেষ প্রোটিনের সন্ধান পেয়েছেন যা পুরুষদের মধ্যে বন্ধ্যাত্বের সমস্যা দূর করতে অবদান রাখবে বলে তারা দাবি করছেন। বৈজ্ঞানিকরা ঐ প্রোটিনের সাহায্যে এমন শুক্রাণু তৈরি করার দাবি করেছেন যার সাহায্যে বন্ধ্যাত্ব দূর করা সম্ভব৷

সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরের মাধ্যমে জানা গেছে, ক্বীন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা পিএডব্লুপি নামের প্রোটিনের সাহায্যে শুক্রাণু তৈরিতে সফলতা পেয়েছেন৷ প্রধান গবেষক ডা. রিচার্ড ঔকো জানিয়েছেন, পিএডব্লু প্রোটিনে অতিরিক্ত ক্ষমতা রয়েছে যার ফলে এর থেকে তৈরি সিন্থেটিক শুক্রাণুও প্রজনন স্থিতি তৈরি করতে সক্ষম৷ ফ্রান্সের একটি গবেষণায় দেখা গেছে পুরুষদের মধ্যে বন্ধ্যাত্বের সমস্যা দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ এতে দেখা গেছে প্রতি ছয়জন দম্পতির মধ্যে একজন দম্পতি বীর্ষের গুনগত মানের কারণে বন্ধ্যাত্বের শিকার হয়েছেন৷ এমন অবস্থায় এই গবেষণা বন্ধ্যাত্বের চিকিৎসার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক৷
এতদিন পর্যন্ত বন্ধ্যাত্ব রোধ করার জন্য আইভিএফ (টেস্ট টিউব বেবি) সম্পর্তিক প্রয়োগ…

ছেলেদের প্যারাফিলিয়া বা (যৌন) সেক্সুয়াল ডিসঅর্ডারে করণীয় কি ?

প্রশ্ন :  আমার নাম অভিজিত সরকার, বয়স ২৩৷ বাড়িতে শুধু মা এবং আমি থাকি৷ কিছুদিন আগে সদ্য বিবাহিত এক দম্পতি পেয়িংগেস্ট হিসেবে এসেছে৷ একদিন রাতে পাশের ঘরে গিয়ে মেয়েটির শাড়ি, ব্লাউজ, ইনার ওয়্যার শুকোতে দেওয়া অবস্থায় দেখে আমি সেগুলো হঠাত্‍ পড়ে ফেলি৷ অসাধারণ সেনসেশন হয়৷ তারপর মাঝে মধ্যেই পড়তে থাকি৷ কিন্ত্ত হঠাত্‍ মেয়েটির চোখে পড়ে যাই৷ তারপর থেকেই সে আমাকে দেখলে মুখ টিপে হাসে এবং একদিন জানায় সে আমার পরার জন্য ওই ঘরে আরও ভালো শাড়ি রেখে দেবে৷ মেয়েটিকে কিভাবে ফেস করব? আমার হঠাত্‍ কেন ওর জামাকাপড় পরে ভালো লাগছে? সব ছেলেদেরই কি এরকম হয় ?

উত্তর: না সব ছেলেদেরই এরকম হয় না, তবে কারওর কারওর তো নিশ্চয়ই হয়৷ আপনার সেক্সুয়াল ফ্যান্টাসি, অ্যারাউজাল ও মাস্টারবেশনের প্যাটার্ন জানতে পারলে আরও নিশ্চিতভাবে ডায়াগনোসিস করা যেত৷ আমার মনে হয় আপনার ট্রান্সভেস্টিক ফেটিশিজম আছে৷ এটি একধরণের প্যারাফিলিয়া অর্থাত্‍ সেক্সুয়াল ডিসঅর্ডার৷ আপনি হয়তো আগে এটা এক্সপেরিয়েন্স করেননি, কারণ সঠিক সুযোগের অভাব৷ এই মেয়েটির মেলে রাখা ইনার ওয়্যার আপনার ক্ষেত্রে অনসেট অফ বির্ভোভয়ারের কাজ করেছে৷  এই প্যারাফিলিয়া শৈশব বা কিশোর বয়স থেকেই অন…

যৌন জীবন ধ্বংসকারী পর্ণগ্রাফের ভয়াল থাবা থেকে বাঁচার উপায়

বিজ্ঞানের চরম উকৎর্ষতার এই যুগে বেশীর ভাগ শিক্ষিত মানুষ যারা কম্পিউটার ও ইন্টারনেট নিয়ে কাজ করেন, যারা আইটি পেশাজীবি বা তরুণ সমাজ, যারা প্রতিনিয়ত নানান তথ্য ও গবেষণার জন্য ইন্টারনেটের উপর নির্ভরশীল তাদের কাছে ইন্টারনেট আজ এক প্রাত্যহিক অনুসঙ্গ। আজকের ডিজিটাল সভ্যতায় ইন্টারনেট যেমন হাজার তথ্যাবলী থেকে শুরু করে নানান রকমের বিনোদন, যেকোন প্রশ্ন ও জ্ঞান জিজ্ঞাসার সমাধান দিচ্ছে তেমনি দিচ্ছে অবাধ পর্ণোগ্রাফের সুবিধাও। বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহার করে অথচ পর্ণোগ্রাফ নজর এড়িয়ে গেছে তেমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবেনা।

ইন্টারনেটে ঢুকলেই হাতের কাছে পাওয়া এসব সুবিধা কম বেশী সবারই দৃষ্টি কাড়ছে। ইচ্ছা না থাকলেও যে কারো দৃষ্টি ক্ষণিকের জন্য হলেও থমকে যায়। তা ব্যবহারকারী যদি হয় বয়েসে তরুণ বা ছাত্র আর একাকী ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ থাকে তাহলে তো কথাই নেই। যখন তখন ইন্টারনেটে ঢুকে বিভিন্ন স্বাদ-রুচির পর্ণপ্রাফ ছবি ও মুভি দেখার অবাধ সুযোগ তাদের রয়েছেই। কম বয়েসী ছেলে মেয়েরা একবার তাতে অভ্যস্ত হয়ে গেলে, তার পুরো জীবনের ওপর সেটা প্রভাব ফেলতে বাধ্য। এ বিষয়ে অভিভাবক, সমাজকর্মী ও গবেষকরা কী ভাবছেন? …

যে খাবার গুলো নারী-পুরুষের যৌনাকাঙ্ক্ষা কমিয়ে দেয় !!

আপনারা অবশ্যই জানেন নারী পুরুষের যৌনতার বিষয়টি সরাসরি স্বাস্থের উপর নির্ভর করে। বিশেষ করে পুরুষের স্থায়িত্বের বিষয়টি তার ইচ্ছা বা অনিচ্ছার উপর নির্ভর করে না। শারীরিক সক্ষমতার উপর নির্ভর করে থাকে। তাই দৈনন্দিন খাবার দাবার পুরুষ এবং মহিলা দু'জনেরই যৌনাকাঙ্ক্ষার উপর অত্যধিক প্রভাব ফেলে। বিশেষ করে কিছু কিছু খাদ্য উপাদান রয়েছে যেগুলো অকালেই আমাদের শরীরকে মলিন করে দেয়। এমন খাদ্যগুলো সম্পর্কে ধারনা থাকা প্রয়োজন।

মিষ্টি পানীয় :- মিষ্টি জাতীয় যেকোনো পানি পানে শুধুমাত্র ক্যাভেটি, স্থূলতা এবং ডায়াবেটিসের মতো রোগ হয়, এমনটি নয়। মিষ্টি জাতীয় পানীয় অধিক পানে মানুষের স্বাভাবিক যৌন চাহিদাও হ্রাস পায়।
পনির :- সাধারনত বাজারে যেসব পনির বিক্রি হয় সেগুলো গরুর দুধ থেকে তৈরি। প্রক্রিয়াজাতকরন খাদ্য বেশি মাত্রায় গ্রহনে শরীরে টক্সিনের হার বেড়ে যায় এবং যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধি করে এমন হরমন হ্রাস করে। প্রক্রিয়াকরণ মিষ্টান্ন :- প্রক্রিয়াজাত করা মিষ্টান্ন শরীরের জন্যে কোনো ভাবেই সুখকর নয়। আপনি যদি স্থূলতা কমাতে চান তাহলে অবশ্যই খাদ্য তালিকা থেকে অতিরিক্ত মিষ্টি বাদ দিতে হবে। সেই সঙ্গে স্বাভাবিক যৌন চাহিদাও হ্রাস করে প…

আমার বিবাহ হয়েছে ১৬ মাস, আমার সমস্যা হচ্ছে, আমার ফিলিংস আসে কম এবং খুব তাড়াতাড়ি বীর্যপাত হয়।

সম্মানিত পাঠকের প্রশ্ন :- ভাই, আমার বিবাহ হয়েছে ১৬ মাস, আমার সমস্যা হচ্ছে, আমার ফিলিংস আসে কম এবং খুব তাড়াতাড়ি বীর্যপাত হয়। আমার বয়স ৩২ বছর। উচ্চতা ৫'৫"। ওজন ৬৭ কেজি। বিয়ের পুরবে হস্তমৈথুন এর অভভাস ছিল। আর কোন ধরনের বাজে অভ্যাস নেই। সমাধান সম্ভব কিনা? আর কতদিন এ ভালো হতে পারে। আমি এলোপ্যাথি চিকিৎসা নিয়েছি। ওষুধ যতদিন খাই মোটামুটি কাজ হয়। বন্ধ করলে কাজ হয়না।
আমাদের ফেইসবুক পাতায় প্রশ্নটি করেছিলেন আমাদের সম্মানিত একজন পাঠক ভাই। বিষয়টা নিয়ে এখানে লেখার কারণ হলো, এ সমস্যাটা আমাদের দেশে প্রায় সার্বজনীন অর্থাৎ আমাদের এই ভাই একাই শুধু এ রকম সমস্যায় আক্রান্ত নন। ওনাকে অনেক ধন্যবাদ কমেন্টটি করার জন্য। আর আমি আশা করি ওনার কমেন্টটির জন্য আরো লাখ লাখ তরুণ উপকৃত হবেন।
উত্তর :- ধন্যবাদ আমার ভাই, কমেন্টটি করার জন্য। আপনাদের কাছে অনুরোধ মেহেরবানী করে আমাদের ব্লগের সবগুলি আর্টিকেল সময় করে একবার পড়ে নিবেন। তখন দেখবেন আপনাদের অনেকের সমস্যা এমনিতেই ঠিক হয়ে গেছে। আমার ভাই, আপনি যে সমস্যাটি নিয়ে লিখেছেন, আমরা বার বার বলে আসছি:- "যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য বিবাহিত পুরুষের কোনো প্রকার উত্তেজক ঔষধ খা…

সুখী দাম্পত্য জীবনের জন্য কার্যকর কিছু অভ্যাস রপ্ত করুন

দাম্পত্য সম্পর্ককে মধুর করে তুলতে চাইলে কিছু বিশেষ অভ্যাস রপ্ত করা প্রয়োজন। মাঝে মধ্যে নয়, বরং প্রতিদিনের জন্য। প্রতিদিন এই ছোট্ট কাজগুলো করার বিশেষ অভ্যাস দাম্পত্য সম্পর্কে ভালোবাসা বাড়িয়ে দেয় বহু গুন। সেই সঙ্গে সম্পর্কের প্রতি বিরক্তি দূর করে ফেলে খুব সহজেই। জেনে নিন স্বামী স্ত্রীর দাম্পত্য জীবন মধুর করে তোলার সেই বিশেষ অভ্যাসগুলো কি কি, আশা করি সেগুলো রপ্ত করে নেবেন প্রতিদিনের জন্য।
একই সময়ে ঘুমানো:- দিন শেষে ক্লান্ত শরীরে দুজনে ঘুমিয়ে পড়ুন একই সময়ে। সারাদিনের ছোটখাটো গল্প আর ভালোবাসার মিষ্টি মিষ্টি কথায় ঘুমানোর আগের সময়টা বেশ ভালো কাটবে দুজনের। এতে সম্পর্কটাও আরো মধুর হয়ে উঠবে।
একই ধরণের শখ:- আপনার সঙ্গীর শখ গুলোর প্রতি আগ্রহ দেখান। এতে আপনার সঙ্গীও আপনার শখ গুলোর প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠবেন। আপনার সঙ্গীর কোনো শখ যদি আপনার বিরক্তির কারণ হয়ে থাকে তাহলে সেটা তাকে বুঝতে দেবেন না। এতে সম্পর্কটা আরো সুন্দর হবে। সেই সঙ্গে কেটে যাবে সম্পর্কের একঘেয়েমি। হাত ধরে হাঁটা:- প্রেমের শুরুতে কিংবা বিয়ের পর পর হাত ধরেই হাঁটতেন দুজনে কারণ এ যেন অন্য রকম এক রোমান্টিকতা। কিন্তু কিছুদিন যাওয়ার পরই হাঁটতে শুর…