সর্বশেষ আপডেট
অপেক্ষা করুন...
মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬

ফলের রাজা যদি হয় আম, তবে সবজির রাজা অবশ্যই বলা উচিত টমেটোকে। টমেটো যেমন হার্টের সমস্যা দূরে রাখতে পারে তেমনই ডায়াবেটিস, কিডনির সমস্যা রুখতেও টমেটোর ভূমিকা অনস্বীকার্য। শুধু খাওয়ার প্লেটে নয়, রূপচর্চারও অন্যতম উপাদান টমেটো। জেনে নিন টমেটোর কিছু গুণ-

ক্যান্সার প্রতিরোধক টমেটো :- টমেটোর মধ্যে থাকা লাইকোপেন প্রস্টেট, কোলোরেকটাল বা পেটের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ায় সম্ভাবনা অনেক কমিয়ে দেয়। এই প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি রুখতে পারে। কাঁচা টমেটোর থেকেও বেশি উপকারী রান্না করা টমেটো। তাই যত পারুন টমেটো স্যুপ খান, রান্নাতেও ব্যবহার করুন টমেটো।

হার্টের দেখাশোনায় টমেটো :- টমেটোর মধ্যে থাকা ভিটামিন বি ও পটাশিয়াম রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে। তাই প্রতিদিনের ডায়েটে যদি টমেটো থাকে তাহলে হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক ও অন্যান্য হার্টের সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেকখানি কমে যায়।

কিডনি ভাল রাখতে টমেটো :- কিডনি সুস্থ রাখতে টমেটো খান বীজ ছাড়া।

ডায়বেটিসের ওষুধ টমেটো :- টমেটোর মধ্যে থাকা ক্রোমিয়াম ও অন্যান্য মিনারেল রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে।

হাড়ের সমস্যা সমাধানে টমেটো :- টমেটোর মধ্যে পর্যাপ্ত পরিমানে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন কে থাকে। টমেটো হাড়ের টিস্যু ঠিকঠাক রাখতে ও ছোটখাট সমস্যা দূর করতে তাই অপরিহার্য্য।

চোখের জন্য টমেটো :- চোখের দৃষ্টি উন্নত করতে টমেটোর ভূমিকা অপরিসীম। শিশুদের ডায়েটে তাই অবশ্যই রাখুন টমেটো।

ধুমপান থেকে ক্ষতি মেটাতে টমেটো :- ধুমপানের ফলে শরীরে যে ক্ষতি হয় তার প্রভাব কমাতে পারে টমেটোর মধ্যে থাকা কোমেরিক অ্যাসিড ও ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড।
টমেটোই সেরা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট :- মেটোতে প্রচুর পরিমানে থাকে ভিটামিন এ ও ভিটামিন সি। এই ভিটামিন ও বিটা ক্যারোটিন অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসেবে কাজ করে যা রক্তের ক্ষতিকারক রাসায়নিকের উপস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখে। রক্তে ভাসমান এইসব রাসায়নিক শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক। টমেটো যত লাল হবে তত বিটা ক্যারোটিনের পরিমান বেশি থাকবে। তবে রান্নার ফলে নষ্ট হয়ে যায় ভিটামিন সি, তাই যত পারেন কাঁচা টমেটো খান।

ত্বকের যত্নে টমেটো :- টমেটোর মধ্যে প্রচুর পরিমানে লাইকোপেন থাকে। যে কারণে অনেক ফেসিয়ালের মূল উপাদান থাকে টমেটো। ত্বকের কালো ছোপ যেমন দূর করে টমেটো, তেমনই ঔজ্জ্বল্যও বাড়ায়। যদি বাড়িতে টমেটো ব্যবহার করতে চান তবে ৮ থেকে ১২টা টমেটোর খোসা ছাড়িয়ে নিন। টমেটোর খোসা দিয়ে অন্তত ১০ মিনিট পুরো মুখ ঢেকে রাখুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। ত্বক পরিষ্কার ও উজ্জ্বল দেখাবে।

চুলের দেখভাল করতে টমেটো:-  টমেটোর মধ্যে থাকা ভিটামিন এ চুল উজ্জ্বল ও পোক্ত হয়।
আধুনিক হোমিওপ্যাথি, ঢাকা
ডাক্তার হাসান; ডি. এইচ. এম. এস(BHMC)
যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- +88 01727-382671 এবং +88 01922-437435
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।

0 comments:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 
[X]