সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

ডাক্তার সাহেব আমার লিঙ্গ শক্ত বা উত্তেজিত হচ্ছেনা ?

যৌন উত্তেজনা কালে বা যৌনতা বিষয়ক চিন্তা ভবনা করা কালে লিঙ্গ শক্ত না হওয়া সমস্যাটি অনেকেরই আছে। হতে পারে এটা তার মনের দুর্বলতা, হতে পারে এটা তার কোন শরীরিক সমস্যা। পুরুষাঙ্গ শক্ত না হওয়ার বিষয়ে আমাদের অনলাইন বাংলা পোর্টালের আজকের এই পোষ্টটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেকই পেনিস ঠিকমত শক্ত না হওয়ার সমস্যায় ভুগছেন। যৌনতায় লিঙ্গের শক্ততা প্রাপ্ত না হওয়া সমস্যা নিয়ে আমাদের ফেনবুক ফ্যানপেজে প্রশ্ন করেছেন যে, যৌন চিন্তা, ভাবনা বা উত্তেজনাকালে লিঙ্গ শক্ত হয় না তার কারন কি?

ডক্টরের কাছে লিঙ্গ শক্ত না হওয়া বিষয়ে করা প্রশ্নঃ: আমি কিছুদিন আগে বিয়ে করেছি। বিয়ের আগে আমি প্রায়ই হস্তমৈথুন করতাম। আগের তুলনায় আমার লিঙ্গ তেমন শক্ততা প্রাপ্ত হত না। কিন্তু দুইদিন আগে আমার লিঙ্গ সহবাসের আগে উত্তেজিত হয়ে আর শক্ত হয়না এবং স্বাভাবিক ভাবেই আছে। আমি অনেক চেষ্টা করেও পেনিস শক্ত করতে পারলাম না। আমার নববধূ আমার ঘরে কিন্তু কি করব বুঝতে পারছি না। এখন আমার আত্মহত্যা ছাড়া আর কিছুই করার নেই।
--ভিডিওতে দেখুন কি বলছেন ডাক্তার সাহেব--
https://youtu.be/K45x86dsBU0
ডক্টরের উত্তর: মাত্র দুদিন লিঙ্গ শক্ত হয়নি বলে কেউ অবার আত্মহত্যার কথা ভাবে নাকি? ওসব বাজে চিন্তা ছাড়ুন, জীবন একটি মূল্যবান বস্তু, তাকে আত্মহত্যা করে খামোখা নষ্ট করবেন কেন? প্রথম প্রথম বিয়ের পর অনেকেরই লিঙ্গ উত্তেজনা সংক্রান্ত এমন সমস্যা হয়ে থাকে, ওটা নিয়ে অধিক চিন্তার কোন কারণ নেই। দুশ্চিন্তা পরিত্যাগ করে স্বাভাবিক জীবন যাপন করুন, দেখবেন সব ঠিক হয়ে যাবে। লিঙ্গ শক্ত বা উত্তেজিত হচ্ছেনা কেন এটা ভাবতে থাকলে তো আপনার মনে যৌন উত্তেজনাই আসবেনা। লিঙ্গ উত্তেজিত করার চেষ্টা পরিত্যাগ করুন। 

মনে যৌন উত্তেজনা এলে লিঙ্গ নিজে থেকেই শক্ততা প্রাপ্ত হয়ে উঠবে। যৌনসঙ্গমের সময় “লং লাস্টিং”, বা “এক্সট্রা টাইম” ইত্যাদি সময় বাড়ানোর কনডম ব্যবহার করবেন না। ওইসব কনডমে এক বিশেষ পদার্থ লাগানো থাকে যা লিঙ্গের সংবেদনশীলতা কমিয়ে দেয়। যেকোন ব্র্যান্ডের ডটেড বা রিবড বা আলট্রা-থিন কনডম ব্যবহার করুন। কয়েকদিন লিঙ্গ শক্ত না হওয়ার ফলে সঙ্গম করতে না পারলেও সেটা নিয়ে দুশ্চিন্তা করবেন না। যেদিন লিঙ্গ শক্ত হবে সেদিন না হয় সঙ্গম করবেন। আবারও বলছি এরকম ঘটনা শুধু আপনার ক্ষেত্রেই ঘটেছে তা নয়, অনেকেরই মাঝে মাঝে এমন হয়।

অথবা অনেক দিন যাবৎ নানা যৌন অনাচার বা হস্তমৈথন করে আসছেন এবং দেখা দিয়েছে নানা কুফল। তাছাড়া  অনেক দিন যাবত এই সমস্যা চলতে থাকলে দেশের স্বনামধন্য এবং যৌন রোগ বিশেষজ্ঞ হোমিও চিকিত্সক ডাক্তার হাসানের সাথে পরামর্শ করুন যে কোনো সময় -
আধুনিক হোমিওপ্যাথি, ঢাকা
ডাক্তার হাসান; ডি. এইচ. এম. এস (BHMC)
যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- +88 01727-382671 এবং +88 01922-437435

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

পুরুষত্বহীনতা, অকাল বীর্যপাত ও লিঙ্গ উথান সমস্যা দূর করে সুস্থ যৌনজীবন দেয় জাফরান৷

জাফরানের ২০টি ঔষধি গুন বিশ্বের সবচেয়ে দামী মশলা জাফরান। স্যাফরন বা কেশর নামেও এটি পরিচিত৷ এই মশলা নামীদামী অনেক খাবারে ব্যবহৃত হয়। খাবারের স্বাদ, ঘ্রাণ, রঙ বাড়িয়ে তুলতে এই ‘গোল্ডেন স্পাইস’ এর জুড়ি নেই। তবে জাফরানের কাজ শুধু এরমধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। জাফরানের মধ্যে রয়েছে অসাধারণ ঔষধিগুণ। জাফরানে রয়েছে বিস্ময়কর রোগ নিরাময় ক্ষমতা৷মাত্র ১ চিমটে জাফরান আপনাকে প্রায় ২০ টি শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। ১. জাফরানে রয়েছে পটাশিয়াম যা উচ্চ রক্ত চাপ ও হৃদপিণ্ডের সমস্যা জনিতরোগ দূর করে।
২. হজমে সমস্যা এবং হজম সংক্রান্ত যে কোনও ধরনের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে জাফরান।
৩. জাফরানের পটাশিয়াম আমাদের দেহে নতুন কোষ গঠন এবং ক্ষতিগ্রস্থ কোষ সারিয়ে তুলতে সহায়তা করে।
৪. জাফরানের নানা উপাদান আমাদের মস্তিষ্ককে রিলাক্স করতে সহায়তা করে, এতে করে মানসিক চাপ ও বিষণ্ণতা জনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়৷
৫. মেয়েদের মাসিকের অস্বস্তিকর ব্যথা এবং মাসিক শুরুর আগের অস্বস্তি দূর করতে জাফরানের জুড়ি নেই।
৬. নিয়মিত জাফরান সেবনে শ্বাস প্রশ্বাসের নানা ধরণের সমস্যা যেমন অ্যাজমা,পারটুসিস, কাশি এবং বসে যাওয়া কফ দূর করতে…

দ্রুত ওজন কমাতে চান? সকালের চায়ের কাপে মিশিয়ে নিন শুধু এই তিনটি ঘরোয়া জিনিস…

জিমে গিয়ে কষ্টকর এক্সারসাইজ বা ডায়েটিং পছন্দ নয় অনেকেরই। তাঁরা চান ওজন কমানোর কোনও সহজতর প্রাকৃতিক পন্থা অবলম্বন করতে। এরকম মানুষের জন্য রইল ওজন কমানোর এক অতি সহজ উপায়ের হদিশ।

মোটা হয়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। দ্রুত ওজনও কমাতে চান তাঁরা। কিন্তু জিমে গিয়ে কষ্টকর এক্সারসাইজ বা ডায়েটিং পছন্দ নয় অনেকেরই। তাঁরা চান ওজন কমানোর কোনও সহজতর প্রাকৃতিক পন্থা অবলম্বন করতে। এরকম মানুষের জন্য রইল ওজন কমানোর এক অতি সহজ উপায়ের হদিশ।
আপনাকে যা করতে হবে তা হল, প্রথমেই এই তিনটি ঘরোয়া উপাদান মিশিয়ে তৈরি করে নিতে হবে একটি

মিশ্রণ—১ চা চামচ দারুচিনি,১/২ কাপ কাঁচা মধু,৩/৪ কাপ নারকোল তেল। তারপর এক চা চামচ পরিমাণ এই মিশ্রণ মিশিয়ে নিন সকালের গরম চায়ের কাপে। এবার পান করুন সেই চা। ব্যস্, ওজন কমানোর জন্য এইটুকুই যথেষ্ট।

অবিশ্বাস্য লাগছে? তাহলে জেনে রাখুন, ওজন কমানোর এই প্রাকৃতিক অভ্যাসে সায় রয়েছে ডাক্তারদেরও। দারুচিনি শরীরে শর্করা থেকে কর্মক্ষমতা সঞ্চয়ের প্রক্রিয়াকে তরান্বিত করে। কাঁচা মধু উপকারী কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি করে। আর নারকেল তেল বাড়ায় শরীরের মেটাবলিজম। পরিণামে শরীরে মেদ ঝরে গিয়ে হ্রাস পায় ওজন।

কী ভা…

নিয়মিত ঘৃতকুমারী রস পানের ৭টি বিস্ময়কর উপকারিতা

অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী অতি পরিচিত একটি উদ্ভিদের নাম। বহুগুণে গুণান্বিত এই উদ্ভিদের ভেষজ গুণের শেষ নেই। এতে আছে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফলিকঅ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিনএ, বি৬,বি২ ইত্যাদি। অ্যালোভেরার জেল রুপচর্চা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য রক্ষায় ব্যবহার হয়ে আসছে। অনেকেই অ্যালোভেরা জুস পান করে থাকেন। আপনি জানেন কি প্রতিদিন অ্যালোভেরা জুস পান করার উপকারিতা?

১। হার্ট সুস্থ রাখতে :- আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে অ্যালোভেরা জুস। অ্যালোভেরা কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। এটি দূষিত রক্ত দেহ থেকে বের করে রক্ত কণিকা বৃদ্ধি করে থাকে। এটি দীর্ঘদিন আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে থাকে।

২। মাংসপেশী ও জয়েন্টের ব্যথা প্রতিরোধ :- অ্যালোভেরা মাংসপেশীর ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকে। এমনকি ব্যথার স্থানে অ্যালোভেরা জেলের ক্রিম লাগালে ব্যথা কমে যায়।

৩। দাঁতের যত্নে :- অ্যালোভেরা জুস দাঁত এবং মাড়ির ব্যথা উপশম করে থাকে। এতে কোন ইনফেকশন থাকলে তাও দূর করে দেয়। নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস খাওয়ার ফলে দাঁত ক্ষয় প্রতিরোধ করা সম্ভব। ৪। ওজন হ্রাস করতে :- ওজন কমাতে অ…