সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

May, 2016 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

সুন্দরবনের বনদস্যু মাস্টার বাহিনীর আনুষ্ঠানিক আত্মসমর্পণ

সুন্দরবনের বনদস্যু ‘মাস্টার বাহিনীর প্রধানসহ ১০ সদস্য আত্মসমর্পণ করেছেন। বিকেল ৩টায় বাগেরহাটের মংলায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের উপস্থিতিতে অস্ত্র সমর্পণের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ করেন বনদস্যুরা ।

র‌্যাবের কাছে অস্ত্র-গুলি জমা দিয়ে আত্মসমর্পণকারী ১০ জনের মধ্যে সাতজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- বাহিনীর প্রধান মোস্তফা শেখ ওরফে মজিদ ওরফে কাদের মাস্টার (৪৭), সেকেন্ড ইন কমান্ড সোহাগ আকন (৩৭), ফজলু শেখ (৩৫), সোলায়মান শেখ (২৮), মো. শাহিন শেখ (২৮), সুমন সরকার (৩৪) ও মো. সুলতান খান (৫৮)। এদের বাড়ি বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও খুলনার বিভিন্ন এলাকায়।
গত রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমর্পণ কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে পরে তা স্থগিত করা হয়। ওইদিন ভোরে আত্মসমর্পণের লক্ষ্যে সুন্দরবনের চরাপুটিয়ার ভারানী খালে এসে র‌্যাব-৮ (বরিশাল) এর কাছে দেশি-বিদেশি মোট ৫১টি অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র ও প্রায় পাঁচ হাজার গুলি জমা দেন মাস্টার বাহিনীর সাত সদস্য। এরপর থেকে তারা র‌্যাব-৮ এর হেফাজতে ছিলেন।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফরিদুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, আত্মসমর্পণ করা দস্যুদের বিরুদ্ধে অর্…

যে ৮টি মসলা ক্যান্সারের যম

খাবারে ব্যবহৃত বিভিন্ন মসলার নানা স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে। এখানে জেনে নিন বেশ কয়েকটি সবজি ও মসলার খবর যা ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে। 
১. কাঁচা মরিচ ও ক্যাপসিকাম : এই ঝাল স্বাদের খাদ্যে অ্যান্টি-ক্যান্সার উপাদান রয়েছে। তবে অতিমাত্রায়া ঝাল খেতে মানা করেন চিকিৎসকরা। ক্যাপসিকামের উপাদান লিউকোমিয়া টিউমারের কোষকে বাড়তে দেয় না। 
 ২. আদা : এই ঝাঁঝালো স্বাদের খাদ্য উপাদানটি দেহে ক্ষতিকারক কোলেস্টরেলের কমায় এবং বিপাক ক্রিয়া ত্বরান্বিত করে। যেকোনো খাবারের স্বাদ বাড়ায় আদা। সেই সঙ্গে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে এর উপাদান।  ৩. ওরেগানো : পিৎজা বা পাস্তার স্বাদ বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে প্রোস্টেট ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে ওরেগানো। মাত্র এক কাপ ওরেগানোতে সাইটো-কেমিক্যাল 'কোয়ারসেটিন' রয়েছে যা ক্যান্সার ঘটায় এমন রোগ প্রতিরোধে কাজ করে।  ৪. দারুচিনি : মাত্র অর্ধেক চা চামচ দারুচিনির গুঁড়া খেলে আপনি পুরোপুরু ক্যান্সারমুক্ত থাকবেন। এটি টিউমার বাড়তে বাধা দেয়। 
৫. জিরা : এটি হজমে ব্যাপক সহয়তা করে। যার কারণে পেট পুরে খাওয়ার পর অনেকেই এক চিমটি জিরা চিবাতে থাকেন। জিরায় 'থাইমোকুইনন' নামের উপাদান রয়েছে যা …

সঙ্গে কত কোটি নিয়ে আজ মায়ের কোলে ফিরে আসছেন মুস্তাফিজুর রহমান

বীরের বেশে দেশে ফিরে আসছেন মুস্তাফিজুর রহমান। জীবনে প্রথম বারের মত কোনো বড় টুর্ণামেন্টের শিরোপা দুই চোখ ভরে দেখলেন মুস্তাফিজুর রহমান।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলেছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। শিরোপা জেতাতে পারেননি দলকে। এর পরেই বড় কোনো টুর্ণামেন্ট হিসেবে আইপিএলে খেলেন মুস্তাফিজুর রহমান।

সানরাইস হায়দারাবাদকে শিরোপা জেতাকে মেন্টর হিসেবে ভূমিকা রেখেছেন মুস্তাফিজ। স্বপ্নের আইপিএলে মুস্তাফিজ চুক্তিবদ্ধ হন এক কোটি ৭৫ লাখ রুপিতে।
এখানেই থাকছে না মুস্তাফিজের প্রাপ্তি। দল শিরোপা জেতায় বোনাস পাবেন হায়দারাবাদের সবাই। এছাড়া সেরা ইমাজিং ক্রিকেটার নির্বাচিত হওয়ায় ১০ লক্ষ রুপি পেয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

মিশনটা সফলই হচ্ছে মুস্তাফিজের। আজ (মঙ্গলবার) রাতে অনুষ্ঠানিকতা ছেড়ে মায়ের কোলে ফিরতে চান মুস্তাফিজ। বাংলাদেশি টাকার অংঙ্কে প্রায় ৩ কোটির মত সঙ্গে নিয়ে দেশে ফিরবেন তিনি।

তবে অবশ্য নগদ টাকা নয়। চেক নিয়েই ফিরবেন মুস্তাফিজুর রহমান। গ্রামের বাড়িতে থাকা মুস্তাফিজকে বাড়তি নিরাপত্বাও দেয়া হবে।

বন্ধ হলেও অনিবন্ধিত সিম সচল করা যাবে যেভাবে

মঙ্গলবার (৩১ মে) শেষ হচ্ছে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিব্ন্ধন কার্যক্রম। এর পরই বন্ধ হয়ে যাবে সকল অনিবন্ধিত সিম। তবে দুইমাসের মধ্যে তা আবার পুনর্নিবন্ধন করে চালু করা যাবে। তবে এক্ষেত্রে নতুন সিম কিনে রেজিস্ট্রেশনের সময় কেউ যদি তার পুরোনো নাম্বারটি চায়, তাহলে সে সেটি পাবে।

জানা যায়, ‘জিরো আওয়ার’ থেকে অনিবন্ধিত সিম স্থায়ীভাবে বন্ধ করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রযুক্তিগত জটিলতার কারণে তা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছে মোবাইল অপারেটরগুলো।
গতকাল রবিবার সকালে সচিবালয়ে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সিম পুনর্নিবন্ধন বিষয় নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অনিবন্ধিত সিম বন্ধ করতে দুই দিনেরও বেশি সময় লেগে যেতে পারে।

এর আগে ৩১ এপ্রিলের পর অনিবন্ধিত সিম ৩ ঘণ্টা করে বন্ধ রাখার কথা বলা হলেও একই কারণে তা বন্ধ করতে পারেনি অপারেটরগুলো।

উল্লেখ্য, আগামী ২ জুন থেকে অনিবন্ধিত সিম বন্ধ হলেও প্রবাসী ও দেশে বসবাসকারী বিদেশি নাগরিকদের সিমগুলো বন্ধ হবে না। পরবর্তী ১৮ মাসের মধ্যে বাধ্যতামূলকভবে তাদের সিম পুনর্নিবন্ধন করিয়…

বালিশের নিচে এক কোয়া রসুন রাখলে ভালো ঘুম হয় !

শুধু রান্নার মশলা নয়, ভেষজ ওষুধ হিসাবেও দীর্ঘদিন ব্যবহৃত হয়ে আসছে রসুন। স্বাস্থ্যকর খাবারগুলোর মধ্যে অন্যতম এটি। নানা পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ এই খাবারটির স্বাস্থ্য উপকারিতার কথা বলাই বাহুল্য।

হার্টের সমস্যা, যকৃতের সমস্যা এবং টাক সমস্যার সমাধানে রসুনের জুড়ি মেলা ভার। শুধু তাই নয়, ঠাণ্ডা সমস্যায়, শ্বাসযন্ত্রের জটিলতা দূর করতে, ধমনী পরিষ্কার রাখতে এবং রক্তকে বিশুদ্ধ করতের ভূমিকা রাখে রসুন। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, কাঁচা রসুনের স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক বেশি।

ইউনিভার্সিটি অফ হেলথ অ্যান্ড মেডিক্যাল সাইন্সের এক গবেষণায় রসুনের বিভিন্ন গুণাবলী প্রকাশ পেয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, বিভিন্ন অ্যান্টিবায়োটিক গুণাগুণ থাকার কারণে রসুন কাচায় চিবিয়ে খেলে তা অনেক কার্যকরী। কেননা এতে অ্যালিসিন নামে এক স্বাস্থ্যকর উপাদান রয়েছে। রান্না করলে এই উপাদানটি নষ্ট হয়ে যায়। কাজেই এটি কাচায় চিবিয়ে খাওয়াই ভালো।
কিন্তু অনেকেই আছেন যারা মুখে দুর্গন্ধের ভয়ে কাঁচা রসুন থেকে দূরে থাকেন। তারা বালিশের নিচে রেখে দিন এক কোয়া রসুন। এতে স্বাস্থ্য সুরক্ষার পাশাপাশি ভালো ঘুম হবে।

রসুন প্রাকৃতিক অ্যান্টি-বায়োটিক হিসেবে কাজ করে। গবেষ…

যে ৪ ধরণের খাবার ক্ষয় করে দিচ্ছে আপনার দেহের হাড়…

আমাদের দেহের কাঠামো তৈরি হয় হাড়ের মাধ্যমে। আমাদের কঙ্কাল আমাদের দেহকে সঠিক আকারে এবং সঠিকভাবে চলাচলে সহায়তা করে থাকে। একবার ভাবুন তো আপনার দেহে যদি হাড় না থাকতো তবে আপনি কি করতেন? ভাবতে পেরেছেন? না। এটি ভাবা সম্ভব নয়। কিন্তু তাহলে হাড়ের যত্নে কেন আমরা কেউ কিছু করি না? বরং এমন কিছু কাজ করি যা আমাদের হাড়ের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর।

হাড়ের রোগগুলোর মাঝে অস্টিওপোরোসিস বর্তমানে সব থেকে বেশি নজরে পড়ে। এই রোগটির কারণে হাড়ের মজবুত গঠন খয়ে যেতে থাকে। কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো হাড় ক্ষয়ের জন্য বিশেষভাবে দায়ী। কিন্তু আমরা কেউ জেনে, কেউ জেনে এই সকল খাবার গ্রহন করে চলেছি প্রতিদিন।
অতিরিক্ত লবণাক্ত খাবার :- লবণ অর্থাৎ সোডিয়াম ক্লোরাইড দেহ থেকে ক্যালসিয়াম বের করে দিয়ে হাড়কে দুর্বল করে ফেলে।চিপস, বিভিন্ন ফাস্ট ফুড, কাচা খাবারে বা সালাদে মেশানো লবণ হাড়ের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এছাড়াও খাবারের সময় বাড়তি লবণ খাওয়াও হাড়ের জন্য ক্ষতিকর।

সফট ড্রিংকস :-
ছেলে-বুড়ো সকলেরই পছন্দের পানীয় সফট ড্রিংকস প্রতিনিয়ত হাড় ক্ষয় করে চলেছে।এসব ড্রিঙ্কসে রয়েছে ফসফরিক এসিড যা পস্রাবের মাধ্যমে দেহের ক্যালসিয়াম দূর করে দেয়। …

গ্যাস্ট্রিকের যন্ত্রণা দূরে রাখবে এই ২ টি জাদুকরী পানীয়

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা পেটের অন্যান্য নানা সমস্যার মধ্যে সবচাইতে বিরক্তিকর সমস্যা। আপাত দৃষ্টিতে এই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা তেমন মারাত্মক মনে না হলেও আপনার অবহেলার কারণে মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে কিছুদিনের মধ্যেই। এই বিরক্তিকর গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা মূলত আমাদের খাদ্যাভ্যাস, জীবনযাপনের নানা ভুলের কারণেই হয়ে থাকে।

বিশেষ করে খাবার সময় একটু আগে-পরে হলে এবং বেশি ভাজাপোড়া ও তেল মসলা জাতীয় খাবার বেশি খাওয়া পড়লে এই সমস্যাটি বড় আকার ধারণ করা শুরু করে। তবে এই সমস্যার সমাধানও কিন্তু আমাদের হাতেই রয়েছে। বিশেষ কিছু পানীয় রয়েছে যার মাধ্যমে খুব সহজেই গ্যাস্ট্রিকের যন্ত্রণা দূর করে দেয়া সম্ভব। আজকে চলুন পরিচিত হয়ে নেয়া যাক এমন দুটি পানীয়ের সাথে। ১) গাজর ও আলুর পানীয়
গাজর ডেটক্স ফুড নামে পরিচিত যা আমাদের পাকস্থলীসহ দেহের অভ্যন্তরীণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে টক্সিনমুক্ত রাখতে সহায়তা করে। এবং আলুর রস আমাদের পেট ঠাণ্ডা রাখতে বিশেষভাবে কার্যকরী। তাই প্রতিদিন নিয়ম করে গাজর ও আলুর পানীয়টি পান করতে পারেন গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে।

উপকরণ
২ টি মাঝারী আকারের গাজর১ টি মাঝারী আকারের আল্য১ ইঞ্চি পরিমাণে আদাপ্রণালি
গাজর ও…

মশা তাড়াতে আজব গাছ আবিষ্কার করলেন বিজ্ঞানীরা

মশার জ্বালায় অস্থির হয়ে উঠছেন? একে তো মশার কামড়টাই বিরক্তিকর। তারউপর মশার কামড়ে ভয়ঙ্কর সব রোগ হয়। ম্যালেরিয়ার মতো ভয়ঙ্কর রোগ তো ছিলই। এবার মশার কারণে জিকাও হচ্ছে এই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে।

মশা তাড়াতে কত কিছুই তো ব্যবহার করলেন। কত কিছুই তো কিনলেন। এমনকি পুরসভার কল্যাণে মশা মাড়তে কামানও তো দেগে ফেললেন। কিন্তু মশা তাড়াতে কোনও গাছের কথা শুনেছেন কখনও? সত্যিই এক আজব গাছ আবিস্কার করেছেন মার্কিন বিজ্ঞানীরা। গাছটির নাম সাইট্রনেলা খুব সহজেই গাছটি বাড়ির বারান্দায় অথবা ব্যালকনিতে লাগাতে পারেন। খুব বেশি জল কিম্বা সারেরও দরকার পড়ে না। আর এই গাছ বেঁচেও থাকে অনেক বছর।
এই গাছটি থেকে একধরণের সুগন্ধি বেরোয় যা মশাদের একেবারে অপছন্দ। আর এই গন্ধ পেলেই মশারা এই গাছের ত্রিসীমানায় ঘেষতে চায় না। গাছটি খরা প্রতিরোধেও কাজে আসে। এই ধরনের মাত্র ৬-৭ টি গাছ, এক একর জায়গাকে মশা মুক্ত রাখতে পারে। সুতরাং মশার জ্বালায় যারা অতিষ্ঠ হয়ে আছেন তারা দু তিনটি সাইট্রনেলা গাছ বাড়ীর চারদিকে কিম্বা ফ্ল্যাটের ব্যালকনিতে লাগিয়ে দেখতে পারেন কাজ হয় কিনা। তবে, মুশকিলও রয়েছে। কারণ, এই গাছ আমাদের দেশে এখনই পাওয়ার কোনও উপায় নে…

৭১ টি মৃতদেহ নিয়ে ৭৩ বছর ধরে সমুদ্রে রহস্যময় ডুবোজাহাজ !

৭১ টি মৃতদেহ নিয়ে ৭৩ বছর ধরে সমুদ্রের গভীরে ঘুমিয়ে ছিল সে । ঘুম ভাঙল ডাইভারদের আনাগোনায় । ‘সে‘ হল একটি ব্রিটিশ ডুবোজাহাজ । দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় থেকে তার ঠিকানা ছিল সাগরের গহিনে । ইতালির সারদিনিয়া উপকূলে তাভালারা দ্বীপের কাছে সমুদ্রের ১০০ মিটার গভীরে পাওয়া গেল ডুবোজাহাজটিকে ।

১৯৪২ সালের ২৮ ডিসেম্বর মাল্টা বন্দর ছেড়ে রওনা দেয় ডুবোজাহাজটি । প্রথম লক্ষ্য ছিল দুটি ইতালীয় যুদ্ধজাহাজ ধ্বংস করা । সেটি নোঙর ফেলে মাদালেনা বন্দরের কাছে । ৩১ ডিসেম্বর সিগন্যালও পাঠায় । কিন্তু ১৯৪৩-এর ২ জানুয়ারি থেকে ডুবোজাহাজটির কোনও খোঁজ পাওয়া যায় না । ১২৯০ টন ওজনের জলযানটি যেন হাওয়ায় মিলিয়ে যায় ।
৭৩ বছর পরে আবার তার খোঁজ পাওয়া গেল । জানা গেছে‚ জাহাজটির ক্ষতি নগণ্য । বিস্ফোরণে সামান্য ক্ষতি হয়েছে। মনে করা হচ্ছে‚ অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু হয় এর ৭১ জন ক্রু-য়ের । তাঁদের শনাক্ত করে পরিবার পরিজনকে জানানোর চেষ্টা চলছে ।

দই ছাড়াই তৈরি করুণ সুস্বাদু লাচ্ছি মাত্র ১২মিনিটে

লাচ্ছি তৈরির প্রধান উপকরণ দই। কিন্তু দই বাদ দিয়ে লাচ্ছি তৈরি করার কথা আমরা ভাবতেই পারি না। ঘরে দই না থাকলে লাচ্ছি তৈরির চিন্তা আমরা বাদ দিয়ে বসে থাকি। কিন্তু কেন? ঘরে দই না থাকলেও এখন অসাধারণ সুস্বাদু লাচ্ছি তৈরি করতে পারবেন মাত্র ১২ মিনিটে! দেখে নিন বিডি রমণীর দেওয়া দই ছাড়াই মাত্র ১২মিনিটে সুস্বাদু লাচ্ছি তৈরির রেসিপি।
উপকরণ :-
✿– ৩ কাপ পানি
✿– প্রতিকাপ পানির জন্য ৩ চা চামচ গুঁড়ো দুধ (এখানে ৯ চা চামচ লাগবে)
✿– প্রতিকাপ পানির জন্য ২ চা চামচ লেবুর রস (এখাবে ৬ চা চামচ লাগবে)
✿– চিনি আপনি যতোটা মিষ্টি চান
✿– বরফ কুচি ইচ্ছে মতো
✿– আইসক্রিম (ইচ্ছা)
✿– বাদাম কুচি (ইচ্ছা)
প্রস্তুত পদ্ধতি:-
► প্রথমে পানি একটু গরম করে নিয়ে এতে গুঁড়ো দুধ ভালো করে গুলিয়ে নিন। এরপর এতে লেবুর রস দিয়ে অল্প নেড়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন ৮-১০ মিনিট।
► ৮-১০ মিনিট পর দুধ জমাট বেঁধে গিয়েছে দেখতে পাবেন। এবার একটি ব্লেন্ডারে এই জমাট বাঁধা দুধ, আপনার প্রয়োজন মতো চিনি, অর্ধেকটা পরিমাণে বরফ কুচি এবং বাদাম কুচি দিয়ে ভালো করে ২-৩ বার ব্লেন্ড করে নিন।

► একেবারে শেষের দিকে চিনির স্বাদ বুঝে নিয়ে প্রয়োজনে আরও চিনি দিয়ে ব্লেন্ড করে এতে বরফ কুচি…

রমজানে মাত্র ১টি কাজ করলে আর কখনোই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হবে না..!

এমনিতেই আমাদের দেশে গ্যাস্টিক জনিত সমস্যার মানুষ বেশি। রোজাদার ব্যক্তির মূলত সারাদিন পেট খালি থাকে, অন্যদিকে ইফতারে ভাজা পোড়া খাওয়া সবমিলিয়ে সমস্যাটি বেশি হয় এই পবিত্র মাসেই প্রকট আকার ধারণ করে। তাই চলুন এখনই জেনে নিই পবিত্র রমজান মাসে কোন তিনটি কাজ করলে আর কখনো আপনার গ্যাস্ট্রিকের
সমস্যা থাকবে না।

১। আধা ইঞ্চি পরিমাণ কাঁচা আদা নিন। তারপর অল্প একটু লবন মাখিয়ে খেয়ে ফেলুন। আদা খাওয়ার কিছুক্ষণ পর এক কাপ কুসুম গরম পানি খান। গভীর রাতে আর গ্যস্ট্রিকের সমস্যা হবে না।
অথবা
২। এক গ্লাস পানি একটি হাড়িতে নিয়ে চুলায় বসান। এর আগে এক ইঞ্চি পরিমাণ কাঁচা হলুদ পানিতে দিয়ে দিন। পানি অন্তত পাঁচ মিনিট ফুটতে দিন। তারপর নামিয়ে আনুন। পানি ঠাণ্ডা হলে হলুদসহ খেয়ে ফেলুন। গ্যাস্ট্রিক দৌঁড়ে পালাবে।
অথবা

৩। ওপরের সমস্ত পদ্ধতি ঝামেলার মনে হলে শুধুমাত্র এক গ্লাস পানিতে এক চা চামচ মধু মিশিয়ে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পান করুন। কখনোই রাতে পেট বা বুক ব্যথা করবে না।

যন্ত্রণাদায়ক পাইলস সারিয়ে তুলুন ঘরোয়া ৫ উপায়ে

পাইলস বা হেমোরয়েড খুব পরিচিত একটি রোগ। প্রায় ঘরে এই রোগ হতে দেখা দেয়। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে ৭৫% মানুষ এই রোগে ভুগে থাকেন। বিশেষত ৪৫ থেকে ৬৫ বয়সী মানুষেরা এই রোগে বেশি ভুগে থাকেন। বর্তমান সময়ে সব বয়সী মানুষের এই রোগ হতে দেখা দেয়।

মলদ্বারে যন্ত্রণা, রক্ত পড়া, মলদ্বার ফুলে যাওয়া, জ্বালাপোড়া ইত্যাদি পাইলসের সাধারণ সমস্যা। পারিবারিক ইতিহাস, কোষ্ঠকাঠিন্য, কম ফাইবারযুক্ত খাবার, স্থূলতা, শারীরিক কার্যকলাপ, গর্ভাবস্থায়, এবং দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে অথবা বসে থাকা ইত্যাদি কারণে পাইলস দেখা দেয়। সাধারণত ওষুধ, অপারেশন পাইলসের চিকিৎসা হয়ে থাকে। এর সাথে কিছু ঘরোয়া উপায় এই সমস্যা সমাধান করা যায়।

১। বরফ :- ঘরোয়া উপায়ে পাইলস নিরাময় করার অন্যতম উপায় হল বরফ। এটি রক্তনালী রক্ত চলাচল সচল রাখে এবং ব্যথা দূর করে দেয়। একটি কাপড়ে কয়েক টুকরো বরফ পেঁচিয়ে ব্যথার স্থানে ১০ মিনিট রাখুন। এটি দিনে কয়েকবার করুন।

২। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার :- একটি তুলোর বলে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার লাগিয়ে ব্যথার স্থানে লাগান। শুরুতে এটি জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করবে, কিছুক্ষণ পর এই জ্বালাপোড়া কমে যাবে। এটি দিনে কয়েকবার করুন। অভ্যন্তরীণ হেমোরয়েডের জন্য এক…

যে ৮ টি বদঅভ্যাসের কারণে আপনার পেটে মেদ জমছে

পেটে মেদ জমা কম-বেশি সবারি সমস্যা। এর কারণে আপনাকে দেখতে খারাপ লাগতে পারে, আপনার পছন্দের পোশাক আপনার জন্য টাইট হয়ে যেতে পারে এমনকি শারীরিক সমস্যাও হতে পারে। মেদ কিভাবে কমাবেন তা নিয়ে তো অনেক লেখালেখি হয়। কিন্তু কেন এই মেদ আপনার পেটে জমে তা জানেন তো? শুধু বেশি খাবার খাওয়ার জন্যই কিন্তু পেটে মেদ জমে না। এমন অনেক বদঅভ্যাস আছে যার কারণে আপনার পেটে মেদ জমে। তাহলে জেনে নিন এই বদঅভ্যাস গুলো কী কী-

১) অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়া :- স্লিম পেট যান? তাহলে চিনি ও মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়া বাদ দিন। বাদ না দিতে পারলে এসব খাওয়া কমিয়ে দিন। যেমন সপ্তাহে ২/৩ বার।
২) অপরিমিত ঘুম :- রাতে অপরিমিত ঘুমালেও কিন্তু পেটে মেদ জমতে পারে। এজন্য প্রতি রাতে অন্তত টানা ৬-৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করতে হবে।

৩) প্রতিদিন সোডা/ সফট ড্রিঙ্কস/ অ্যালকোহল সমৃদ্ধ পানীয় পান করা :- কোক, স্প্রাইট, মিরিন্ডা বা মাউন্টেন ডিউ ছাড়া আপনার দিন’ই চলে না? অথবা বিয়ার, ওয়াইন বা শ্যাম্পেইনের প্রতি রয়েছে আসক্তি? তাহলে স্লিম পেট পাওয়া কথা ভুলে যান। এসব না ছাড়লে পেটে মেদ জমতেই থাকবে।
৪) লো-ফ্যাট জাতীয় খাবার বেশি পরিমাণে খাওয়া :- লো-ফ্…

এটা জানলে আপনি আর ব্রাশ দিয়ে দাঁত মাজবেন না!

চিনের মানুষ দাঁত মাজেন না, এই তথ্য আজই প্রথম জানলেন, এমনটা নিশ্চয়ই নয়। মাজনের বদলে তাঁরা ব্যবহার করেন একধরনের মাউথ ফ্রেশনার। তবে এমন এক তথ্য, যা শুনলে আপনিও হয়ত আর দাঁত মাজবেন না, অন্তত ব্রাশ দিয়ে তো নয়ই! টুথ ব্রাশের ব্রাশ নাকি তৈরি হয় শূকরের ঘাড়ের সূক্ষ্ম লোম দিয়ে।

ভয়ের কিছু নেই, গা ঘিন ঘিনও করার কিছু নেই, কারণ, এখন এমনটা হয় না। টুথ ব্রাশ তৈরির প্রথম অধ্যায়ে হলেও এখন আধুনিক টুথ ব্রাশের ভাবনাগুলো একেবারেই আলাদা। তবে ব্রাশের বিবর্তনে শূকরের পর স্থান পেয়েছে ঘোড়ার লোম। আরও পরে পাখির পালকও এই বিবর্তিত ধারায় আসে। আর ব্রাশের হাতল হিসেবে ব্যবহৃত হত হাড় কিংবা বাঁশ। এরপর ব্রাশ তৈরিতে ব্যবহার করা হয় নাইলন। মৌলিক গঠন এক থাকলেও ব্রাশের বিবর্তন হয়েছে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়েই।
এখন আর শূকর, ঘোড়ার লোম কিংবা পাখির পালক দিয়ে টুথ ব্রাশ বানানো হয় না ঠিকই, তবে ব্রাশের জন্মের কথা ভাবলে, টূথ ব্রাশের থেকে নিম দাঁতনকেই দাঁত মাজার জন্য ব্যবহার করার অপশনকে বেশি পছন্দ হয়, তাই নয় কি?

একটি গাছের পাতা সম্পূর্ণরুপে নিয়ন্ত্রণ করবে ডায়াবেটিস ও ব্লাড প্রেসার! দাবি বিজ্ঞানীদের (ভিডিও)

সকাল বিকাল ইনসুলিন কিংবা ট্যাবলেট নয়, এবার আপনার ডায়াবেটিস সম্পূর্ণরুপে নিয়ন্ত্রণ করবে বিদেশি ঔষধি গুণসমৃদ্ধ একটি গাছের পাতা। প্রতিদিন খালিপেটে ২ টি পাতা সেবনে শতভাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন ডায়াবেটিস ও ব্লাড প্রেসার। এমটাই দাবি চীন এবং সুইজারল্যান্ডের বিজ্ঞানীদের।

গাছটির বৈজ্ঞানিক নাম গাইনূরা প্রোকাম্বেন্স। এটা চীন এবং সুইজারল্যান্ডে স্থানীয়ভাবে ডান্ডালিউয়েন নামেও বেশ পরিচিত। আমেরিকা, সিঙ্গাপুর, চীন, মালেয়শিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিশ্ব জয় করে এই এন্টি ডায়াবেটিস গাছ এখন পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশে।
চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের মতে, সম্পূর্ণ পাশ্ব প্রতিক্রিয়াহীন এন্টি ডায়াবেটিস এই গাছটির পাতা এবং পাতার রস সেবনে ডায়াবেটিস সম্পূর্ণ সহনীয় মাত্রায় আপনার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

গাছটির ২ টি পাতা প্রতিদিন খালি পেটে সেবনে শুধু সুগার এবং কলস্টেরল নিয়ন্ত্রণই করে না, তরতাজা রাখে কিডনি, লিভার এবং নিয়ন্ত্রণে রাখে ব্লাড প্রেসার। এছাড়া সুগার স্বভাবিক মাত্রার তুলনায় আরো কমিয়ে হাইপোগ্লামিয়ার বিপদ থেকেও রক্ষা করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করে এই গাছের পাতা।

যাদের ডায়াবেটিস, প্রেসার এবং কলস্টেরোল সমস্যা আছে, তাদের …

বিশ্বরোডে ডাকাতদের থেকে সাবধান - বিশ্বরোডে ইদানিং ডাকাতরা অভিনব কায়দায় ডাকাতি করে

বিশ্বরোডে ডাকাতদের থেকে সাবধান - বিশ্বরোডে ইদানিং ডাকাতরা অভিনব কায়দায় ডাকাতি করে। বিশ্বরোডে ডাকাতদের থেকে সাবধান - বিশ্বরোডে ইদানিং ডাকাতরা অভিনব কায়দায় ডাকাতি করে। বিশ্বরোডে ডাকাতদের থেকে সাবধান - বিশ্বরোডে ইদানিং ডাকাতরা অভিনব কায়দায় ডাকাতি করে

ডেডলাইন রাত ৮টা: সরে যেতে হবে ১৮ জেলার মানুষকে

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র প্রভাবে উপকূলীয় ১৮ জেলার ঝুঁকিপূর্ণ সব মানুষকে সরে যেতে হবে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। তাদের শুক্রবার রাত ৮টার মধ্যে আশ্রয়কেন্দ্রে সরে যেতে হবে। ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র প্রভাবে যে কোনো বড় ধরনের দুর্যোগ আশঙ্কা করা হচ্ছে। 
এ জন্য সমুদ্র উপকূলবাসীকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। একই সঙ্গে রোয়ানুর কারণে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে ৭, কক্সবাজারে ৬ এবং খুলনা ও মংলা সমুদ্রবন্দরে ৫ নম্বর বিপদ সংকেত জারি করা হয়েছে।  আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়টি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ১২শ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। রোয়ানু নামে এই ঘূর্ণিঝড়টি ধীরগতিতে উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। এর প্রভাবে গত রাত থেকে বৃষ্টি হচ্ছে বন্দরনগরী চট্টগ্রামে। সাগরও উত্তাল হয়ে উঠছে। তাই মাছ ধরার ট্রলার ও নৌকাসমূহকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। এর আগে গত মঙ্গলবার সাগরে সৃষ্টি হয় একটি লঘুচাপ, বুধবার তা নিম্নচাপে পরিণত হয়।  এরপর নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়, যার নামকরণ রোয়ানু করা হয়েছে। এদিকে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে চট্টগ্…

শ্যামল কান্তির বিচারের দাবি: হেফাজতের ৭২ ঘণ্টার আলটিমেটাম

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তের শাস্তির দাবিতে ফুঁসে উঠেছে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ। আজ ধর্ম ভিত্তিক অরাজনৈতিক এই সংগঠনটির নারায়ণগঞ্জ শাখার নেতারা শ্যামল কান্তিকে শাস্তি দিতে সরকারকে ৭২ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়েছেন।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দাবি মানা না হলে হরতাল- অবরোধ করে দেশ অচল করে দেয়া হবে বলে মন্তব্য করেন হেফাজতের নেতারা। হেফাজতে ইসলামের আজকের সমাবেশটি আয়োজন করা হয় 'সর্বস্তরের মুসলিম জনতার' ব্যানারে। ওই আয়োজনে শ্যামল কান্তি ভক্তের ফাঁসিও দাবি করা হয়।
আজ জুমার নামাজের পর নারায়ণগঞ্জের ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় বৃষ্টি উপেক্ষা হাজার হাজার মানুষ হেফাজতের সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ডিআইটি জামে মসজিদের খতিব ও হেফাজতে ইসলাম নারায়ণগঞ্জের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আওয়াল।

সমাবেশে মাওলানা আব্দুল আওয়াল বলেন, 'শ্যামল কান্তি ভক্ত আল্লাহ ও মুসলিমদের কটূক্তি করে কথা বলেছেন। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তাকে শাস্তি দিতে হবে। এই দাবি মানা না হলে গণজমায়েত করে হরতাল- অবরোধসহ কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।'

এ সময় তিনি আরো বলেন, …

শিক্ষক স্বেচ্ছায় কান ধরেছেন

দৈনিক প্রথম আলোর সংবাদ সুত্রে : নারায়ণগঞ্জের শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে ‘তারছেড়া’ উল্লেখ করে স্থানীয় সাংসদ সেলিম ওসমান বলেছেন, শিক্ষক ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করেছেন। জীবন বাঁচানোর জন্য তিনি স্বেচ্ছায় কান ধরে ওঠবস করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন সাংসদ সেলিম ওসমান। সংবাদ সম্মেলন হলেও সেখানে দলের শতাধিক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সাংসদের কাছে সাংবাদিকেরা জানতে চান, এ ঘটনায় সারা দেশের লোক ‘সরি স্যার’ বলছে। সাধারণ জনগণ ও রাজনৈতিক মহল থেকে সাংসদের ক্ষমা চাওয়ার দাবি উঠেছে। আপনি ক্ষমা চাইবেন কি না ?এতে সাংবাদিকদের পাল্টা প্রশ্ন করে সাংসদ বলেন, ‘আমি কার কাছে ক্ষমা চাইব? আল্লাহর কটাক্ষকারীর সাজা হয়েছে। আমি যদি মরেও যাই তাও ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।’
একজন শিক্ষককে কান ধরানো অপরাধ ও এতে আইনভঙ্গ হয় এ কথা স্বীকার করে সেলিম ওসমান বলেন, শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে বাঁচানোর জন্য তিনি সেটি করেছেন। ইমানদার মুসলমানেরা শিক্ষকের শাস্তি চেয়েছিলেন দাবি করে তিনি সাংবাদিকদের কাছে জানতে চান, ‘আমরা কি ইবলিসের রাজত্বে বাস করছি? আপনারা জবাব দেন।’ সংবাদ সম্মেল…

চর্বি কমানোর বিস্ময়কর টনিক

শরীরের বাড়তি ওজন নিয়ে যারা বিড়ম্বনায় আছেন, তাদের জন্য সুখবর হচ্ছে- খুব সহজেই আপনি ওজন কমাতে পারেন। টনিক হাতের কাছেই। আর তা হলো ‘জাম্বুরা’। এ মৌসুমে বাজারে প্রচুর জাম্বুরা পাওয়া যাচ্ছে। চটপট কিনে টপাটপ খেয়ে নিন। আর দেখুন আপনার ওজনের কোনো তারতম্য হলো কি না। যত্মসহকারে জাম্বুরার রস খান, ফল পাবেন।

স্বাভাবিক খাবার খাবেন আর সঙ্গে জাম্বুরার জুস বা সামান্য ঝাল-লবণ দিয়ে মেখে জাম্বুরা খাবেন। আমাদের দেশে লোকজন এমনিতেই বেশি ঝাল লবণ দিয়ে জাম্বুরা মেখে খেয়ে থাকেন। কিন্তু যারা ওজন কমানোর জন্য জাম্বুরা টনিক হিসেবে ব্যবহার করবেন, তাদের বেশি ঝাল লবণ না খাওযাই ভালো।
জাম্বুরার রস চর্বি কমিয়ে দেয়। বিপাক ক্রিয়া বেশি সক্রিয় রাখে, যা ওজন কমানোর প্রথম শর্ত।

সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, জাম্বুরার রস শুধু ওজন কমাতেই সহায়তা করে না, রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণেও কাজ করে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তারকারা ওজন কমানোর জন্য জাম্বুরার রস পান করে থাকেন অনেক দিন আগে থেকেই। তবে এবার তা প্রমাণ করলেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা।

ওই গবেষণার প্রধান ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটির পুষ্টিবিদ্যার অধ্যাপক আন্ড্রিয়াস স্টল বলেন, জাম্বুরার রসে একসঙ…

কেমিক্যালমুক্ত আম কিভাবে চিনবেন? জেনে নেই চেনার ১০টি উপায়

আম পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া ভার। বাজারে গেলেই এখন পাকা আমের গন্ধে মন উচাটন হয়ে ওঠে। হাজারও রকমের আম পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। নামে যেমন বাহার, খেতে তেমন সুস্বাদু। ছোটবেলায় আম, মুড়ি, দুধ দিয়ে মেখে খাওয়ার স্মৃতি কমবেশি সবারই আছে। কিন্তু ছোটবেলার সেই সুস্বাদু আমে এখন প্রচুর কৃত্রিম ভেজাল পাওয়া যায়। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ফরমালিনসহ নানা রকম কেমিক্যাল ব্যবহার করে আমকে এখন আতঙ্কের ফল হিসেবেই পরিচিতি করে তুলছে। এসব কেমিক্যাল মানুষের জন্য শুধু ভয়াবহই না মৃত্যুর আশঙ্কাও তৈরি করে।
কেমিক্যালমুক্ত আম কিভাবে চিনবেন? জেনে নেই চেনার ১০টি উপায়
আসুন জেনে নেই কেমিক্যাল মুক্ত আম চিনবেন কি করে –

১। লক্ষ্য করুন, আমের গায়ে মাছি বসছে কি-না। এর কারণ, ফরমালিন যুক্ত আমে মাছি বসে না।

২। আম গাছে থাকা অবস্থায় বা গাছপাকা আম হলে লক্ষ্য করে দেখবেন যে আমের শরীরে এক রকম সাদাটে ভাব থাকে। কিন্তু ফরমালিন বা অন্য রাসায়নিকে চুবানো আম হবে ঝকঝকে সুন্দর।

৩। কারবাইড বা অন্য কিছু দিয়ে পাকানো আমের শরীর হয় মোলায়েম ও দাগহীন। কেননা আমগুলো কাঁচা অবস্থাতেই পেড়ে ফেলে ওষুধ দিয়ে পাকানো হয়। গাছ পাকা আমের ত্বকে দাগ পড়বেই।

৪। গা…

যারা জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করবেন কিংবা হাতে পাননি তাদের জন্য সুখবর

নাগরিকদের ভোগান্তি কমাতে স্বল্প সময়ের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।  ত্রুটিপূর্ণ জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) কারণে নানা ধরনের সেবা পেতে সমস্যা হচ্ছে নাগরিকদের।  এ অবস্থায় এনআইডির তথ্য সংশোধন, ভোটার এলাকা স্থানান্তরসহ অন্যান্য সেবার ক্ষেত্রে নাগরিকদের থানা ও উপজেলা অফিস থেকেই সব সেবা দিতে বলা হয়েছে।

সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনের আওতাধীন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত দুই পৃষ্ঠার একটি চিঠি সব থানা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। জাতীয় পরিচয়পত্র সংক্রান্ত সেবা নিয়ে নাগরিক ভোগান্তির অভিযোগ দীর্ঘদিনের।
এমনকি যারা জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করেছেন কিন্তু এখনো হাতে পাননি তারাও যেন কোন ভোগান্তিতে না পড়ে সেই ব্যাপারে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সবকিছুই অতিদ্রুত শেষ করতে হবে।
কাক্সিক্ষত সেবা পেতে মাসের পর মাস ঘুরতে হয় সেবা গ্রহীতাদের। বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে মোবাইল সিম রেজিস্ট্রেশনে লাখ লাখ নাগরিকের আঙুলের ছাপ না মেলায় তারাও ভোগান্তিতে পড়েন। এছাড়া নতুন বেতন স্কেলে জাতীয় পরিচয়পত্র বাধ্যতামূলক করায় জাতীয় পরিচয়পত্রে তথ্য ভুল থাকায়…

ওজন কমাতে আর হজম শক্তি বাড়াতে - এক গ্লাস শসার রসের জাদুকরী উপকারিতা!

শরীর সম্পর্কে সচেতন ব্যক্তিদের শসার প্রতি যেন ভিন্নরকম একটা টান থাকে। তাদের প্রতিবেলার খাবারে শসার উপস্থিতি লক্ষণীয়। সসা শুধু আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল নয়, এটি রূপচর্চাতেও ব্যাপক হারে ব্যবহৃত হয়। এতে প্রচুর পরিমাণে পানি, ভিটামিন কে, সিলিকা, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি এবং ক্লোরোফিল রয়েছে যা আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী।

প্রতিদিন শসার রস পর্যাপ্ত পরিমাণে পান করলে মূত্রাশয়ে পাথর হবার ভয় থাকে না। এছাড়াও এটি আমাদের আরও অনেক উপকার করে। নিম্নে তা আলোচনা করা হল-
১. শরীর হাইড্রেড রাখে: প্রতিদিন মাত্র এক গ্লাস শসার রস পান করলে আপনার শরীরের পানিশূন্যতা কমে যাবে। শরীরের সকল বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করবে।

২. ক্যান্সার প্রতিরোধ করে: প্রতিদিন এক গ্লাস শসার রস পান করলে শরীরে ক্যান্সার প্রতিরোধ করার শক্তি বৃদ্ধি পায়। শসায় লারিসিরেসিনল, পিনোরেসিনল এবং সেকইসলারিসিরেসিনল রয়েছে যা ক্যান্সার প্রতিরোধে কার্যকরী ভুমিকা পালন করে।

৩. হজমশক্তি বৃদ্ধি করে: শসার পানি পান করলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়। শসায় প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে যা হজম ত্বরান্বিত করে।

৪. ওজন কমায়: শসা যেভাবেই খান না কেন এটি ওজন কমাতে মুখ্য ভুম…

স্ট্রোক রোগীদের তাত্ক্ষণিক ট্রিটমেন্ট - জেনে রাখা জরুরী

চীনের অধ্যাপকরা বলছেন যে - কারো স্ট্রোক হচ্ছে যদি এমন দেখেন তাহলে আপনাকে নিম্নলিখিত পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। যখন কেউ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয় তার মস্তিষ্ক কোষ ধীরে ধীরে প্রসারিত হয়।মানুষের ফার্স্ট এইড এবং বিশ্রামের প্রয়োজন হয়।
যদি দেখেন স্ট্রোকে আক্রান্ত ব্যক্তিকে সরানো যাবে না কারন মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ বিস্ফোরিত হতে পারে, এটা ভাল হবে যদি আপনার বাড়ীতে পিচকারি সুই থাকে, অথবা সেলাই সুই থাকলেও চলবে , আপনি কয়েক সেকেন্ডের জন্য আগুনের শিখার উপরে সুচটিকে গরম করে নেবেন যাতে করে জীবাণুমুক্ত হয় এবং তারপর রোগীর হাতের 10আঙ্গুলের ডগার নরম অংশে ছোট ক্ষত করতে এটি ব্যবহার করুন।এমনভাবে করুন যাতে প্রতিটি আঙুল থেকে রক্তপাত হয়, কোন অভিজ্ঞতা বা পূর্ববর্তী জ্ঞানের প্রয়োজন হবে না । কেবলমাত্র নিশ্চিন্ত করুন যে আঙ্গুল থেকে যথেষ্ট পরিমাণে রক্তপাত হচ্ছে কি না। এবার 10 আঙ্গুলের রক্তপাত চলাকালীন, কয়েক মিনিটের জন্য অপেক্ষা করুন দেখবেন ধীরে ধীরে রোগী সুস্থ হয়ে উঠছে।
যদি আক্রান্ত ব্যক্তির মুখ বিকৃত হয় তাহলে তার কানে ম্যাসেজ করুন। এমনভাবে তার কান ম্যাসেজ করুন যাতে ম্যাসেজের ফলে তার কান লাল হয়ে যায় এবং এর অর…

জেনে নিন কিভাবে ডিভি লটারির জন্য আবেদন করবেন

বৈধ পন্থায় আমেরিকা যাওয়ার সপ্ন অনেকেরই। সেই সপ্নপূরনের পথে আরেকধাপ ডাইভার্সিটি ভিসা বা ডিভি লটারি। প্রতি বছরের মত এবারো যুক্তরাষ্টের পররাষ্ট মন্ত্রনালয় আয়োজন করেছে ডাইভার্সিটি ভিসা বা ডিভি-২০১৭ কর্মসূচী।

ডিভি লটারির আবেদন করার নিয়ম
প্রতিবছর বিভিন্ন দেশের প্রায় ৫৫০০০ লোক লটারীর মাধ্যমে এই ভিসা কর্মসুচীর আওতায় আমেরিকায় স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ পায়।এই ভিসার জন্য আবেদন করতে কোনো ফি দিতে হয় না। শুধু ডিভি বিজয়ীদের ভিসা গ্রহনের সময় নির্ধারীত ফি দিতে হয়।
আবেদন করার সময় যা যা পূরন করতে হবেঃ
ডিভি ওয়েবসাইটের নির্ধারিত আবেদনের ফরমে লিম্নলিখিত জিনিসগুলো সতর্কতার সহিত পূরন করবেনঃ

১। আবেদনকারীর পুরোনাম
২। জন্মতারিখ
৩। জন্মস্থান ( প্রার্থী যে শহরে/জেলায় জন্মগ্রহন করেছে/জন্মনিবন্ধন কার্ডে যা উল্লেখ আছে)
৪। দেশ
৫। আবেদনকারীর ছবি
৬। পুর্ণঠিকানা
৭। বর্তমানে যেই দেশে বসবাস করছেন।
৮। ফোন নম্বর ( যদি থাকে)
৯। ই-মেইল এড্রেস ( যদি থাকে)
১০। সর্বোচ্চ শিক্ষাগত যোগ্যাতা
১১। বৈবাহিক অবস্থা
১২। সন্তানের সংখ্যা ( সন্তানের বয়স ২১ বছরের নিচে হলে )
১৩। স্বামী/ স্ত্রী সংক্রান্ত তথ্য (আবেদনকারী স্…

ওষুধ ছাড়াই প্রাকৃতিক উপাদানে জীবানুনাশক

প্রায় শতবর্ষ পূর্বে ১৯২৮ সালে যুগান্তকারী জীবানুনাশক পেনিসিলিন আবিষ্কারের পূর্ব পর্যন্ত বিশ্বের মানুষ ইনফেকশন বা জীবানুর সংক্রমণ থেকে রক্ষার জন্য প্রাকৃতিক উপাদান বা ন্যাচারস এন্টিবায়োটিকস ব্যবহার করতো। এমনকি ইসলামিক স্কলার ও চিকিত্সাবিদগণও এসব ন্যাচারস এন্টিবায়োটিকস সম্পর্কে নানাভাবে উল্লেখ করেছেন।
শতবর্ষ পরে আজকের আধুনিক বিজ্ঞান ঐ সব ন্যাচারস এন্টিবায়োটিকস সম্পর্কে গবেষণা করে চমৎকার সব তথ্য দিচ্ছেন। বিদেশি স্বাস্থ্য ম্যাগাজিন অবলম্বনে আজকের লেখা প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া জীবানুনাশক বা ন্যাচারস এন্টিবায়োটিকস নিয়ে। এ ধরনের ১৭টি প্রাকৃতিক উপাদানের তথ্য তুলে ধরা হলো যাতে জীবানুনাশক উপাদান রয়েছে। এসব উপাদান হচ্ছে, অল স্পাইস, অ্যাসপারাগাস, ব্যাসিল, বিয়ার বেরি, ব্লুবেরি, চেরি, ক্রানবেরি, একিনাসিয়া, ইউক্যালিপটাস, রসুন, গোল্ডেনসিল, গ্রিনটি, মধু, অবিগানো, পমিগ্রানেট, টি ট্রি ও ইয়োগার্ট ইত্যাদি।
বিশেষজ্ঞগণ নানা গবেষণায় দেখেছেন অলস্পাইস খাবারে ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিকে রোধ করে। অ্যাসপারাগাস শ্বেত কনিকাকে শক্তি যোগায় যাতে করে ই-কলাই ও স্টাফাইলো কক্কাসের মত জীবানু সংক্রমণ রোধ করে। বাসিল অয়েল ক্ষত সারাতে ক…

রোজ দুই কোয়া রসুন খাওয়ার ৩৪টি উপকারিতা

মানব দেহে কিছু কিছু সমস্যা আছে যেগুলোর সমাধান আমরা পেতে পারি খুব সহজে। আমাদের দেহে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান লুকিয়ে আছে আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকা রসুনের মধ্যে। কিন্তু মুখে দুর্গন্ধ হওয়ার ভয়ে অনেকেই কাঁচা রসুনের কাছ থেকে দূরেই থাকেন। কিন্তু বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যায় কাঁচা রসুনের স্বাস্থ্য উপকারিতা অনেক বেশি। বিশেষ করে নানা ধরণের শারীরিক সমস্যা দূর করতে কাঁচা রসুনের জুড়ি নেই। ইউনিভার্সিটি অফ হেলথ অ্যান্ড মেডিক্যাল সাইন্সের গবেষণায় রসুনের এই সকল গুণাবলী প্রকাশ পায়। আজ জেনে নিন রসুনের এমনই অসাধারণ কিছু গুণাবলী সম্পর্কে।

জেনে নিন প্রতিদিন মাত্র ২ কোয়া রসুন খাওয়ার উপকারিতাঃ
১. হৃদপিণ্ডের সুস্থতায় কাজ করে। কোলেস্টেরল কমায়। এতে করে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমে।
২. শিরা উপশিরায় প্লাক জমতে বাঁধা প্রদান করে। রক্ষা করে শিরা উপশিরায় মেদ জমার মারাত্মক রোগ অথেরোস্ক্লেরোসিসের হাত থেকে।
৩. উচ্চ রক্ত চাপের সমস্যা দূর করে।
৪. গিঁট বাতের সমস্যা থেকে রক্ষা করে।
৫. ফ্লু এবং শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।
৬. অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান দেহে খারাপ ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ, জন্ম এবং বংশবিস্তারে বাঁধা প…

এই পোকা কামড় দিলে সারা জীবন মাংস খাওয়া বন্ধ..!

পৃথিবীতে কত ধরনের পোকামাকড়ই না আছে। এর মধ্যে প্রজাতিভেদে নানা ধরনের বিষধর পোকার কামড়ের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও ভিন্ন রকমের। এ রকমই একটি পোকা হচ্ছে লোন স্টার টিক।এই পোকার কামড়ের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া মানুষের জন্য একটু অদ্ভুত ও বেশ দুঃখজনক বলা যায়। কারণ এই পোকার কামড় খেলে সারা জীবনের জন্য মানুষকে মাংস খাওয়া ভুলে যেতে হবে। পুরোপুরি নিরামিষাশী হয়ে যাওয়া লাগবে এই পোকা কারো শরীরে মাত্র একবার কামড় বসালেই।

মাংস খেতে কার না ভালো লাগে। অথচ লোন স্টার টিক নামক এই পোকা কাউকে একবার কামড়ে দিলে, সে অন্য সবকিছু খেতে পারলেও খাদ্যতালিকা থেকে মাংস সারা জীবনের জন্য বাদ দিতে হবে।
কারণ লোন স্টার টিকের দেহে থাকে আলফা জেল নামে এক ধরনের পদার্থ, যা মানুষের শরীরে রক্তের সঙ্গে মিশে ইমিউন সিস্টেমকে দুর্বল করে দেয়। এমনিতে শাকসবজি ফলমূল খেলে তাতে একদমই অসুবিধা হয় না। হজমশক্তিরও কোনো পরিবর্তন হয় না। কিন্তু মাংস খেলেই শরীরে দেখা দেয় অ্যালার্জি। সেই অ্যালার্জির নানা রকম প্রতিক্রিয়ায় হতে পারে শ্বাসকষ্ট, চর্মরোগ, চামড়া ফুলে যাওয়া থেকে বমি পর্যন্ত।

চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত এই অ্যালার্জির অ্যান্টিডোজ তৈরি করতে পারেননি। তাই এ…

দাস ব্যবসায়ের আধুনিক সংস্করন

[মধ্যযুগে চার শ’ বছরব্যাপী দাস ব্যবসায় ইউরোপিয়ানরা আফ্রিকা থেকে অন্তত এক কোটি কালো মানুষকে পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠিয়েছিল। এর মাত্র ৫ শতাংশ বর্তমান যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হয়েছিল। হত্যা ও মৃত্যুর পরও ১৭৯০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় সাত লাখ নিগ্রো ক্রীতদাস ছিল। নিগ্রো বংশোদ্ভূত এবং নানাভাবে আগত বা মুক্ত আফ্রিকানরা এই হিসাবের বাইরে ছিল। দাস ব্যবসায় এখন নিষিদ্ধ। কিন্তু পতিতাবৃত্তি, শিশুশ্রমিকসহ নতুন নতুন অবয়বে এখন প্রতি বছর প্রায় আট লাখ দাস দেশান্তরী হয়।

মানব ইতিহাসের যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন দাস ব্যবসায় সবচেয়ে জঘন্যভাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। রিডার্স ডাইজেস্ট অবলম্বনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো। আসিফ হাসান ]

পতিতাবৃত্তি এবং বাধ্যতামূলক শ্রম এখন বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বিকাশমান অপরাধমূলক কাজে পরিণত হয়েছে। আকার ও পরিধি বিবেচনায় ড্রাগ ও অস্ত্রের পর এটাই এখন দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থানান্তরিত পণ্য। এটা এখন ১৯ বিলিয়ন ডলারের শিল্প এবং এতে দুই কোটি ৭০ লাখ লোক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অলাভজনক মানবাধিকার সংস্থা ফ্রি দ্য স্লেভস-এর সভাপতি ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা কেভিন বেলেস বলেন, ‘মানব ইতিহাসের যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন অনেক বেশি লোক …

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সুখবর!

রক্তনালির রোগে যেসব ডায়াবেটিক রোগী শরীরের অঙ্গ হারিয়েছেন, তাঁদের জন্য আশার হাতছানি দিচ্ছেন গবেষকেরা। শরীরে প্রবেশযোগ্য নতুন একধরনের সঞ্জীবনী জেলির মতো তরল আবিষ্কৃত হয়েছে, যা রক্তনালি-সংক্রান্ত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ইঁদুরের শরীরে নতুন রক্তনালি সৃষ্টি এবং অঙ্গের ভেতর দিয়ে পুনরায় রক্ত চলাচল স্বাভাবিক করতে পারে। গবেষকদের দাবি, কয়েক বছরের মধ্যেই এটি মানবদেহে পরীক্ষা করে দেখার উপযোগী হবে।

পেরিফেরাল ভাসকুলার ডিজিজ হলো এমন এক ব্যয়বহুল ধ্বংসাত্মক রোগ, যা লাখ লাখ মানুষকে আক্রান্ত করছে এবং যার কোনো দীর্ঘমেয়াদি চিকিৎসাপদ্ধতি নেই। ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে এই রোগ আরও ভয়াবহ। ২৫ শতাংশ ডায়াবেটিস রোগীকে এ রোগের কারণে অঙ্গহানির শিকার হতে হয়। যুক্তরাষ্ট্রের অস্টিনে অবস্থিত ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাসের বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক অ্যারন বেকার সঞ্জীবনী জেল তৈরির পেছনের এই গবেষক দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন।
তাঁদের সাম্প্রতিক গবেষণার ফলাফল জানিয়েছে, তাঁদের উদ্ভাবিত রিজেনারেটিভ জেল, আক্রান্ত অঙ্গের রক্তনালিতে ৮৫ শতাংশ ক্ষেত্রে রক্তের স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করেছে। অ্যারন জানান, এ ধরনের র…

ওজন কমানোর মহৌষধ ঝিঙে

খাবারে অরুচি হলে কচি ঝিঙে ও শিং মাছের ঝোল খান অনেকে। তবে কুচো চিংড়ি আর ঝিঙের যুগলবন্দীর কোনো জবাব নেই। ভাজি কিংবা ভর্তা হিসেবেও ঝিঙে খেতে দারুণ। তবে কেবল সুস্বাদুই নয়, এর অসাধারণ ভেষজ গুণ রয়েছে। পাশাপাশি বাড়তি ওজন ঝরাতে চান যারা, তাঁরা নিয়মিতই ঝিঙে রাখতে পারেন খাদ্যতালিকায়। কারণ, এতে যেকোনো সবজির তুলনায় বেশি আঁশ রয়েছে, যা বাড়তি মেদ ও কোলেস্টেরল কমিয়ে দেয়। তা ছাড়া খাবারে ঝিঙে রাখলে ঘন ঘন খাদ্য গ্রহণের ইচ্ছেও কমে যায়।
ইংরেজিতে রিজ গ্রাউন্ড নামে পরিচিত এই সবজি সারা বিশ্বে পুষ্টিকর খাবার হিসেবে স্বীকৃত। এতে খাদ্য-আঁশ ছাড়াও রয়েছে ভিটামিন সি, রিবোফ্ল্যাভিন, জিঙ্ক, লোহা, থায়ামিন ও ম্যাগনেশিয়াম।
১০০ গ্রাম ঝিঙেতে রয়েছে ৯৩ গ্রাম জলীয় অংশ, শূন্য দশমিক ৩ গ্রাম খনিজ পদার্থ, ২ দশমিক ৬ গ্রাম আঁশ, ৩০ কিলোক্যালরি খাদ্যশক্তি, ১ দশমিক ৮ গ্রাম আমিষ, ৪ দশমিক ৩ গ্রাম শর্করা, ১৬ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ৬ দশমিক ৭ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন এ ও ৩৩ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি। আসুন এবার ঝিঙের উপকারী দিকগুলো জেনে নেওয়া যাক।
ওজন নিয়ন্ত্রণের মহৌষধ: ঝিঙে খুবই কম ক্যালরি বা খাদ্যশক্তির একটি সবজি। এতে চর্বি নেই। এর আঁশ কোলেস্টেরল…

বাড়ির গ্যাস সিলিন্ডার কীভাবে ব্লাস্ট করে জেনে নিয়ে সতর্ক থাকুন

আজকের দিনে আমরা প্রায় সবাই বাড়িতে গ্যাস-সিলিন্ডার ব্যাবহার করি। অনেক সময় শোনা যায় যে সিলিন্ডার ব্লাস্ট হয়ে মানুষ মারা গেছেন। কিন্তু এই ব্লাস্ট কেন হয় তা আমরা অনেকেই জানি না। সবজিনিসের মত সিলিন্ডারেরও মেয়াদ শেষ বা expire date থাকে যা আমরা অনেকে জানি না। মেয়াদ শেষ হওয়া কোনও সিলিন্ডারকে ঘরে রাখা মানে টাইম বম রাখার সমান। ব্যাপার হল আমরা চিনব কিভাবে যে সিলিন্ডার মেয়াদপুর্ন?
ফটোতে মার্ক করা কালো রঙের লেখাটাই হল এক্সপায়ারি ডেট। এখানে A,B,C,D সংকেত দিয়ে বোঝানো হয়েছে। A= বছরের প্রথম তিন মাস যেমন জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি, মার্চ। B= তার পরের তিন মাস যেমন, এপ্রিল, মে, জুন। একইভাবে C,D দ্বারা ক্রমানুসারে বাকি ছয় মাসকেই বোঝানো হয়। আর সবার শেষে বছরের শেষ দুই ডিজিট থাকে, অর্থাৎ C13 (2013 ইং) যদি C18 থাকে তারমানে হল 2018 সালের জুলাই, আগস্ট, অথবা সেপ্টেম্বর মাসেই আপনার সিলিন্ডারের মেয়াদ বা (expire date) হবে।

হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে যে কাজ গুলো করবেন

হৃৎপিণ্ডের সুস্থতায় অনেকেই অনেক কাজ করে থাকেন। নিয়মিত এবং পরিমিত খাওয়া দাওয়া, শারীরিক ব্যায়াম, মানসিক চাপ মুক্ত থাকার চেষ্টা সবই হৃৎপিণ্ডকে রাখে সুস্থ এবং সবল। বয়স হয়ে যাওয়ার পরও এই ধরনের অভ্যাস গুলো হৃৎপিণ্ডকে রাখবে কর্মক্ষম। এছাড়াও কিছু অদ্ভুত কাজ রয়েছে যা করার অভ্যাস করলে হৃৎপিণ্ড থাকবে সুস্থ। আসুন জেনে নেই সেই ৪টি “অদ্ভুত” কাজ যা হৃৎপিণ্ডকে সুস্থ রাখার জন্য বেশ কার্যকরী।
প্রতিদিন ডার্ক চকলেট খাওয়া :- বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে যাদের প্রতিদিন ডার্ক চকলেট খাওয়ার অভ্যাস রয়েছে তারা কার্ডিওভাসকুল্যার সমস্যা এবং স্ট্রোক হওয়ার সম্ভাবনা থেকে নিরাপদে থাকেন। প্রতিদিন সামান্য ডার্ক চকলেট দেহের বাড়তি কোলেস্টরল শুষে নেয়ার কাজ করে এবং রক্তের প্রোটিনের মাত্রা পরিমিত রাখে। এতে হৃৎপিণ্ড থাকে সুস্থ।

ট্র্যাফিক জ্যাম থেকে দূরে থাকা :- কাজটি বেশ কঠিন হলেও এই কাজটি আপনার হৃৎপিণ্ডকে রাখবে সুস্থ ও সবল। ডাক্তাররা বলেন ট্র্যাফিক জ্যামে বসে অস্থির সময় পার করলে, জ্যামের অসহনীয় হর্ন এবং শব্দ সবই রক্ত চাপের মাত্রা বাড়ায়। এতে স্ট্রোকের সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায় এবং হৃৎপিণ্ডের সমস্যা বাড়ে। তাই ট্র্যাফিক জ্যাম থেকে …

করল্লা দূর করবে ক্যান্সার, ডায়বেটিস ও অন্যান্য শারীরিক সমস্যা

বিটার মেলন যার বাংলা নাম করল্লা এমন একটি সবজি যা দূর করতে পারে কান্সা, ডায়বেটিস এবং অন্যান্য অনেক মারাত্মক সব শারীরিক সমস্যা। যদিও এর তেতো স্বাদের কারণে কারো মুখে রোচে না, কিন্তু শুধুমাত্র স্বাদের কথা ভেবে স্বাস্থ্যের কথা একেবারে ভুলে বসলেও চলে না।

দ্য নেভাডা সেন্টার অফ আল্টারনেটিভ অ্যান্ড অ্যান্টি এইজিং মেডিসিনের বিশেষজ্ঞ, ডঃ ফ্রাংক শ্যালেনবার্গার এম.ডি দেখতে পান এই করল্লার রয়েছে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধির প্রতিরোধ ক্ষমতা। এবং তিনি তার রোগীদের এই প্রাকৃতিক ক্যান্সার নিরাময়ের সবজিটি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধি প্রতিরোধের জন্য। তিনি তার নতুন গবেষণায় দেখতে পান করল্লার রস পানিতে মাত্র ৫% মিশ্রিত হয় যা প্রমাণ করে এটি অগ্ন্যাশয়ের ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে। করল্লার প্রায় ৯০%- ৯৮% পর্যন্ত ক্যান্সারের কোষ ধ্বংসের ক্ষমতা রয়েছে। দ্য ইউনিভার্সিটি অফ কলোরাডোর একটি গবেষণায় দেখা যায় করল্লা অগ্ন্যাশয়ের টিউমার প্রায় ৬৪% কমিয়ে আনতে সক্ষম।
এছাড়াও ডঃ শ্যালেনবার্গার তার গবেষণায় দেখতে পান, উচ্চ রক্ত চাপের সমস্যা, অ্যাজমা, ত্বকের ইনফেকশন, ডায়বেটিস এবং পাকস্থলীর নানা সমস্যা প্রতিরোধ কর…

ডায়াবেটিসে চিনির চেয়ে চাল বেশি ঝুঁকিপূর্ণ

বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে ডায়াবেটিস ‘মহামারী’ আকার ধারণ করেছে জানিয়ে আগামী বছরগুলোতে ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ইতোমধ্যে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডব্লিউএইচও’র আঞ্চলিক কার্যালয়।

ডায়াবেটিসের জন্য সাধারণত চিনি বা শর্করা জাতীয় খাবারকে দায়ী করা হয়। কিন্তু চিকিত্সকরা বলছেন, চিনি জাতীয় খাবারের চেয়ে ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ সাদা চাল। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান নির্বাহী জি ইয়ু ক্যাং বলেন, পশ্চিমা বিশ্বের জন্য স্থূলতা এবং শর্করা জাতীয় খাবার ডায়াবেটিসের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু ইন্দো-ইউরোপীয় দেশগুলোর চেয়ে এশিয়ার দেশগুলোতে এই ডায়াবেটিস নিয়ে বেশি আলোচনা হয় এবং আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। সাদা চাল খেলে শরীরে ব্লাড সুগারের পরিমাণ বাড়ে এবং সঙ্গে ডায়াবেটিসেরও উচ্চ ঝুঁকির সৃষ্টি হয়।
জি ইয়ু ক্যাং অন্তত চারটি গবেষণা থেকে এই তথ্য জানিয়েছেন। এই গবেষণা চালানো হয়েছে সাড়ে তিন লাখ মানুষের ওপর যাদের বয়স চার বছর থেকে বিশ বছর। হার্বার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথ এর করা এই গবেষণাটি ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে প্রকাশ করা হয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, দিনে নিয়মিত এক …

চর্মরোগের ওষুধ হলুদ

রান্নার কাজের নিত্য ব্যবহার্য মশলা হলুদ। রান্নার পাশাপাশি ওষুধ হিসেবেও হলুদের গুণাগুণ কম নয়। গ্যাস-অম্বল প্রতিরোধ, মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি, ক্যান্সার প্রতিরোধ, শরীরের ব্যথা নিয়ন্ত্রণ, হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখাসহ আমাদের শরীরের বিভিন্ন উপকারে লাগে মসলাজাতীয় এই পণ্যটি। তারুণ্য ধরে রাখতেও এই পণ্য ব্যবহার করা যায়। চর্মরোগ প্রতিরোধেও ভূমিকা রাখে হলুদ। অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের পাশাপাশি শরীরের প্রদাহরোধক এবং জীবাণুরোধক ক্ষমতা রয়েছে এই পণ্যে। যা ফলিকিউলিটিস নামক চর্মরোগ নিরসনে সাহায্য করে। 
ফলিকিউলিটিস রোগের নিরাময়ে প্রয়োজনীয় উপকরণ - হলুদ গুঁড়া এবং গরম পানি বা দুধ।  ফলিকিউলিটিস রোগের নিরাময়ে হলুদের ব্যবহার বিধি :-  এক কাপ হালকা গরম পানির সঙ্গে এক চা চামচ হলুদ গুঁড়া মিশিয়ে তা পান করতে হবে। গরম পানির পরিবর্তে গরম দুধ দিয়েও এই মিশ্রণ তৈরি করা যায়। ২-৩ বার করে কমপক্ষে এক সপ্তাহ এই মিশ্রণ পান করলে ফলিকিউলিটিস রোগের নিরাময়ে ভালো ফল পাওয়া যায়।  পানি বা দুধের সঙ্গে হলুদের মিশ্রণ পান করতে না পারলেও আক্রান্ত স্থানে এটি ব্যবহার করলেও ফলিকিউলিটিস রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আক্রান্ত স্থানে লাগানোর ক্ষেত্রে পানি বা…

বাংলাদেশের জন্য বজ্রপাত নতুন এক দুর্যোগ ! বজ্রপাতের সময় করণীয় কি ?

বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর বলছে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেশটিতে বজ্রপাতে মানুষ মারা যাবার সংখ্যা আগের তুলনায় বেড়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন, এ বছর এখনও পর্যন্ত বজ্রপাতে অন্তত ৮০ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার একদিনেই বজ্রপাতে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বজ্রপাতে ৩৫জন মারা গেছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। যদিও স্থানীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম বলছে মৃতের সংখ্যা ৪০ জনের বেশি।

বজ্রপাতে মানুষ মারা যাবার সংখ্যা যেমন বাড়ছে তেমনি বজ্রপাতের প্রবণতাও বেড়েছে। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রুবাইয়াত কবির জানিয়েছেন দেশের কিছু জায়গা বজ্রপাত-প্রবণ।

এর মধ্যে উত্তরাঞ্চল এবং উত্তর পশ্চিমাঞ্চল অন্যতম। গ্রীষ্মকালে এ অঞ্চলে তাপমাত্রা বেশি থাকায় এ পরিস্থিতির তৈরি হয় বলে জানালেন মি: কবির।
তিনি বলেন যেসব এলাকায় গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকে সেসব এলাকায় যে মেঘের সৃষ্টি হয়, সেখান থেকেই বজ্রপাতের সম্ভাবনা থাকে।

বজ্রপাত বেড়ে যাবার কারণ কী সেটি নিয়ে বাংলাদেশে বিস্তারিত কোন গবেষণা নেই। তবে আন্তর্জাতিকভাবে বিভিন্ন গবেষক এর নানা কারণ তুলে ধরেন।

কোন কোন গবেষক বলেন তাপমা…

ঢাকায় মহাবিপদ ডাবের পানিতে … শেয়ার করুন

ঢাকার ডাবের পানি পান থেকে সাবধান! যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। ঢাকার ডাবের পানি পান করলে ডেকে আনতে পারে মহাবিপদ। রাজধানীর সংঘবদ্ধ একটি চক্র ডাব বিক্রেতাদের সঙ্গে আঁতাত করে ডাবের পানিতে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে রাখে। ক্রেতারা ডাব কিনে পানি পান করার কিছুক্ষণ পর অচেতন হয়ে পড়লে ওঁৎপেতে থাকা চক্রটি ওই লোক অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে তার সর্বস্ব লুটে নেয়।

কেউ জানতে চাইলে চক্রটি বলে, অচেতন হওয়া লোকটি তাদের আত্মীয়। তখন লোকজন তার আশপাশে ভিড় করে না। জানা গেছে, চক্রটি রাজধানীর কিছু কিছু এলাকা টার্গেট করে। তবে ব্যস্ততম এলাকাকে তারা বেছে নেয়, যাতে কেউ কারো খবর না রাখে। চক্রটি ইনজেকশনের সিরিঞ্জের মাধ্যমে ডাবে নেশাজাতীয় ওষুধ পুশ করে।

পরে ওই ছিদ্রস্থান আঠাজাতীয় বা সুপারব্লু দিয়ে বন্ধ করে দেয়, তাতে বুঝার কোনো উপায় থাকে না। চক্রটির টার্গেট করা ডাবের পানি খেলেই মহাবিপদ। এমন বিপদে পড়ে গত ৮ অক্টোবর মারা যান গাজীপুরের সেলিম। রাজধানীর মহাখালীতে ডাবের পানি পান করেছিলেন আব্দুস সেলিম (৪০)। ওইদিন রাত ৩টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার।
এবার ডাব কিনে খেয়ে প্রাণ গেল ৫৫ বছর বয়সী হাজী মহসিন…

আবিষ্কার হল ক্যান্সারের টিকা, শরীরের যেকোনো অংশে ছড়িয়ে থাকা ক্যান্সারের জীবাণু ধ্বংস করবে:দাবি গবেষকদের

লন্ডন:ক্যান্সার জ্যাজ নো অ্যানসার। অবলুপ্ত হতে মারণরোগ ক্যান্সার নিয়ে প্রচলিত এই প্রবাদটি। কারণ অবিষ্কার হয়েছে মানব শরীরে ক্যান্সারে জীবাণু ধ্বংসকারী টিকা ‘ক্যান্সার ভ্যাকসিন'(Cancer Vaccine)। এই টিকে শরীরের যেকোনো অংশে ছড়িয়ে থাকা ক্যান্সারের জীবাণু ধ্বংস করবে বলে দাবি করেছেন গবেষকেরা।

ইতিহাস সৃষ্টিকারী এই টিকা এখনও পরীক্ষামূলক অবস্থায় রয়েছে। কিন্তু, প্রথমবার এক রোগীর শরীরে প্রয়োগ করার পর ইতিবাচক ইঙ্গিত মিলেছে। লন্ডনের বেকেনহ্যামের বাসিন্দা কেলি পটারের শরীরে প্রথম প্রয়োগ করা হয় ওই টিকা। ৩৫ বছরের ওই মহিলা জরায়ুতে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। তাঁর শরীরে যখন ক্যান্সারের টিকা প্রয়োগ করা হয় তখন ক্যান্সার পৌঁছে গিয়েছে চতুর্থ পর্যায়ে। তাঁর লিভার এবং ফুসফুসের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছিল ক্যান্সারের জীবাণু। টিকা দেওয়ার পর তাঁর শরীরে ক্যান্সারের ব্যাপ্তি এখন অনেক স্থিতিশীল হয়েছে। একইসঙ্গে লিভার ও ফুসফুসের মধ্যে জীবাণু ছড়িয়ে পড়াও বন্ধ হয়েছে। আগের চেয়ে এখন অনেক ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন কেলি পটার।
শুধুমাত্র ক্যান্সার নয় মানব শরীরের অনেক মারণরোগ নিরাময় করতে এই টিকা কাজ করবে বলে জানিয়েছেন এই টিকা নিয়ে গবেষণা…

এলার্জিকে আজীবনের জন্য গুডবাই দিন

এলার্জিজনিত রোগের লক্ষণ ও করণীয় এলার্জি বাংলাদেশের লাখ লাখ মানুষের কাছে এক অসহনীয় ব্যাধি। এলার্জি হাঁচি থেকে শুরু করে খাদ্য ও ওষুধের ভীষণ প্রতিক্রিয়া ও শ্বাসকষ্ট হতে পারে। কারো কারো ক্ষেত্রে এলার্জি সামান্যতম অসুবিধা করে, আবার কারো ক্ষেত্রে জীবনকে দুর্বিষহ করে তোলে। ঘরের ধুলাবালি পরিষ্কার করছেন? হঠাৎ করে হাঁচি এবং পরে শ্বাসকষ্ট অথবা ফুলের গন্ধ নিচ্ছেন বা গরুর মাংস, চিংড়ি, ইলিশ ও গরুর দুধ খেলেই শুরু হলো গা চুলকানি বা চামড়ায় লাল লাল চাকা হয়ে ফুলে ওঠা। এগুলো হলে আপনার এলার্জি আছে ধরে নিতে হবে। মানব জীবনে এলার্জি কতটা ভয়ংকর সেটা ভুক্তভোগী যে সেই জানে। উপশমের জন্য কতজন কত কি না করেন। এবার প্রায় বিনা পয়সায় এলার্জিকে গুডবাই জানান আজীবনের জন্য। যা করতে হবে আপনাকে –
১) ১ কেজি নিম পাতা ভালো করে রোদে শুকিয়ে নিন।

২) শুকনো নিম পাতা পাটায় পিষে গুড়ো করুন এবং সেই গুড়ো ভালো একটি কৌটায় ভরে রাখুন।

৩) এবার ইসব গুলের ভুষি কিনুন। ১ চা চামচের তিন ভাগের এক ভাগ নিম পাতার গুড়া ও এক চা চামচ ভুষি ১ গ্লাস পানিতে আধা ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন।

৪) আধা ঘন্টা পর চামচ দিয়ে ভালো করে নাড়ুন।

৫) প্রতি দিন সকালে খ…

যে ৭ টি খাবার রক্তনালী ব্লক হওয়া প্রতিরোধ করবে…

অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন এবং অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের কারণে রক্তনালী ব্লক হওয়া খুবই স্বাভাবিক একটি ব্যাপার। এবং শুধুমাত্র এই কারণে হৃদপিণ্ডের নানা সমস্যায় ভুগতে দেখা যায় অনেককে। এমনকি হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুমুখে পতিত হন অনেক রোগীই।

কিন্তু রক্তনালী ব্লক হওয়ার এই সমস্যা থেকে খুবই সহজে মুক্ত থাকা যায় চিরকাল। আপনাকে এর জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় করতে হবে না একেবারেই। খুবই সহজলভ্য কয়েকটি খাবার আপনার রক্তনালীর সুস্থতা নিশ্চিত করবে।

(১) আপেলঃ আপেলে রয়েছে পেকটিন নামক কার্যকরী উপাদান যা দেহের খারাপ কোলেস্টেরল কমায় ও রক্তনালীতে প্লাক জমার প্রক্রিয়া ধীর করে দেয়। গবেষণায় দেখা যায় প্রতিদিন মাত্র ১ টি আপেল রক্তনালীর শক্ত হওয়া এবং ব্লক হওয়ার ঝুঁকি প্রায় ৪০% পর্যন্ত কমিয়ে দেয়।
(২) ব্রুকলিঃ ব্রকলিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন কে যা দেহের ক্যালসিয়ামকে হাড়ের উন্নতিতে কাজে লাগায় এবং ক্যালসিয়ামকে রক্তনালী নষ্ট করার হাত থেকে রক্ষা করে থাকে। ব্রকলির ফাইবার উপাদান দেহের কোলেস্টেরল কমায় এবং উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।

(৩) দারুচিনিঃ দারুচিনির অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কার্ডিওভ্যস্কুলার সিস্টেমের সার্বিক উন্নত…

মোবাইল, ট্যাব, কম্পিউটার থেকে এখনই “এসএসসি – ২০১৬” রেজাল্ট দেখুন মার্কশিটসহ!

২০১৬ সালের মাধ্যমিক (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল আগামী ১১ মে (বুধবার) প্রকাশ হবে। এসএসসি পরীক্ষা ২০১৬ রেজাল্ট সম্পর্কে শিক্ষাসচিব সোহরাব হোসাইন গণমাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সাধারণত দুই মাসের মধ্যে পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হয়। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না।

এর আগে ১০ বা ১১ মে ফলাফল প্রকাশের সম্মতি চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিকট প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিলো। প্রধানমন্ত্রীর সম্মতি অনুযায়ী ১১ মে উক্ত ফলাফল প্রকাশের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এসএসসি পরীক্ষা ২০১৬ এর তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ১০ মার্চ শেষ হয়। আর ১৫-১৯ মার্চের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। রেজাল্ট দেখতে এই লিঙ্ককে ক্লিক করুন তত্ত্বীয় পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মাথায় গত কয়েক বছর থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে আসছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এবার মোট ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৫২৩ শিক্ষার্থীর মধ্যে এসএসসিতে ১৩ লাখ ৪ হাজার ২৭৪ জন, মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে ২ লাখ ৪৮ হাজার ৮৬৫ এবং এসএসসি ভোকেশনালে (কারিগরি) ৯৮ হাজার ৩৮৪ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়।

প্রচলিত নিয়ম অনুসারে ফলাফল প্রকাশের দিন গণভবনে প্…

যে ৬টি খাবার আপনার পেটকে ভরিয়ে রাখবে টানা অনেকক্ষণ

ক্ষুধা কি শুধু শারীরিক অনুভূতি? একদমই না। সুস্বাদু কোন খাবার আমাদের চোখের সামনে আসলেও আমাদের খাওয়ার ইচ্ছা জাগে। স্বাস্থ্যকর ক্ষুধা স্বাস্থ্যের জন্য ভাল। কিন্তু যখন তখন ক্ষুধা লেগে যাওয়া বা খাওয়ার ইচ্ছা কখনও ভাল নয়। ক্ষুধা বৃদ্ধি অস্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রা, স্ট্রেস, উদ্বিগ্নতা, হতাশা ইত্যাদি বিভিন্ন মানসিক কারণ জড়িত। হঠাৎ করে আপনার ওজন বৃদ্ধি শুরু হয়েছে। আপনি কি জানেন এই ক্ষুধা বৃদ্ধি অনেকখানি দায়ী আপনার ওজন বৃদ্ধির জন্য? এমন কিছু খাবার আছে যা আপনার পেটকে দীর্ঘক্ষণ ভরিয়ে রাখার পাশাপাশি আপনার ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে। 
১। ওটস :-  সকালটা শুরু করুন এক বাটি ওটস দিয়ে। এটি সারাদিনের কাজের শক্তি দিয়ে থাকে। এটি ছয় সপ্তাহের মধ্যে আপনার কোলেস্টেরল মাত্রা ৫% পর্যন্ত কমিয়ে দেবে। শুধু তাই নয় দীর্ঘক্ষণ আপনার পেট ভরিয়ে দেবে এই একটি খাবার।  ২। আপেল :- আপেল দ্রবণীয় আঁশ সমৃদ্ধ খাবার যা অতিরিক্ত খাওয়া প্রতিরোধ করে। আপেলে ক্যালরির পরিমাণ কম পানির পরিমাণ বেশি হওয়ার কারণে এটি ওজন বৃদ্ধি না করে শরীরে এ্যার্নাজি বৃদ্ধি করে থাকে। দীর্ঘ সময় ক্ষুধা নিবারণের জন্য এই ফলটি বেশ কার্যকর।  ৩। ডিম :-  প্রোটিনের অন্যতম উৎ…

চর্বিযুক্ত খাবারের কুপ্রভাব কাটাতে আঙ্গুর

অনেকেই উচ্চচর্বিযুক্ত খাবার পছন্দ করেন। কিন্তু স্বাস্থ্যের ক্ষতি হতে পারে, এমন আশঙ্কায় এসব খাবার এড়িয়ে চলেন। এ ধরনের মানুষের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছেন বিজ্ঞানীরা।

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় তারা দেখিয়েছেন, আঙ্গুরের মধ্যে থাকা পলিফেনলস চর্বিযুক্ত খাবারের কুপ্রভাব কাটিয়ে উঠতে শরীরকে সহায়তা করে।

বৈচিত্র্যপূর্ণ পুষ্টি উপাদান ও পলিফেনলস অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট-সমৃদ্ধ আঙ্গুরের সুনাম অনেক আগে থেকেই। স্বাস্থ্যক্ষেত্রে জনপ্রিয় এ ফলের ইতিবাচক ভূমিকাই এ সুনামের কারণ। আর এখন এর সঙ্গে যুক্ত হলো উচ্চচর্বিযুক্ত খাবারের নেতিবাচক প্রভাবকে নিষ্ক্রিয় করার ক্ষমতাও।
শরীরের ওপর সম্পৃক্ত চর্বি নেতিবাচক প্রভাব রাখে। এ নেতিবাচক প্রভাব হ্রাসে আঙ্গুরে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পলিফেনলসের ভূমিকা নির্ণয়ের লক্ষ্যে ইউনিভার্সিটি অব ক্যারোলাইনা গ্রিনসবোরোর বিজ্ঞানীরা গবেষণা চালান। বিশ্ববিদ্যালয়টির পরীক্ষাগারে এ-সম্পর্কিত দুটি পরীক্ষা চালানো হয়। গবেষণায় নেতৃত্ব দেন মাইকেল ম্যাকিনটশ। এ-বিষয়ক নিবন্ধটি জার্নাল অব ন্যাশনাল বায়োকেমিস্ট্রিতে প্রকাশ হয়েছে।

প্রথম পরীক্ষায় বিজ্ঞানীরা উচ্চচর্বিযুক্ত খাবার গ্রহণ করেন, এমন অংশগ্রহণকারীদের প্…