Disqus for digitalmesh

রবিবার, ৮ মে, ২০১৬

চর্বিযুক্ত খাবারের কুপ্রভাব কাটাতে আঙ্গুর

  • ৫:২৪ AM

    অনেকেই উচ্চচর্বিযুক্ত খাবার পছন্দ করেন। কিন্তু স্বাস্থ্যের ক্ষতি হতে পারে, এমন আশঙ্কায় এসব খাবার এড়িয়ে চলেন। এ ধরনের মানুষের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছেন বিজ্ঞানীরা।

    সাম্প্রতিক এক গবেষণায় তারা দেখিয়েছেন, আঙ্গুরের মধ্যে থাকা পলিফেনলস চর্বিযুক্ত খাবারের কুপ্রভাব কাটিয়ে উঠতে শরীরকে সহায়তা করে।

    বৈচিত্র্যপূর্ণ পুষ্টি উপাদান ও পলিফেনলস অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট-সমৃদ্ধ আঙ্গুরের সুনাম অনেক আগে থেকেই। স্বাস্থ্যক্ষেত্রে জনপ্রিয় এ ফলের ইতিবাচক ভূমিকাই এ সুনামের কারণ। আর এখন এর সঙ্গে যুক্ত হলো উচ্চচর্বিযুক্ত খাবারের নেতিবাচক প্রভাবকে নিষ্ক্রিয় করার ক্ষমতাও।
    শরীরের ওপর সম্পৃক্ত চর্বি নেতিবাচক প্রভাব রাখে। এ নেতিবাচক প্রভাব হ্রাসে আঙ্গুরে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পলিফেনলসের ভূমিকা নির্ণয়ের লক্ষ্যে ইউনিভার্সিটি অব ক্যারোলাইনা গ্রিনসবোরোর বিজ্ঞানীরা গবেষণা চালান। বিশ্ববিদ্যালয়টির পরীক্ষাগারে এ-সম্পর্কিত দুটি পরীক্ষা চালানো হয়। গবেষণায় নেতৃত্ব দেন মাইকেল ম্যাকিনটশ। এ-বিষয়ক নিবন্ধটি জার্নাল অব ন্যাশনাল বায়োকেমিস্ট্রিতে প্রকাশ হয়েছে।

    প্রথম পরীক্ষায় বিজ্ঞানীরা উচ্চচর্বিযুক্ত খাবার গ্রহণ করেন, এমন অংশগ্রহণকারীদের প্রতিদিন একটি আঙ্গুর খেতে দেন। ১১ সপ্তাহ পর দেখা যায়, তাদের শরীরের মোট চর্বির পরিমাণ কমেছে। একই সঙ্গে ত্বকের নিচে জমা হওয়া চর্বিও কমতে দেখা গেছে এ পরীক্ষায়। আর চর্বির পরিমাণের এ হ্রাসের ইতিবাচক প্রভাব দেখা গেছে অন্ত্রীয় অণুজীবের ওপর। উদাহরণস্বরূপ এটি শরীরে উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বাড়ানোর পাশাপাশি কমায় ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যাও।

    দ্বিতীয় পরীক্ষায় বিজ্ঞানীরা অংশগ্রহণকারীদের আরো উচ্চচর্বিযুক্ত খাবার গ্রহণের কথা বলেন। বিজ্ঞানীদের প্রস্তাবিত এসব খাবারের মধ্যে গরুর মাংস, মাখনসহ বিভিন্ন ধরনের সম্পৃক্ত চর্বিযুক্ত খাবার ছিল। ১৬ সপ্তাহ ধরে এসব খাবার গ্রহণের পর বিজ্ঞানীরা আঙ্গুর থেকে পাওয়া পলিফেনলস ও অন্যান্য অংশের প্রভাব বিচারের জন্য পরীক্ষা চালান। এখানেও পলিফেনলসের ইতিবাচক ভূমিকা শনাক্ত করেন বিজ্ঞানীরা।
    আধুনিক হোমিওপ্যাথি, ঢাকা
    ডাক্তার হাসান; ডি. এইচ. এম. এস(BHMC)
    যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
    ১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
    ফোন :- +88 01727-382671 এবং +88 01922-437435
    স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।