সর্বশেষ আপডেট
অপেক্ষা করুন...
বুধবার, ২৫ মে, ২০১৬

পেটে মেদ জমা কম-বেশি সবারি সমস্যা। এর কারণে আপনাকে দেখতে খারাপ লাগতে পারে, আপনার পছন্দের পোশাক আপনার জন্য টাইট হয়ে যেতে পারে এমনকি শারীরিক সমস্যাও হতে পারে। মেদ কিভাবে কমাবেন তা নিয়ে তো অনেক লেখালেখি হয়। কিন্তু কেন এই মেদ আপনার পেটে জমে তা জানেন তো? শুধু বেশি খাবার খাওয়ার জন্যই কিন্তু পেটে মেদ জমে না। এমন অনেক বদঅভ্যাস আছে যার কারণে আপনার পেটে মেদ জমে। তাহলে জেনে নিন এই বদঅভ্যাস গুলো কী কী-

১) অতিরিক্ত চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়া :- স্লিম পেট যান? তাহলে চিনি ও মিষ্টি জাতীয় খাবার খাওয়া বাদ দিন। বাদ না দিতে পারলে এসব খাওয়া কমিয়ে দিন। যেমন সপ্তাহে ২/৩ বার।
২) অপরিমিত ঘুম :- রাতে অপরিমিত ঘুমালেও কিন্তু পেটে মেদ জমতে পারে। এজন্য প্রতি রাতে অন্তত টানা ৬-৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করতে হবে।

৩) প্রতিদিন সোডা/ সফট ড্রিঙ্কস/ অ্যালকোহল সমৃদ্ধ পানীয় পান করা :- কোক, স্প্রাইট, মিরিন্ডা বা মাউন্টেন ডিউ ছাড়া আপনার দিন’ই চলে না? অথবা বিয়ার, ওয়াইন বা শ্যাম্পেইনের প্রতি রয়েছে আসক্তি? তাহলে স্লিম পেট পাওয়া কথা ভুলে যান। এসব না ছাড়লে পেটে মেদ জমতেই থাকবে।
 
৪) লো-ফ্যাট জাতীয় খাবার বেশি পরিমাণে খাওয়া :- লো-ফ্যাট জাতীয় খাবার বেশি খেলে শরীরের আকার কন্ট্রোলে থাকবে ভেবে যদি সারাদিন এ জাতীয় খাবার’ই খেতে থাকেন তাহলেও কিন্তু পেটে মেদ জমবে। লো ফ্যাট জাতীয় খাদ্যে ফ্যাটের পরিমাণ কমানোর জন্য স্যুগারের পরিমাণ অত্যন্ত বেশি থাকে, যা মেদ জমাতে ওস্তাদ। তাই সাবধান লো-ফাট জাতীয় খাবার থেকেও ।
 
৫)পরিমিত পানি পান না করা :- পরিমিত পানি পান না করলেও এই সমস্যায় পরতে পারেন। কেননা আপনি যত বেশি পানি খাবেন আপনার পেট তত কম খালি থাকবে তাই আপনি খেতেও পারবেন কম। তাই খাবার খাওয়ার আগে ১ গ্লাস পানি অবশ্যই খেয়ে নিবেন এবং দিনে অন্তত ৮ গ্লাস পানি পান করবেন।
 
৬)মানসিক চাপ/ চিন্তা/ কষ্টে থাকা অবস্থায় অনেক খেয়ে ফেলা :- খাবার, বিশেষ করে সুস্বাদু খাবার কিন্তু মানসিক কষ্ট ও চাপ কমিয়ে দিতে পারে। এটি অনেকের ক্ষেত্রেই সত্যি। যাদের জন্য এটি সত্যি তারা কিন্তু কষ্টকে ভুলে যেতে বিরিয়ানি বা বড় এক বাটি আইসক্রিম হাতে নিয়ে খেতে বসবেন না। তাহলে পরে আয়নার সামনে দারিয়ে পেটে মেদ জমতে দেখে আরো মন খারাপ হতে পারে কিন্তু ।
 
৭) রাতে দেরি করে খাওয়া :- রাতে খেতে আপনার যত বেশি দেরি হবে ততই মেদ জমার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। তাই রাত ৯ টার আগে খেয়ে নেয়ার চেষ্টা করবেন ও রাতে হাল্কা খাবার খাবেন।
 
৮) খাওয়ার সময় বড় আকারের প্লেট বেছে নেয়া :- আপনার প্লেটের আকার যত বড় হবে আপনি খাবেন’ও তত বেশি। ছোট আকারের প্লেট নিলে বারবার তাতে খাবার তুলতে আপনার কষ্ট হবে তাই ধীরে ধীরে আপনার খাওয়ার পরিমাণ’ও কমে যাবে। তাই খাওয়ার আগে ছোট প্লেট নিয়ে নিন।

এসবের সাথে সাথে আপনি যদি ব্যায়াম না করে থাকেন, অগোছালো হয়ে থাকেন, প্রোটিন জাতীয় খাবার কম খেয়ে থাকেন তাহলেও পেটে মেদ জমতে পারে। এই বদঅভ্যাস গুলোকে মুক্তি দিলে মেদ’ও আপনার পেটকে মুক্তি দেবে।
আধুনিক হোমিওপ্যাথি, ঢাকা
ডাক্তার হাসান; ডি. এইচ. এম. এস(BHMC)
যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- +88 01727-382671 এবং +88 01922-437435
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।

0 comments:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 
[X]