সর্বশেষ আপডেট
অপেক্ষা করুন...
মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০১৬

ভারতের ফিরে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দেয়ার কথা থাকলেও তা বাতিল করে আফ্রিকায় যাচ্ছেন তরুণদের জঙ্গিবাদে ‘উৎসাহিত করার’ অভিযোগে তদন্তের মুখে থাকা বিতর্কিত ইসলামী বক্তা জাকির নায়েক। সৌদি আরব থেকে ভারতে ফেরার নির্ধারিত যাত্রা আকস্মিক বাতিল করার কথা জানা গিয়েছিলো গতকাল সোমবারই । আজ মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, নিজের প্রতিষ্ঠিত পিচ টিভির মাধ্যমে ব্যাপক পরিচিতি পাওয়া জাকির নায়েক আগামী প্রায় এক মাসের লম্বা সফরে আফ্রিকায় থাকবেন জাকির নায়েক ।

জাকির নায়েকের দেশে না ফেরার এমন ঘটনায় ‘গুজব’ উঠে দেশে ফিরলেই গ্রেফতার পারেন তিনি। এমন অবস্থায় ভারতীয় ইসলামিক স্কলার জাকির নায়েক দেশে ফিরলে তাকে ‘গ্রেফতার করা হতে পারে’ এমন গুজবকে উড়িয়ে দিয়ে মহারাষ্ট্র স্টেইট ইন্টেলিজেন্স ডিপার্টমেন্ট (এসআইডি) নামের ভারতীয় রাস্ট্রিয় গোয়েন্দা সংস্থা জানিয়েছে , ” জাকির নায়েককে গ্রেফতারের কোন কারণ নেই”।
জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে উসকানির অভিযোগের কোন প্রমাণও পাওয়া যায়নি বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি ।

ভারতের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ‘দ্য হিন্দু’র এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।
Maharashtra State Intelligence Department (SID) has for now given a clean chit to preacher Zakir Naik, conceding that there is simply no case to be made out against the televangelist. Sources in the special SID team handling the probe ordered by the State government said Dr. Naik will not be and cannot be arrested upon his return to India. বিস্তারিত এই লিংকে

এসআইডি’র সিনিয়র এক কর্মকর্তার বরাতে দ্যা হিন্দু জানায়, ” প্রাথমিক তদন্তের অংশ হিসেবে ভারতে এবং ভারতের বাইরে দেয়া জাকির নায়েকের শত শত বক্তৃতার ইউটিউব ভিডিওসহ অন্যান্য তথ্যাদি পরীক্ষা করেছে সংস্থাটি। যেখানে আইসিসের প্রসারে তার বক্তৃতা প্রভাব ফেলেছে বলে দাবি উঠেছে, সেই হায়দ্রাবাদের গোয়েন্দা সংস্থাসহ অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থা থেকে তথ্য উপাত্ত নিয়ে সেগুলিও যাচাই করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তের পর্যবেক্ষণ উপর মহলকে জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।”

ঐ কর্মকর্তা আরও জানান, “ইংরেজীভাষী এই ধর্ম প্রচারকের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগেরই প্রমাণ মেলেনি। শুধুমাত্র যে সম্ভাব্য বিষয়টি বিবেচনায় নেয়া যায়, সেটি হলো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়া। কিন্তু সেটিও তার বক্তৃতা থেকে প্রমাণ করা সম্ভব না। আমরা তার গতিবিধি নজরে রেখেছি। যদি তিনি তার অবস্থান থেকে কখনও সরে যান, কেবলমাত্র তখনই তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ আনা সম্ভব। আপাতত, আমরা শুধু পর্যবেক্ষণে রেখেছি তাকে।”

জাকির নায়েকের সাবেক এক সহকর্মীর বক্তব্যও পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে বলে জানান এসআইডি কর্মকর্তা। ওই ব্যক্তি এখন আর জাকির নায়েকের সঙ্গে কাজ করেন না। তিনি বলেছিলেন, “বক্তৃতা থেকে প্রাপ্ত অর্থ জাকির নায়েক শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করেন। শেয়ারবাজারে লাভের জন্যই তিনি ‘বক্তৃতা বাণিজ্য’ চালিয়ে যাচ্ছেন।” কিন্তু শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ কোন অপরাধ হতে পারে না বলেও জানান ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

এর আগে প্রবাসে থেকে সোমবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতি পাঠিয়ে জাকির নায়েক বলছেন- তার বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে ভারত সরকারের কোনো সংস্থা থেকে এ পর্যন্ত তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়নি। তিনি বলেন, ভারতের তদন্তকারী সংস্থার কোনো কর্মকর্তাকে তাদের প্রয়োজনীয় কোনো তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে পারলে আমি আনন্দিত বোধ করব।

এদিকে, মুম্বাইয়ে এবং বাংলাদেশেও জাকির নায়েকের লাখ লাখ সমর্থকদের দাবী , তার বিরুদ্ধে আনা একটি অভিযোগও সঠিক নয়। তার আইনজীবী মুবিন সোলকারের দাবি, তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগেরই সত্যতা নেই। এমনকি ‘ঘৃণা ছড়ানো’র অভিযোগও পুরোপুরি মিথ্যা। সন্ত্রাসবাদে উস্কানি দেয়ার অভিযোগের তো প্রশ্নই ওঠে না।
আধুনিক হোমিওপ্যাথি, ঢাকা
ডাক্তার হাসান; ডি. এইচ. এম. এস(BHMC)
যৌন ও স্ত্রীরোগ, লিভার, কিডনি ও পাইলসরোগ বিশেষজ্ঞ হোমিওপ্যাথ
১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪, বাংলাদেশ
ফোন :- +88 01727-382671 এবং +88 01922-437435
স্বাস্থ্য পরামর্শের জন্য যেকোন সময় নির্দিধায় এবং নিঃসংকোচে যোগাযোগ করুন।

0 comments:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

 
[X]