সরাসরি প্রধান সামগ্রীতে চলে যান

পোস্টগুলি

January, 2017 থেকে পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে

পুড়িয়ে দেয়া মসজিদ নির্মাণে চাঁদা দিচ্ছে ইহুদি খ্রিস্টান নাস্তিকরাও

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে একটি মসজিদ পুড়িয়ে দেয়ার পরপরই তা আবারও নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন মুসলমানরা। মসজিদটি নির্মাণের জন্য সাড়ে আট লাখ ডলার তহবিল চেয়ে আবেদন জানানোর ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ছয় লাখ ডলারেরও বেশি অর্থ যোগাড় হয়েছে।
অনলাইনে গণচাঁদার মাধ্যমে এ অর্থ সংগ্রহ করা হচ্ছে। এতে মুসলমানদের পাশাপাশি ইহুদি, খ্রিস্টান ও নাস্তিকদেরও অংশ নিতে দেখা যাচ্ছে। খবর আলজাজিরার।
শুক্রবার সাতটি মুসলিম দেশের শরণার্থীদের প্রবেশ ও নাগরিকদের ভ্রমণের ওপর কড়াকড়ি আরোপ করে আদেশ জারি করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
এরপর শুক্রবার দিবাগত রাত ২টায় দক্ষিণ-পূর্ব টেক্সাসের 'ভিক্টোরিয়া ইসলামিক সেন্টার' নামের মসজিদটি পুড়িয়ে দেয়া হয়।
'বাইবেল প্রধান' নামে পরিচিত উগ্র খ্রিস্টান অধ্যূষিত এলাকাটিতে ২০০০ সালে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল। এর এক বছর পরেই টুইন টাওয়ারে হামলার ঘটনার ঘটেছিল।
তবে এ মসজিদে আগুনের ঘটনায় ভিক্টোরিয়া শহরের বাসিন্দাদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার তৈরি হয়েছে। মসজিদটির কমকর্তাদের সহানুভূতি জানিয়েছেন অন্য ধর্মের সাধারণ মানুষ এবং ইহুদি ও খ্রিস্টানদের উপাসনালয়ের প্রতিনিধিরা।
এ ছাড়াও আশেপাশ…

মার্কিনিদেরও ঢুকতে দেবে না ইরান

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা না ওঠা পর্যন্ত দেশটির নাগরিকদেরও ঢুকতে দেবে না ইরান।  সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার পাল্টা হিসেবে ইরান এ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। 
শনিবার তেহরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র যতদিন না তাদের অপমানকর ও অপরাধমূলক নিষেধাজ্ঞা তুলে না নেবে, ততদিন কোনো মার্কিন নাগরিক ইরানে প্রবেশ করতে পারবে না। খবর ইন্ডিপেন্ডেন্টের। 
ইরানিয়ান কর্তৃপক্ষ যুক্তরাষ্ট্রের চরমপন্থার বিরুদ্ধে নিজেদের সিদ্ধান্তকে 'বড় উপহার' বলে মন্তব্য করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের সাত দিনের মধ্যেই সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। 
তার আদেশ অনুযায়ী ইরান, ইরাক, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া ও ইয়ামেনের অধিবাসীরা আগামী ৩ মাস যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ভিসা পাবেন না।  পাশাপাশি ওই সাত দেশের অধিবাসী আগামী ৪ মাস দেশটির অভিবাসী আবেদনের বাইরে থাকবে।  শুক্রবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ সংক্রান্ত এক নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন।  ট্রাম্পের এই আদেশের নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। অন্যদিকে ই…

নিরাপদ থাকতে ফেসবুক থেকে মুছে দিন ৮ তথ্য!

বলতে গেলে এখন প্রায় সবাই ফেসবুক ব্যবহার করেন। অসচেতনতায় নিজেরাই অনিরাপদ করছি নিজেদের। সেক্ষেত্রে সবার সচেতন হওয়া জরুরি। যদি সবাই সচেতনভাবে ফেসবুক ব্যবহার করি তাহলে অনাকাঙ্খিত ঘটনাগুলো এড়ানো সম্ভব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিরাপদ থাকার জন্য আপনার ফেসবুক প্রোফাইল থেকে ৮টি তথ্য এখনই মুছে ফেলুন।
বর্সাতমানে মাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সঙ্গে বেশিরভাগ মানুষই সম্পৃক্ত। কোনো না কোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা সদস্য। বলা যায় ভার্চুয়াল জগতের সঙ্গে বাস্তব জগত এখন একাত্মা। বর্তমানে যে হারে খুন ও অপহরণের ঘটনা ঘটছে তাতে নিরাপদ থাকাটা বেশ কঠিন। এসব ঘটনাকে আরো বেশি প্রভাবিত করছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলো। ৮টি বিষয়ে সচেতন থাকলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপনি নিরাপদ থাকতে পারবেন।
১. আপনার জন্ম তারিখ: অনেকেই নিজের জন্ম তারিখ ফেসবুকে উন্মুক্ত করে রাখেন। এটি আপনার জন্য অনিরাপদ। কারণ তথ্য প্রযুক্তির যুগে জন্ম তারিখ থেকেই অনেক তথ্য সংগ্রহ করেন হ্যাকারা। অথবা যেকোনো শত্রু এই বিশেষ দিনে টার্গেট করে আপনার ওপর হামলা চালাতে পারে। তাই ফেসবুকে জন্মতারিখ উন্মুক্ত রাখার বিষয়ে সবাইকে সচেতন হতে হবে।
২. আপনার শিশু কোথায় পড়াশুন…

কাঠের গুঁড়া, ধানের তুষের সঙ্গে রং মিশিয়ে মসলা তৈরি!

পাবনার বেড়া পৌরসভার দক্ষিণপাড়া মহল্লায় আজ শনিবার ভেজাল মসলা তৈরির কারখানা অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ভেজাল মরিচ ও হলুদের গুঁড়া তৈরির দায়ে কারখানার মালিক দেলোয়ার হোসেনকে (৪০) ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ, দুই লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।
র‍্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, র‌্যাব ১২-এর সিপিসি-২, পাবনা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাবনার বেড়া থানাধীন দক্ষিণপাড়ায় একটি ভেজাল মরিচের গুঁড়া তৈরির কারখানার সন্ধান পায়। র‌্যাব আরো জানতে পারে যে ওই কারখানার মালিক মো. দেলোয়ার হোসেন দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ভেজাল মরিচ ও হলুদের গুঁড়া প্রস্তুত ও বাজারজাত করে আসছে। এই সংবাদের ভিত্তিতে আজ দুপুর ১২টার দিকে উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) মো. এনামুল হকের নেতৃত্বে র‌্যাব-১২, পাবনার একটি আভিযানিক দল ওই কারখানায় অভিযান চালায়। 
ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভ্রাম্যমাণ আদালত কাঠের গুঁড়া, ধানের তুষ, পঁচা মরিচ ও বিভিন্ন প্রকার রং মিশিয়ে ভেজাল মরিচ ও হলুদের গুঁড়া প্রস্তুত করতে দেখতে পায়, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। ভেজাল মরিচ ও হলুদের গুঁড়া প্রস্তুত ও বিপনণের অপরাধে নির্বাহী ম্যাজ…

ঘুম থেকে উঠেই কাচা ছোলা খাওয়ার ১৫ স্বাস্থ্য উপকারিতা…

কাঁচা ছোলার গুণ সম্পর্কে আমরা সবাই কমবেশি জানি। প্রতি ১০০ গ্রাম ছোলায় আমিষ প্রায় ১৮ গ্রাম, কার্বোহাইড্রেট প্রায় ৬৫ গ্রাম, ফ্যাট মাত্র ৫ গ্রাম, ২০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ভিটামিন ‘এ’ প্রায় ১৯২ মাইক্রোগ্রাম এবং প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি-১ ও বি-২ আছে। ছোলায় বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন, খনিজ লবণ, ম্যাগনেশিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে।
উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার ছোলা। কাঁচা, সেদ্ধ বা তরকারি রান্না করেও খাওয়া যায়। কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে, খোসা ছাড়িয়ে, কাঁচা আদার সঙ্গে খেলে শরীরে একই সঙ্গে আমিষ ও অ্যান্টিবায়োটিক যাবে। আমিষ মানুষকে শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান বানায়। আর অ্যান্টিবায়োটিক যেকোনো অসুখের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। জেনে নিন ছোলার কিছু স্বাস্থ্যগুণের কথা
১. ডাল হিসেবে: ছোলা পুষ্টিকর একটি ডাল। এটি মলিবেডনাম এবং ম্যাঙ্গানিজ এর চমৎকার উৎস। ছোলাতে প্রচুর পরিমাণে ফলেট এবং খাদ্য আঁশ আছে সেই সাথে আছে আমিষ, ট্রিপট্যোফান, কপার, ফসফরাস এবং আয়রণ।
২. হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে: অস্ট্রেলিয়ান গবেষকরা দেখিয়েছেন যে খাবারে ছোলা যুক্ত করলে টোটাল কোলেস্টেরল এবং খারাপ কোলেস্টেরল এর পরিমাণ কমে যায়। ছোলাতে দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় উভয় …

আজ থেকেই দুধে হরলিক্স নয় ফলমূল মেশান!

মল্ট (পানিতে ভিজানো যে বার্লি বা অন্য শস্যদানা অঙ্কুরোদগমের পর ব্যবহারের জন্য শুকানো হয়) বেভারেজ, বিভিন্ন ধরনের কোমল পানীয়, সম্পূরক খাবারের জনপ্রিয়তা ভীষণভাবে বাড়ছে। এই মল্ট খাবারগুলো পুষ্টিকর খাবারের স্থান দখল করে নিচ্ছে। অসচেতন মায়েরা গরুর দুধের সাথে অথবা গরম পানিতে এসব মিশিয়ে মিষ্টতা বৃদ্ধি করে আদরের সোনামনিদের মুখে তুলে দিচ্ছে। আর মিষ্টি স্বাদের জন্য বাচ্চারাও খুবই মজা করে পান করছে।
মল্ট দ্বারা তৈরিকৃত পানীয় এবং সম্পূরক খাবারের মধ্যে রয়েছে হরলিক্স, কমপ্লান, বুস্ট, প্রটিনেক্স, পেডিয়াসিউর, বর্নভিটা ইত্যাদি। আজকাল প্রায় প্রতিটি বাসায় এসব পাওয়া যাচ্ছে। আর এসব খেয়ে নাকি বাচ্চারা বয়স ও বুদ্ধিতে তরতর করে বেড়ে উঠছে! কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, সত্যিই কি তাই? এখন জানব সত্যতা:
মল্ট পানীয় এবং সম্পূরক খাদ্য সম্পর্কে কিছু জানা অজানা তথ্য:-এই সকল পানীয়তে প্রচুর পরিমাণে চিনি ব্যবহৃত হয়! এমনকি এগুলোর অধিকাংশগুলোতে চকলেটও থাকে। এ ধরনের উপাদান আমাদের শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর হতে পারে।
ক্ষতির মধ্যে একটি হচ্ছে মুখস্বাস্থ্য নষ্ট হওয়া। যখন অতিরিক্ত চিনি খাওয়া হবে তখন মুখে ব্যাকটেরিয়া জন্মাবে। যেগুলো পরবর্…

নিশ্চয়ই মাছির একটি ডানায় রয়েছে রোগ, আর অপরটিতে রয়েছে রোগ নাশক ঔষধ (বুখারী)।

প্রায় ১৪০০ বছর আগে নাজিল হওয়া আল কোরআনের বিশ্লেষণ করে মানুষ মঙ্গল গ্রহ পর্যন্ত পৌঁছেছে। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ১৪০০ বছর আগে মাছি প্রসঙ্গে যে কথাটি বলেছিলেন, তা আমাদের আধুনিক বিজ্ঞানও মেনে নিয়েছে।বুখারী ও ইবনে মাজাহ হাদীসে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যদি তোমাদের কারো পাত্রে মাছি পতিত হয় সে যেন উক্ত মাছিটিকে ডুবিয়ে দেয়। কেননা তার একটি ডানায় রোগজীবাণু রয়েছে, আর অপরটিতে রয়েছে রোগনাশক ঔষধ’(বুখারী)।
জ্ঞানবিজ্ঞানের যখন অগ্রগতি হলো, যখন ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস জীবাণু সম্পর্কে জ্ঞানের অগ্রগতির মাধ্যমে বর্ণিত হচ্ছে, মাছি মানুষের শত্রু, সে রোগজীবাণু বহন করে এবং স্থানান্তরিত করে। মাছির ডানায় রোগজীবাণু রয়েছে তাতে কোন সন্দেহ নেই।’ তাই যদি হয় তাহলে কিভাবে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম রোগজীবাণু বহনকারী মাছিকে ডুবিয়ে নেয়ার আদেশ করলেন?
এ বিষয়ে কিং আব্দুল আজীজ বিশ্ববিদ্যালয়ের উস্তাদ ডক্টর ওয়াজিহ বায়েশরী এই হাদীসের আলোকে মাছি নিয়ে কয়েকটি পরীক্ষা চালান। জীবাণুমুক্ত কিছু পাত্রের মধ্যে কয়েকটি মাছি ধরে নিয়ে জীবাণুমুক্ত টেস্ট টিউবের মধ্যে আবদ্ধ করে রাখেন। তারপর নলটি একটি…

হাটহাজারী মাদ্রাসায় পাগড়ি পাচ্ছেন ২৫০০ শিক্ষার্থী

চট্টগ্রামের দারুল উলূম হাটহাজারী মাদ্রাসার বিশেষ সমাবর্তনে প্রায় আড়াই হাজার তরুণ আলেমকে বিশেষ সম্মানসূচক পাগড়ি প্রদান করা হবে। গত বছরের দাওরায়ে হাদীস (টাইটেল) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের এ পাগড়ি দেয়া হবে।
শুক্রবার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ঐতিহ্যবাহী এ বৃহৎ কওমি মাদ্রাসার চত্বরে বার্ষিক মাহফিল ও দস্তাবন্দী সম্মেলনে এ পাগড়ি দেয়া হবে।
দেশের সর্ববৃহৎ এ দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে সমকালীন মুসলিম বিশ্ব পরিস্থিতি ও ইসলামের সার্বিক বিষয়ে দিক-নির্দেশনা প্রদান করে দেশের প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ ও শীর্ষস্থানীয় ওলামা মাশায়েখগণ কুরআন-হাদীস ভিত্তিক বক্তব্য রাখবেন।
মাহফিলে দেশ ও জাতির উদ্দেশে বিশেষ হেদায়াতি বক্তব্য ও আখেরি মুনাজাত পরিচালনা করবেন দারুল উলূম হাটহাজারী মাদ্রসার মহাপরিচালক ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী।
সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হাজার হাজার উলামা-মাশায়েখ ও মুসল্লী উপস্থিত হয়ে মাদ্রাসার বিভিন্ন হল রুম, ছাত্রবাস, মসজিদ ও স্থানীয় আবাসিক হোটেলে অবস্থান করছেন। সম্মেলনের আগের দিন বিশাল মাঠ জুড়ে সামিয়ানা স্থাপন, স্টেজ নির্মাণ ও মুসল্লীদ…

স্বল্প খরচে ৩ লাখ বাংলাদেশী নেবে কানাডা, সপরিবারে স্থায়ী বসবাসের সুযোগ! যেভাবে আবেদন করবেন

২০১৬-১৭ সালে ৩ লাখ ৫ হাজার পেশাজীবী কানাডায় ইমিগ্রেশনের সুযোগ পাচ্ছেন। দেশটির ১১টি প্রদেশে- হাই স্কিলড, ট্রেড স্কিলড, ফ্যামেলি স্পন্সরশিপ, বিজনেস, এক্সপ্রেস এন্ট্রি, পিএনপি, এফএসডব্লিউ, সেল্ফ অ্যাম্প্লয়েডসহ ১১টি ক্যাটাগরিতে ইমিগ্রেশনের ঘোষণা দিয়েছে কানাডিয়ান সরকার। শুধু কানাডার কুইবেক প্রদেশেই ১০ হাজার পেশাজীবী ইমিগ্রেশন করার সুযোগ পাবেন। এক্ষেত্রে ট্রেড স্কিলড অ্যাসেসমেন্ট সার্টিফিকেট ও প্রোভিন্সিয়াল নমিনেশন ছাড়া কোনো আবেদন জমা নেয়া হয় না।
আবেদনের যোগ্যতা:- আইইএলটিএস পরীক্ষায় ন্যূনতম ৪.৫ (সাড়ে চার) পয়েন্ট, যেকোনো বিষয়ে ডিপ্লোমা অথবা গ্র্যাজুয়েশন। কর্মক্ষেত্রে কমপক্ষে ২ বছরের অভিজ্ঞতা। বয়স ২১ থেকে ৫৩ বছরের মধ্যে থাকতে হবে।
বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইমিগ্রেশন আইন বিশেষজ্ঞ ও সাউথ এশিয়ান ল’ ইয়ার্স ফোরামের সভাপতি ড. শেখ সালাহউদ্দিন আহমেদ (রাজু) বলেন, এটিই কানাডার সর্বশেষ ফার্স্ট-কাম-ফার্স্ট-সার্ভ পদ্ধতির ইমিগ্রেশন প্রোগ্রাম। তাছাড়াও বিভিন্ন প্রোভিন্সিয়াল প্রোগ্রামে আবেদন করে যেকেউ সহজেইএক্সপ্রেস এনিট্র প্রোফাইলে অতিরিক্ত ৬০০ পয়েন্ট যোগ করে দ্রুত কানাডায় ইম…

প্রশ্রাবের সময় জ্বালাপোড়া বা প্রশ্রাবের রাস্তায় ইনফেকশন সমস্যা ১০০% কার্যকরী সমাধান

প্রশ্রাবের সময় জ্বালাপোড়া বা প্রশ্রাবের রাস্তায় ইনফেকশন সমস্যা ১০০% কার্যকরী সমাধান। মূত্রনালীর প্রদাহকে ইংরেজিতে ইউরেথ্রাইটিস বলে। মূত্রনালীতে গনোকক্কাস নামক রোগের জীবানু প্রবেশ করে এই জাতীয় রোগের সৃষ্টি করতে পারে। তবে এটি অন্য ধরনের ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাস দ্বারাও ঘটতে পারে। আবার কখনো কখনো কোনো প্রকার সংক্রমণ ছাড়াও ঘটতে পারে যেমন - মূত্রনালীতে আঘাত পেলে বা কোনো প্রকার অপারেশন হলে প্রদাহ সৃষ্টি হতে পারে। গনোরিয়া, সিফিলিস ইত্যাদি রোগের কারণে এটি দেখা দিতে পারে। এর জন্য সর্বাধিক কার্যকর হলো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সর্বাধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা। কাল বিলম্ব না করে ডাক্তারকে ফোন করুন।
Urethritis ( ইউরেথ্রাইটিস ):- ইউরেথ্রাইটিস হলো মূত্রনালীর প্রদাহ। এ ক্ষেত্রে মূত্রনালীর মুখে অর্থাৎ লিঙ্গমণ্ডুর ছিদ্রে ব্যথা অনুভূত হয়। এই ব্যথা প্রস্রাব করার সাথে সাথেই অনুভূত হয়। সাধারণত প্রস্রাব করা শেষ হয়ে গেলে কার কার একটু পর ব্যথা চলে যেতে দেখা যায়- পুরুষদের মূত্রনালী মুত্র বহন করা ছাড়া ও বীর্য বহন করা ও একটি বাড়তি কাজ . মলদ্বার থেকে ব্যাকটেরিয়া মূত্রনালী ছড়িয়ে যখন Urethritis সাধারণত…

কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে প্রায়! ডাক্তার বলছে ডায়ালাইসিস করতে হবে ? জানেন কি এর চেয়েও ভালো এবং আরোগ্যকারী চিকিৎসা রয়েছে বাংলাদেশেই।

কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে প্রায়! ডাক্তার বলছে ডায়ালাইসিস করতে হবে ? জানেন কি এর চেয়েও ভালো এবং আরোগ্যকারী চিকিৎসা রয়েছে বাংলাদেশেই। কিডনি যখন নিজস্ব কোনো রোগে আক্রান্ত হয়, অথবা অন্য কোনো রোগে কিডনি আক্রান্ত হয়, যার ফলে কিডনির কার্যকরতা তিন মাস বা ততধিক সময় পর্যন্ত লোপ পেয়ে থাকে, তখন তাকে দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ বলা হয়। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে যদি কিডনি রোগ ছাড়াও কিডনির কার্যকরতা লোপ পায়, তাহলেও তাকে দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ বলা যেতে পারে। যেমন, ক্রনিক নেফ্রাইটিস কিডনির ফিল্টারকে আক্রমণ করে ক্রমান্বয়ে কিডনির কার্যকরতা কমিয়ে ফেলতে পারে। ফলে দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ হতে পারে। ঠিক তেমনি ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপ কিডনি রোগ না হওয়া সত্ত্বেও কিডনির ফিল্টার/ছাঁকনি ধ্বংস করতে পারে। আবার কারও যদি জন্মগতভাবে কিডনির কার্যকরতা কম থাকে, অথবা কিডনির আকার ছোট বা বেশি বড় থাকে, তাহলেও দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ হতে পারে।
কিন্তু যেকারণেই আপনার কিডনি নষ্ট হয়ে যাকনা কেন এর রয়েছে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সর্বাধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা। যা আপনার কিডনি রোগ নির্মূল করে আবার আপনাকে পরিপূর্ণ সুস্থ অবস্থায় ফিরিয়ে আনবে। ডাক্তারে…

হারিয়ে যাচ্ছে ঔষধি ফল ডুমুর! ডুমুর পিত্ত,আমাশয় ও ডায়াবেটিস রোগে উপকারী ।

বাংলাদেশে আগে অনেক ভেষজ উদ্ভিদে পরিপুর্ন ছিল। আর সেগুলোর ছিল নানা রকমের ঔষুধিগুণ। কিন্তু জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে গাছগাছালি কাটার ফলে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে সেই সব উপকারী ভেষজ উদ্ভিদ ও এদের ঔষুধি ফুল ও ফল।এই হারিয়ে যাওয়া ঔষুধি ফলের মধ্যে অন্যতম হল ডুমুর ফল।
মোরাসিয়ে গোত্রভূক্ত ৮৫০টিরও অধিক কাঠজাতীয় গাছের প্রজাতি বিশেষ হল ডুমুর। এ প্রজাতির গাছ, গুল্ম, লতা ইত্যাদি সম্মিলিতভাবে ডুমুর গাছ বা ডুমুর নামে পরিচিত।
ডুমুর ফল নরম ও মিষ্টি জাতীয় ফল । ফলের আবরণ ভাগ খুবই পাতলা এবং এর অভ্যন্তরে অনেক ছোট ছোট বীজ রয়েছে। এর ফল শুকনো ও পাকা অবস্থায় ভক্ষণ করা যায়। উষ্ণ জলবায়ু অঞ্চলে এ প্রজাতির গাছ জন্মে। কখনো কখনো জ্যাম হিসেবে এর ব্যবহার হয়ে থাকে।
এছাড়াও, স্ন্যাক জাতীয় খাবারেও ডুমুরের প্রয়োগ হয়ে থাকে। শহর-নগর সর্বত্র ডুমুর পাওয়া যায় না। গ্রামগঞ্জে যেখানে-সেখানে ডুমুর গাছ দেখতে পাওয়া যায়। ডুমুরগাছ কেউ লাগায় না, আপনা আপনি হয়। তবে ডুমুর খুবই উপকারী। দুই ধরনের ডুমুর দেখা যায় – গোল ডুমুর ও যজ্ঞ ডুমুর। ডুমুরের পাতা খসখসে হয়। গোল ডুমুরের পাতা লম্বা এবং যজ্ঞ ডুমুরের পাতা গোল। ডুমুর হাটবাজারে কি…

গুগল এডসেন্স ব্যান ! দক্ষিণ এশিয়ার ব্লগারদের জন্য এডস্টেরা এবং প্রফেলার এড নেটওয়ার্ক

আপনার বাংলা ওয়েবসাইট রয়েছে এবং ভিসিটর পাচ্ছেন ভালো। বসে না থেকে আজই এপ্লাই করুন এডস্টেরা এবং প্রফেলার এড নেটওয়ার্কে। গুগল এডসেন্স ব্যান ! দক্ষিণ এশিয়ার ব্লগারদের জন্য এডস্টেরা এবং প্রফেলার এড নেটওয়ার্ক। 
যাদের ওয়েবসাইট বা ব্লোগ রয়েছে তাদের প্রথম পছন্দ গুগল এডসেন্স। গুগল এডসেন্স খুব ভাল একটি বিজ্ঞাপন ব্যবস্থা। এর ক্লিক রেট অনেক বেশী।
কিন্তু সমস্যা অনেক!!! কোন দুর্বল ওয়েবসাইট বা ব্লগ হলে সে ওয়েবসাইট বা ব্লগ দিয়ে গুগল এডসেন্স পাওয়াই যাবে না। যদি একটু বুদ্ধি খাটানো যায় তাহলে হয়ত প্রথমবারের মত ইউটিউব দিয়ে এডসেন্স পাওয়া যেতে পারে। সেখান থেকে ইনকাম করাও এখন অনেক কষ্টকর বিষয় কারণ ইউটিউব যখন তখন চ্যানেল রিমুভ করে দিচ্ছে কোনো প্রকার নোটিফিকেশন ছাড়াই! সাথে আবার এডসেন্সও ব্যান ! তাহলে তো আপনার দুঃখ আরও বেড়ে যাবে, কষ্ট করে পাওয়া এডসেন্স ব্যান হয়ে যেতে পারে। গুগল এডসেন্স যদি আপনাকে দয়ার চোখে না দেখে তাহলে অবশ্যই কিছু কারন পেলেই আপনার একাউন্ট ব্যান হয়ে যেতে পারে। তবে চিন্তার কারণ নেই। দক্ষিণ এশিয়ার ব্লগারদের জন্য রয়েছে এর বিকল্প। আপনি ভালো রেভেনিউ পেতে যুক্ত হতে পারেন এডস্টেরা এবং প্রফেলার এড নেটওয়…

ফুচকা কারখানায় তোলা কিছু ছবি ! এভাবেই বানানো হয় আপনার পছন্দের সুস্বাদু ফুচকা

ফুচকা কারখানায় তোলা কিছু ছবি ! এভাবেই বানানো হয় আপনার পছন্দের সুস্বাদু ফুচকা। ছবিটি শেয়ার করে আপনার বন্ধুদের ফুচকা খাওয়ার দাওয়াত দিন। ধন্যবাদ...